রান্নাঘরের এই ৫টি সহজ ও দুর্দান্ত কার্যকরী কিচেন টিপস, যা ৯০% গৃহিণীদেরই অজানা

নিজস্ব প্রতিবেদন: দৈনন্দিন বিভিন্ন কাজের মাঝে কিন্তু লক্ষ্য করে দেখবেন আমাদের প্রচুর সময় ব্যয় হয়ে যায়। বিশেষ করে যারা নতুন গৃহিণী রয়েছেন তারা অনেক কাজের সঠিক পদ্ধতি জানেন না যে কারণে তাদের অনেকটা সমস্যার মুখোমুখি হতে হয়।। সমস্ত কাজ শেষ করার পরে দিনের শেষে দেখা যায় তাদের আর নিজেদের জন্য একটুও সময় থাকে না।

আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা তাই আপনাদের সাথে শেয়ার করে নিতে চলেছি অবাক করা এমন পাঁচটি কিচেন টিপস যা দৈনন্দিন কাজে আপনাদের অত্যন্ত সাহায্য করতে পারে এবং সময় বাঁচাতে পারে। যদি আপনিও সংসারের কাজ নিয়ে চিন্তায় পড়ে গিয়ে থাকেন তাহলে অবশ্যই এই প্রতিবেদনটি আপনার জন্য গুরুত্বপূর্ণ। চলুন জেনে নেওয়া যাক সেই বিশেষ কয়েকটি টিপস।

১) অনেক সময় আমরা যে কৌটাতে বিস্কুট রেখে দিই তাতে কোন রকমের হাওয়া ঢোকার কারণে বা বিভিন্ন জিনিসের জন্য বিস্কুট কিন্তু নেতিয়ে পড়ে। লক্ষ্য করে দেখবেন এই নেতিয়ে যাওয়া বিস্কুট খেতে কিন্তু একেবারেই ভালো লাগেনা। বাচ্চারা এ ধরনের বিস্কুট একেবারেই খেতে চায় না। এই সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে আপনারা বিস্কুটের বয়ামের মধ্যে টিস্যু পেপারের মধ্যে সামান্য পরিমাণ চাল মুড়িয়ে রেখে দিতে পারেন।

২) রান্নার তেল কিন্তু প্রত্যেক বাড়িতেই নানান ধরনের ব্যবহার করা হয়। অনেক রান্নাতে যেহেতু আলাদা আলাদা ব্যবহার করা হয় তাই আমাদের বাড়িতেও কিন্তু বিভিন্ন ধরনের তেল নিয়ে আসা হয়ে থাকে। কিন্তু বড় বোতল থেকে এই তেলগুলো যখন ঢালা হয় তখন দেখবেন অনেক ক্ষেত্রেই প্রচুর পরিমাণে তেল অপচয় হয়। কিছু তেল নিচে পড়ে যায় আবার রান্নাতেও কিন্তু বেশি চলে আসে।

এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য বাড়িতে যে ভীম লিকুইডের বোতল নিয়ে আসা হয় সেগুলো আপনারা না ফেলে দিয়ে যত্ন সহকারে রেখে দিতে পারেন। যে তেল দিয়ে রান্না করবেন সেই তেলগুলোকে এই ভীম লিকুইডের বোতল ধুয়ে ভালোভাবে পরিষ্কার করে ঢেলে নেবেন।। এই বোতলগুলি খুবই সুন্দর তাই আপনাদের কিন্তু অতিরিক্ত তেল কোনভাবেই এখান থেকে পড়বে না।

৩) যখন অ্যালুমিনিয়ামের করাই রান্না করা হয় তখন এর মধ্যে কার বিভিন্ন উপাদান কিন্তু খাবারে চলে আসে। যেগুলো ক্ষতিকর। এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য আপনারা প্রথমে কড়াইতে ভর্তি করে জল দিয়ে সেটাকে কিছুক্ষণ ফুটিয়ে নিতে পারেন। তারপর সেই জলটাকে ফেলে দিয়ে কড়াইতে কিছুটা তেল দিয়ে ভালোভাবে ছড়িয়ে নেবেন।

এবার এই তেলটাকে একটা অন্য কোন পাত্রে তুলে রাখবেন এবং রান্না ছাড়া যে কোন কাজে ব্যবহার করা নেবেন। আপনার অ্যালুমিনিয়াম কড়াইয়ের মধ্যে কিন্তু আর কোন খারাপ উপাদান থাকবে না যা রান্নার সাথে মিশে শরীরের ক্ষতি করতে পারে। জল আর সরষের তেলের সাথেই এই উপাদান গুলো বাইরে বেরিয়ে যাবে।

৪) অনেকেই যখন একবারে বেশি করে ডিম কিনে নিয়ে আসেন তখন সেটাকে ফ্রিজে সংরক্ষণ করে রাখেন। কিন্তু ফ্রিজে সংরক্ষণ করে রাখলে অনেক সময় ডিমের মধ্যে একটা বাজে গন্ধ চলে আসে। শীতকালে তাই আপনারা একটু সরষের তেল মাখিয়ে কিন্তু ডিম বাইরেই রেখে দিতে পারেন কোন সমস্যা হবে না।

৫) এবার চলে আসা যাক আমাদের এই প্রতিবেদনের একেবারে সর্বশেষ টিপসে। বাড়িতে যখন নতুন কোন বাসন কিনে নিয়ে আসা হয় তার মধ্যে কিন্তু স্টিকার লেগে থাকে। এই স্টিকার যখন ওঠানো হয় তখন কিন্তু একটা দাগ পড়ে যায় যেটা মোটেও ভালো লাগে না দেখতে। এই স্টিকারের দাগ যাতে বাসনের গায়ে লেগে না যায় তার জন্য আপনারা নতুন বাসন কেড়ে নিয়ে আসার পর সেটা কে গ্যাসে বসিয়ে একটু গরম করে নেবেন। তাহলে খুব সহজে স্টিকার উঠে যাবে আর খুব একটা দাগ পড়বে না।

Back to top button