জিনিসের এতো চাহিদা যে দিয়ে শেষ করতে পারবেন না! খুবই অল্প পুঁজিতে এই গোপন ব্যবসা শুরু করলে মাসিক আয় হবে ২ লাখ

নিজস্ব প্রতিবেদন: করোনা আবহের পর থেকেই দেশের বিভিন্ন ক্ষেত্রে আর্থিক অবস্থা অনেকটাই দুর্বল হয়ে পড়েছে মানুষের। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই ভালো কোন চাকরি নিয়োগ না হওয়ায় মানুষ ব্যবসার দিকে ঝুঁকে পড়েছেন। তবে ঠিক কোন ধরনের ব্যবসা শুরু করলে তাতে লাভবান হওয়া সম্ভব এটাই হচ্ছে মানুষের কাছে সবথেকে বড় প্রশ্নের ব্যাপার।

আপনাদের মধ্যে অনেকেই হয়তো ঠিক এই কারণে ব্যবসা শুরু করতে গিয়ে বাধার মুখে পড়েছেন। তবে আশা করছি আজকের এই প্রতিবেদনটি পড়লে আপনাদের সেই সমস্ত সমস্যার সমাধান খুব সহজেই হয়ে যাবে। তাহলে আর সময় নষ্ট কেন? চলুন আর অপেক্ষা না করে জেনে নেওয়া যাক।

কোন ধরনের ব্যবসা শুরু করা লাভজনক?

আজ আপনাদের যে ব্যবসার আইডিয়া দিতে চলেছি সেটা হল ডিটারজেন্ট পাউডারের ব্যবসা। কমবেশি প্রত্যেক বাড়িতেই কিন্তু এই ডিটারজেন্ট পাউডার নিয়মিত প্রয়োজন হয়ে থাকে সুতরাং এর বাজার চাহিদা নিয়ে আপনাদের মনে কোন রকমের সন্দেহ থাকা উচিত নয়। এই ডিটারজেন্ট পাউডারের ব্যবসা শুরু করার জন্য আপনাদের তিনটি মেশিন প্রয়োজন হবে। প্রথমটি হল মিক্সার মেশিন, ডিটারজেন্ট পাউডার মিক্স করার পরে অনেক সময় দলা দলা হয়ে থাকে ওটা নরম করার জন্য স্ক্রীনিং মেশিন, আর সব থেকে শেষে যে মেশিনটি প্রয়োজন হবে তা হল প্যাকিং মেশিন।

অর্থাৎ ডিটারজেন্ট পাউডার বানিয়ে আপনি সেটাকে খোলামেলা যেহেতু বিক্রি করতে পারবেন না তাই অবশ্যই আপনাকে ভালোভাবে প্যাকেজিং করতে হবে। ব্যস এই তিনটে মেশিন থাকলেই কিন্তু খুব সহজে আপনি ডিটারজেন্ট পাউডারের ব্যবসা করার জন্য কারখানা খুলে ফেলতে পারবেন। আর নিঃসন্দেহে বলতে পারি এই কারখানা খুব সহজেই কিন্তু আপনাদের উপার্জনের মূল ভিত্তি হয়ে দাঁড়াবে এবং ভবিষ্যৎ সুনিশ্চিত করবে।

মূলধন এবং অন্যান্য বিষয়:

এই ব্যবসাটি শুরু করার জন্য মোটামুটি আপনাদের ১ লক্ষ ০৫ হাজার টাকা প্রয়োজন হবে। যদি কোন কারনে আপনার কাছে এই রাশি না থাকে সেক্ষেত্রে কিন্তু ম্যানুফ্যাকচারিং ইউনিটের কাছ থেকে কোটেশন নিয়ে সেটা ব্যাংকে দেখিয়ে আপনারা লোন নিয়েও ব্যবসা শুরু করতে পারেন। ম্যানুফ্যাকচারিং ইউনিট থেকে যদি আপনি মেশিন কেনেন সেক্ষেত্রে সুলভ মূল্য এগুলো পেয়ে যাবেন এবং সেখান থেকে এই মেশিন চালানোর জন্য প্রশিক্ষণ দেওয়ার জন্য টেকনিশিয়ান চলে আসবে।

এই মেশিনের সাহায্যে যে ডিটারজেন্ট পাউডার অর্থাৎ প্রোডাক্ট গুলি তৈরি হবে সেগুলো তৈরি করতে আপনাদের মোটামুটি খরচ পড়বে মোটামুটি কুড়ি থেকে পঁচিশ টাকা। কিন্তু এই জিনিসগুলো আপনারা প্রায় ৬০ টাকার কাছাকাছি দামে স্থানীয় বাজারে বিক্রি করতে পারবেন। যদি আপনাদের ব্যবসার পরিধি আরো বড় করার ইচ্ছে থাকে সেক্ষেত্রে আপনারা নিজেরাও ধীরে ধীরে একটা ম্যানুফ্যাকচারিং ইউনিট প্রস্তুত করে নিতে পারেন।

তবে স্বল্প পুঁজিতে শুরু করতে চাইলে প্রথমেই কিন্তু আপনাকে মেশিন কিনে নিজেদের কাজ চালু করতে হবে। কারণ কোন ব্যবসার ম্যানুফ্যাকচারিং ইউনিট তৈরি করার আগে সেই ব্যবসা সম্পর্কে একটা স্পষ্ট ধারণা মানুষের মধ্যে থাকা ভীষণভাবে প্রয়োজন।

কোথা থেকে মেশিন কিনবেন?

যদি আপনারা প্রতিবেদনটি পড়ার পর এই ব্যবসা শুরু করার কথা চিন্তাভাবনা করছেন তবে আর দেরি করবেন না। নিম্নে মেশিন খরিদ করার জন্য সম্পূর্ণ বিস্তারিত তথ্য দেওয়া হলো। সময় নষ্ট না করে যোগাযোগ করে ফেলুন।
Creative industries.
Hyderpara market, siliguri.
Contact : 9709000609/9002771995.

Back to top button