কলকাতার আশেপাশেই একদম কম দামে এই দুর্দান্ত বাড়ি বিক্রি, দাম শুনলে হবেন অবাক!

নিজস্ব প্রতিবেদন: মানুষের তিনটি প্রধান মৌলিক চাহিদার মধ্যে রয়েছে খাদ্য,বস্ত্র এবং বাসস্থান। এই তিনটি মৌলিক চাহিদা পূরণ করতে না পারলে কিন্তু জীবনে সঠিকভাবে বেঁচে থাকা যায় না। খাদ্য আর বস্ত্র নিয়ে মানুষের হয়তো আলাদা করে ব্যবস্থা করার প্রয়োজন পড়ে না। কারণ দৈনন্দিন যে কোন স্বাভাবিক জীবন যাপনের রুটিন এর মধ্যেই এটা থাকে। কিন্তু বাসস্থান কিন্তু মানুষকে সর্বদাই জোগাড় করে নিতে হয়। সেটা নিজের চেষ্টাতে হোক বা রেডিমেড।

আমাদের আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আপনাদের জন্য নিয়ে এসেছি একটি এমন বাড়ি বিক্রির বিজ্ঞাপন যা কম-বেশি সকলেরই ভালো লাগতে পারে। সোনারপুর স্টেশন থেকে সামান্য হাঁটা দূরত্বে আজকের এই বিক্রি হওয়া বাড়িটি অবস্থিত। দারুন এই দোতলা বাড়িটিতে খুব সুন্দর ভাবে বাইরের অংশে ছোট্ট করে বাগান করা হয়েছে এবং গাড়ি পার্কিংয়ের জন্যও বেশ ভালো জায়গা রয়েছে। দুটি গাড়ি আপনারা বাড়িতে পার্ক করতে পারবেন যার মধ্যে একটা কভার অংশে রয়েছে এবং বাকিটা খোলা জায়গায়।

এই বাড়িটির দুটি গেট রয়েছে একটি মূল প্রবেশ পথের সামনে আর অপরটি পার্কিং এরিয়া থেকে। পার্কিং এরিয়ার ঠিক উপরেই আপনারা পেয়ে যাবেন সার্ভেন্ট কোয়াটার এবং এর সংলগ্ন একটি বাথরুম। এবার আসা যাক মূল প্রবেশ পথের দিকে। বাড়িটির মূল প্রবেশ পথের শুরুতেই রয়েছে একটি ভীষন সুন্দর সাজানো গোছানো ড্রয়িং রুম। ঠিক ডান দিকে আপনারা পেয়ে যাচ্ছেন একটা ভালো স্পেস সহ রান্নাঘর আর বাথরুম।

এছাড়াও লাগোয়া একটা স্টোর রুম রয়েছে। চাইলে আপনারা কিন্তু এটাকে স্টাডি রুম হিসেবেও কনভার্ট করে নিতে পারেন। এবার স্টেয়ার কেস দিয়ে উপরে উঠে আপনারা বেশ বড় সাইজের বেডরুম পাচ্ছেন দুটি। একটা খুব সুন্দর প্যাসেজ এবং তার লাগোয়া একেবারে মার্বেল ফিনিশিং করা ঠাকুর ঘর পেয়ে যাচ্ছেন। উল্লেখ্য বাইরের সম্পূর্ণ ফ্লোরে কিন্তু মার্বেল ফিনিশ রয়েছে। বাথরুম আর কিচেন মোটামুটি আধুনিকভাবে সাজানো।

ছাদেও আপনারা বেশ বড় স্পেস পাচ্ছেন এবং সেখানেও খুব সুন্দর করে বাগান করতে পারবেন। ব্যালকানির মধ্যেও গার্ডেনিং এর ব্যবস্থা করতে পারেন যদি আপনাদের পছন্দ থাকে। মোটামুটি মাঝারি থেকে বড় ফ্যামিলি কারুর এই বাড়িটি কিনলে কোন রকমের অসুবিধা হবে না। হাঁটা দূরত্বের মধ্যে বাজার, স্কুল, হাসপাতাল এবং ব্যাংক সহ সবকিছুই পাবেন।

সব মিলিয়ে সাড়ে চার কাঠা জমির উপর এই বাড়িটি অবস্থিত। তবে বাড়িতে কেনার পর আপনাকে বাইরের অংশটা কিছুটা রং করিয়ে নিতে হতে পারে। ভেতরের রং করার প্রয়োজন নেই কারণ তা বেশ ভালোভাবেই মেইন্টেন রয়েছে। বাড়িটির সামনে ১৪ ফিটের ফ্রন্ট রোড রয়েছে সুতরাং যে কোন চার চাকা গাড়ি ঢুকে যাবে। যদি আপনারা বাড়িটি কিনতে আগ্রহী থাকেন সেক্ষেত্রে ই-মেইলের মাধ্যমে যোগাযোগ করে নিতে পারেন।
Contact : [email protected]

Back to top button