রান্না করতে গিয়ে হাতে ছ্যাঁকা লাগে! বা আটা মাখতে বিরক্তি, এসমস্ত খাটনি কমবে কয়েক মিনিটেই, রইলো কয়েকটি দুর্দান্ত কিচেন টিপস

নিজস্ব প্রতিবেদন: প্রতিনিয়ত সংসারের বিভিন্ন কাজ করতে করতে আমরা কিন্তু একটা সময় হাঁপিয়ে যাই ‌। ঘুম থেকে ওঠা থেকে শুরু করে ঘুমোতে যাওয়া পর্যন্ত বিভিন্ন কাজ থাকে এই সংসারে। বিশেষ করে যারা নতুন গৃহিণী রয়েছেন তাদের এই বিষয়ে বিশেষ কোনো ধারণা থাকে না। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা তাই এই সমস্যার সমাধান করতেই অবাক করা কিছু কিচেন টিপস নিয়ে হাজির হয়েছি যা হয়তো আপনাদের কাজে লাগতে পারে। সুতরাং যাদের এগুলো জানা নেই বা যারা নতুন গৃহিনী তারা অবশ্যই আমাদের প্রতিবেদনটি মনোযোগ সহকারে পড়ে ফেলুন।

অবাক করা কয়েকটি কিচেন টিপস:

১) রান্নাঘরে বিভিন্ন কাজের জন্য নানান মাপের চামচ ব্যবহার করা হয়ে থাকে। ফুল চা চামচ অথবা হাফ চা চামুচ থেকে শুরু করে এক চতুর্থাংশ সমস্ত কিছুই পাওয়া যায়। যদিও প্রত্যেক বাড়িতে এটা থাকে না তবে আপনারা খুব সহজেই কিন্তু বাজার থেকে মাপ অনুযায়ী চামচ কিনে নিতে পারেন। তাহলে এবার থেকে আর অসুবিধা হবে না।

২) এবার যে টিপসটি আলোচনা করব সেটা একসঙ্গে দুটো কাজে আপনাদের সাহায্য করবে। সাধারণত আমরা যখন ডিম সেদ্ধ করতে দিই তখন শুধু জল বসিয়ে থাকি। সেরকম না করে সামান্য আর লবণ আর দুটো লেবুর খোসা এই জলে মিশিয়ে তারপর ডিম সেদ্ধ করে নেবেন। এবং ডিম সেদ্ধ হয়ে যাওয়ার পরে জলটা ফেলে না দিয়ে সিঙ্কের মধ্যে সোজাসুজি ঢেলে দিতে পারেন যাতে এর মধ্যে থাকা ময়দা বেরিয়ে যায়।।

৩) বাসন মাজার পরে সাধারণত স্ক্রাবারগুলোকে আমরা বাসন মাজার সাবানের উপরেই ফেলে রাখি। কিন্তু সেটা না করে যদি এটাকে ধুয়ে অন্য কোন জায়গায় রাখা যায় তাহলে কিন্তু একটু বেশি দিন পর্যন্ত এগুলো চলবে।।

৪) ভাতের ফ্যান গালতে গিয়ে অনেকেরই সমস্যার মধ্যে পড়তে হয়। একটা কাপড় দিয়ে হাড়ি না ধরে আপনারা চাইলে কিন্তু দুদিকে দুটো কাপড় ব্যবহার করে এই ফ্যান গেলে নিতে পারেন।

৫) রুটি তৈরি করার ব্যালন কিন্তু অল্প সময়ের মধ্যেই নষ্ট হয়ে যেতে পারে যদি না যত্ন করা হয়। কাঠের জিনিস ভেবে অনেকেই এটাকে জল দিয়ে পরিষ্কার করেন না। তবে সেটা না করে অবশ্যই আপনারা প্রত্যেকবার রুটি করার পরে এটাকে ভালোভাবে জল দিয়ে ধুয়ে নেবেন এবং একটু তেল লাগিয়ে রাখবেন।

৬) সাধারণত সবজি কাটার সময় চপিং বোর্ড ব্যবহার করা হয়ে থাকে। নিয়মিত পরিষ্কার করলেও সবজি দাগের কারণে কিন্তু এটার উপরে কিন্তু এক প্রকার আস্তরণ পড়ে যায়। সেটাকে ওঠানোর জন্য আপনারা ব্যবহার করতে পারেন সামান্য পরিমাণে বেকিং সোডা আর লেবু। একটু ভালো করে ঘষে জল দিয়ে ধুয়ে নিলেই কিন্তু এই দুই উপকরণের প্রভাবে খুব সহজেই চপিং বোর্ড একেবারে পরিষ্কার চকচকে হয়ে উঠবে।

Back to top button