চা বানানোর সময় এবার থেকে দিন এই একটি ঘরোয়া উপাদান, চা হবে আগের থেকে দ্বিগুণ টেস্টি ও পারফেক্ট

নিজস্ব প্রতিবেদন: চায়ের প্রতি কিন্তু প্রত্যেক মানুষেরই একপ্রকার আলাদা আবেগ আর ভালোবাসা রয়েছে। সুখ-দুঃখ থেকে শুরু করে যে কোন উৎসব অনুষ্ঠান সবকিছুতেই আপনারা চায়ের ব্যবহার দেখতে পারবেন। লক্ষ্য করে দেখবেন সকাল থেকে সন্ধ্যা যাদের চায়ের নেশা রয়েছে তারা কিন্তু আর বিশেষ অন্য কোন খাবারের খোঁজ করেন না। একটু চা পেলেই যেন তাদের সমস্ত সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে। শীতকালের সকালে একদম গরম গরম ধোঁয়া ওঠা চা খেতে এতটাই ভালো লাগে যে হয়তো আপনাদের তা বলে বোঝানো যাবে না।

তবে এই চা বানাতে গিয়ে নতুন গৃহিণীরা কিন্তু বেশ সমস্যায় পড়ে থাকেন। অনেক সময় চায়ের কনসিসটেন্সি ঠিক হয়না; আবার অনেক ক্ষেত্রেই দেখা যায় এর রং বা স্বাদ হয়তো একেবারে পারফেক্ট হচ্ছে না। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনটি আমরা নিয়ে এসেছি সেই সমস্ত গৃহিণীদের জন্যই যারা চা বানাতে গিয়ে উপরিউক্ত সমস্যায় পড়ে থাকেন। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা এমন চারটি গোপনীয় টিপস আপনাদের সাথে শেয়ার করে নেব যেগুলো লক্ষ্য রাখলে আপনার হাতে তৈরি চায়ের স্বাদ আরো কয়েকগুণ বেড়ে যাবে। চলুন একজন চা প্রেমী হিসেবে এই গোপন রহস্য জেনে নেওয়া যাক।

চা বানানোর কিছু বিশেষ উপায়:

চা তৈরি করার সময় আপনারা কিন্তু আগেই ফ্রিজের মধ্যে থেকে দুধ বের করে রেখে দেবেন। মনে রাখবেন যদি আপনি মসলা চা তৈরি করছেন তাহলে ফ্লেভার কিন্তু ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ। তাই শুরুতেই আপনারা দুটো এলাচ আর ২ ইঞ্চি পরিমাণ আদা পিষে রাখুন। যদি আপনি এই মসলা চা শীতকালে বানাচ্ছেন সেক্ষেত্রে গোলমরিচ বা কেশর যোগ করতে পারেন। এবার চলে আসা যাক মূল অংশে। গ্যাস একেবারে হাই ফ্লেমে রেখে তাতে একটি পাত্র বসিয়ে তিন কাপ পরিমাণ জল ঢেলে দিন।

জল ফুটতে শুরু করলে গ্যাসের আঁচ মিডিয়ামে নিয়ে আসুন এবং তার মধ্যে আদা, লবঙ্গ আর এলাচ যোগ করে দিন। এবার মিনিট খানেকের মধ্যেই আপনাদের এর মধ্যে চায়ের পাতা দিয়ে দিতে হবে। চা একটু সেট হয়ে গেলেই আপনাকে সাথেই কিন্তু চিনি দিয়ে দিতে হবে। প্রসঙ্গত আপনারা কিন্তু চায়ের পাতার সাথেই চিনি দেবেন কারণ দুধের সাথে চিনি দিলে সেটা দুধকে পাতলা করে দেবে। এবার তিন মিনিট পর্যন্ত মিডিয়াম টু লো ফ্লেমে এটাকে ফুটিয়ে নিন। অবশ্যই বেশ ভালো বলক আসলে নাড়াচাড়া করে দেবেন যাতে ফ্লেভারগুলো ছড়িয়ে যায়।

এবার নির্ধারিত সময় পর এক কাপ দুধ এই চায়ের মধ্যে যোগ করুন। তবে আপনারা কিন্তু ঠান্ডা দুধ দেবেন না কারণ এতে চায়ের ফ্লেভার হুট করে তাপমাত্রার পরিবর্তনের কারণে চেঞ্জ হয়ে যেতে পারে। যতক্ষণ পর্যন্ত না বলক আসছে ততক্ষণ এটাকে ফুটিয়ে নিন। এই সময় দোকানের মতন হাতা দিয়ে চা কিন্তু আপনারা একটু নিচ থেকে ওপর করতে থাকবেন যাতে এর তাপমাত্রা ঠিক থাকে।

এবার ছাকনির সাহায্যে গ্লাসে বা কাপে চা ছেঁকে নিন। এবার চায়ের সুগন্ধ ঠিক রাখার জন্য এতে সামান্য পরিমাণে দারচিনি আর এলাচের পাউডার যোগ করে দিন। মাঝেসাঝেই বাড়িতে পরিবারের সকলকে অথবা অতিথি আসলে তাদেরকে এভাবে চা বানিয়ে পরিবেশন করতে পারেন। অবশ্যই নিজেদের অভিজ্ঞতা আমাদের সাথে কমেন্ট বক্সে শেয়ার করে নেওয়ার অনুরোধ রইলো।

Back to top button