নতুন বছরে ওজন ঝরাতে চান! তবে রোজ করুন এই দুটি দুর্দান্ত জিনিস, মাত্র কয়েকদিনেই ওজন কমে বডি হবে একদম পারফেক্ট

নিজস্ব প্রতিবেদন: ভুড়ি হয়ে যাওয়া বা ওজন বৃদ্ধির সমস্যা কমবেশি বহু মানুষের মধ্যেই রয়েছে। অনেক চেষ্টার পরেও কিন্তু এই সমস্ত সমস্যা থেকে রেহাই পাওয়া যায় না। আমাদের মধ্যে অনেকেই নানান ধরনের ওষুধ খেয়ে থাকেন এই সমস্যার হাত থেকে বাঁচার জন্য‌। তবে সেই ওষুধও যে সম্পূর্ণরূপে কাজে আসে এ কথা কিন্তু বলা যায় না।

আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা তাই আপনাদের জন্য এমন কিছু টিপস নিয়ে চলে এসেছি যাতে খুব সহজেই কিন্তু ওজন কমানোর পাশাপাশি আপনারা ভুঁড়ি কমিয়ে নিতে পারবেন। সকাল থেকে ওঠার পর একটা গোটা দিন আপনারা কিভাবে কাটাবেন, কি কি এক্সারসাইজ করবেন সেই সমস্ত কিছু সম্পর্কেই আজকের প্রতিবেদনে আমরা আলোচনা করে দেবো। চলুন তাহলে সময় নষ্ট না করে আজকের প্রতিবেদনটি শুরু করা যাক।

১) মেদ ঝরাতে বা ভুড়ি কমানোর জন্য সকালের শুরু আপনাদের একটি পানীয়র মাধ্যমে করতে হবে। সেটি তৈরির জন্য একটা পাত্রের মধ্যে এক চামচ জোয়ান‌ নিয়ে নিন। পাশাপাশি আপনাদের নিয়ে নিতে হবে এক চামচ মৌরি এবং জিরে ‌। এবার একটা চাটুর মধ্যে ৩০ সেকেন্ডের জন্য ড্রাই রোস্ট করবেন। তারপর এটাকে গ্রাইন্ডারের মিহি করে আপনাদের একটা পাউডার তৈরি করে নিতে হবে। কিছুটা পরিমাণ পাউডার আপনারা এরকম করে বানিয়ে রেখে দেবেন এবং প্রত্যেকদিন সকালে উষ্ণ গরম জলের মধ্যে এটা দিয়ে পান করবেন। যারা লেবু খেতে পছন্দ করেন তারা এর মধ্যে সামান্য পরিমাণে লেবুর রস ও মিশিয়ে দিতে পারেন। এটি মেদ ঝরাতে ব্যাপক সাহায্য করে থাকে।

২) এবার আপনাদের নজর রাখতে হবে, সকালের টিফিনের উপর। সকালের ব্রেকফাস্ট হিসেবে মেদ কম রাখার জন্য আপনারা ওটস বা ডালিয়া সেদ্ধ ডিম দিয়ে খেতে পারেন। অথবা আপনারা ওটস দিয়ে টক দই অথবা ড্রাই ফ্রুটস কিন্তু খেতে পারেন। পাশাপাশি পনির দিয়ে সবজি অথবা সুজির অপশন তো রয়েছেই।

৩) এবার আমরা চলে আসবো দুপুরের খাবারের কথায়। মেদ কমানোর জন্য দুপুরের খাবারে আপনাদের ভাতের পরিমাণটাও কিন্তু কমিয়ে দিতে হবে। মোটামুটি এক বাটি ভাতের সাথে আপনারা ডাল, সবজি, এক পিস মাছ অথবা টক দই রাখবেন। সাথে স্যালাড ও রাখতে পারেন। তবে ভাতের পরিমাণ কিন্তু একদম কম রাখবেন।

৪) মেদ কমানোর জন্য বিকেলের খাবারও কিন্তু আপনাদের সামান্য কিছু পরিবর্তন নিয়ে আসতে হবে। বিকেলের নাস্তায় আপনারা গ্রিন টির সাথে মাখানা খেতে পারেন। বাদাম ভেজানো বা ছোলা ভাজাও খেতে পারেন এই সময়।

৫) এবার আসা যাক রাতের ডিনারের কথায়। মেদ ঝরানোর জন্য আপনাদের অবশ্যই রাতের ডিনারে পছন্দসই কোন সবজি অথবা পনির রাখতে পারেন। ডাল আর সবজি দিয়ে আপনারা এক বাটি ডাল বানিয়েও খেতে পারেন। কোন রকমের কার্বোহাইড্রেট জাতীয় খাবার না খাওয়াই ভালো।

এই সমস্ত খাদ্য তালিকা বজায় রাখার পাশাপাশি আপনাদের দিনে দুটি ব্যায়াম অবশ্যই কিন্তু সময় করে করতে হবে। চেষ্টা করবেন সকালে পানীয় খাবার পরেই এই ব্যায়ামগুলো করে নেওয়ার। যদি টানা বেশ কয়েক মাস এই পদ্ধতিতে আপনারা খাবার আর এক্সারসাইজ করতে পারেন তাহলে কিন্তু ভুল কমানোর বা ওজন হ্রাসের হাত থেকে আপনাদের আর কেউ আটকাতে পারবে না। প্রতিবেদনটি ভালো লেগে থাকলে অবশ্যই একটা লাইক কমেন্ট আর শেয়ার করে দেবেন।

Back to top button