রুটি খেলেই কী গ্যাস অম্বল হয়? এভাবে বানান রুটি গ্যাস অম্বল হবে দূর!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- আমাদের দেশের প্রধান দুই খাদ্যের মধ্যে অন্যতম হল ভাত আর রুটি। মাছে-ভাতে বাঙালি হলেও, এখন অনেক বাঙালিই কিন্তু রুটি খেতে ভালবাসেন। কারণ, প্রথমত, গম থেকে তৈরি হওয়া আটার রুটি হৃদরোগকে দূরে রাখতে সাহায্য করে ও হার্ট অ্যাটাককে দূরে রাখে। এছাড়া রুটিতে ক্যালোরির পরিমাণ খুব কম থাকার কারণে ডাক্তাররা ভাতের বদলে রুটি খাওয়ার পরামর্শ দেন। তাই আজকাল শিশু থেকে বয়স্ক সকলের মধ্যেই কিন্তু রুটির প্রতি আলাদা ভালোবাসা তৈরি হয়েছে বলা যায়।

তবে সবথেকে বড় সমস্যা রুটি খাওয়ার অনেক সুবিধা থাকলেও কিছু মানুষের কিন্তু এই রুটি খেলেই গ্যাস অম্বল সংক্রান্ত সমস্যা দেখা দেয়। তাই অনেকেই কিন্তু ইচ্ছে থাকলেও এই রুটি খেতে পারেন না। অনেক মানুষের ক্ষেত্রেই দেখা যায় রুটি খাওয়ার অনতিবিলম্বেই শুরু হয় বুকজ্বালা, নয়তো অম্বলের সমস্যা, কিংবা গ্যাস। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা এই সমস্যারই সমাধান নিয়ে আপনাদের সাথে আলোচনা করতে চলেছি। তবে মূল প্রতিবেদনে যাওয়ার আগে আপনাদের আরও একটি জিনিস জানিয়ে রাখি যে রুটি খেলে যে শুধু গ্যাস অম্বল সংক্রান্ত সমস্যা হয় এমনটাই নয় এছাড়াও আরো কিছু জিনিস হতে পারে।

  • গ্লুটেনে সমস্যা:

সাধারণত গম থেকে তৈরি আটা দিয়েই রুটি বানানো হয়ে থাকে। এই ধরনের রুটির মধ্যে উপস্থিত থাকে গ্লুটেন। এটি কিন্তু অনেকেই সহ্য করতে পারেন না ফল্স্বরূপ তাদের শরীরে এলার্জি দেখা দেয়। আপনারা হয়তো অনেকেই জানেন না, এই গ্লুটেনের কারণেই হজমের গোলমালও দেখা যায় রুটি খেলে। ফলে পেটখারাপ হতে পারে। কিন্তু শারীরিক সমস্যার কারণে আজকাল যেহেতু অনেককেই রুটি খেতে হচ্ছে তাই উপায়ও নেই। হজমের ওষুধের উপরেই এই সমস্ত ব্যক্তিদের নির্ভরশীল থাকতে হয় বেশিরভাগ সময়। এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য আসুন জেনে নেওয়া যাক কিভাবে রুটি প্রস্তুত করলে সহজেই গ্যাস অম্বল থেকে আপনারা মুক্তি পাবেন।

  • রুটি খাওয়ার পর গ্যাস অম্বলের সমস্যা থেকে মুক্তির উপায়

যারা রুটি খেতে অত্যন্ত পছন্দ করেন তাদের কিন্তু এবার আর চিন্তা করার প্রয়োজন নেই। ভালোভাবে গরম জলে যদি আপনারা আটা মাখতে পারেন তাহলেই কিন্তু কাজ হয়ে যাবে। এটি খুব সাধারণ একটি পদ্ধতি, কিন্তু তাও অনেকে এটি জানেন না। দৈনন্দিন রুটি বানানোর ক্ষেত্রে প্রায় সকলেই সাধারণ জলে আটা মেখে থাকেন। তবে এই নরমাল জলে আটা মাখলে কিন্তু গ্যাস অম্বলের সমস্যা অত্যধিক বেশি পরিমাণে দেখা যায়।

তাই এবার থেকে আপনারা যখন রুটি তৈরি করার জন্য আটা মাখবেন, তখন এটা মাখার জন্য যে জল ব্যবহার করবেন সেটা কিন্তু সামান্য পরিমাণে গরম করে নেবেন। যদি এই গরম জল ব্যবহার করে আপনারা রুটি তৈরি করার জন্য আটা মাখেন সেক্ষেত্রে কিন্তু আর কোন সমস্যাই থাকবে না। খুব সহজেই গ্যাস অম্বল থেকে শুরু করে অন্যান্য নানান ধরনের সমস্যা কিন্তু সহজেই দূর হয়ে যাবে।

পাশাপাশি গরম জল দিয়ে রুটি মাখার কারনে এগুলি অনেকটাই নরম হবে এবং ফুলে উঠবে। সুতরাং আর অপেক্ষা না করে আজ থেকেই রুটি তৈরি করার সময় শুরু করে দিন এই পদ্ধতি। যে কোন বয়সের মানুষেরাই কিন্তু এই পদ্ধতিতে সহজে রুটি তৈরি করে খেতে পারবেন। আজকের এই বিশেষ টিপসটি আপনাদের কেমন লাগলো তা অবশ্যই আমাদের প্রতিবেদনের কমেন্ট বক্সে জানাতে ভুলবেন না।

Back to top button