নতুন বছরে ঘুরবে ভাগ্যের চাকা! খুব অল্প পুঁজিতে শুরু করুন এই দুর্দান্ত ব্যবসা, মাসে আয় হবে ৪০ হাজার

নিজস্ব প্রতিবেদন: অর্থ উপার্জনের জন্য মানুষের মনে কিন্তু ক্রমাগত ব্যবসা নিয়ে নানান ধরনের চিন্তাভাবনা উঠে আসছে। আসলে প্রত্যেকটা মানুষই কিন্তু একটা সময়ের পর চেষ্টা করেন নিজেদের একটা স্বাধীন ব্যবসা গড়ে তোলার। কিন্তু ঠিক কি ধরনের ব্যবসা শুরু করলে অল্প সময়ের মধ্যে লাভবান হওয়া যায় আর কোনরকম সমস্যাও হয় না এই নিয়ে নতুন ব্যবসায়ীদের মধ্যে কোন স্পষ্ট ধারণা নেই। এই সম্পর্কে সোশ্যাল মিডিয়ার বিভিন্ন ক্ষেত্রে আপনারা অনেক আর্টিকেল পেলেও সেখানে কিন্তু স্পষ্ট করে কিছু বলা থাকে না।

যার ফলস্বরূপ নতুন ব্যবসা শুরু করার পর অনেককেই কিন্তু চরম ক্ষতির সম্মুখীন হতে হয়।। সেই পরিস্থিতি যাতে না ঘটে এবং মানুষ একেবারে স্বাধীন আর সচ্ছলভাবে ব্যবসা শুরু করতে পারেন তার জন্যই আমরা নিয়ে চলে এসেছি আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদন। আজ আমরা একটি ইউনিক ব্যবসার আইডিয়া আপনাদের সাথে শেয়ার করে নেব। যদিও এটা ফুড প্রোডাক্টের উপরেই নির্ভরশীল। তবে মোটামুটি স্থানীয় বাজারের অন্যান্য প্রোডাক্টের তুলনায় অনেকটাই আলাদা।

সুতরাং এই ধরনের একটা ইউনিক ব্যবসা শুরু করতে পারলে আপনি যে লাভবান হবেন তাতে কোন সন্দেহ নেই। মনে রাখবেন ঠিক যতটা ইউনিক হবে আপনার ব্যবসা ঠিক ততটাই বেশি উপার্জন করতে পারবেন আপনি। এমন কিছু প্রোডাক্ট হয়ে থাকে যেগুলো ইউনিক হওয়া সত্ত্বেও চাহিদা প্রচুর বেশি হয়। আজকে আমরা তেমন একটি প্রোডাক্ট সম্পর্কে আপনাদের জানাবো যা হলো ড্রাই ফ্রুটস।

ড্রাই ফ্রুটস যেমন খেতে সুস্বাদু তেমনই দামী। আর তাই ড্রাই ফ্রুটস সংরক্ষণের ক্ষেত্রেও যত্নশীল হতে হবে। কারণ সঠিক পদ্ধতিতে সংরক্ষণ না করলেই নষ্ট হতে পারে দ্রুত। আপনারা যদি এটা নিয়ে ব্যবসার কাজ শুরু করেন সেক্ষেত্রে কিন্তু আর কখনোই ভবিষ্যৎ নিয়ে চিন্তা করতে হবে না। বাজারে এর খুব একটা দোকান দেখা যায় নাতবে যে সমস্ত দোকানে ড্রাই ফ্রুটস রাখা হয় তা কিন্তু চড়া দামে কাস্টমারকে বিক্রি করা হয়ে থাকে।

এবার আপনারা হয়তো ভাবছেন এটা নিয়ে ব্যবসা শুরু করবেন কিভাবে। ঠিক যেমনভাবেই বিভিন্ন পণ্য আপনারা পাইকারি মার্কেট থেকে সংগ্রহ করে একটা প্রফিট রেখে লোকাল মার্কেটে বিক্রি করেন। কেমন ভাবেই আপনাকে কিন্তু ড্রাই ফ্রুটস ও বিক্রি করতে হবে।

আমাদের পশ্চিমবঙ্গের বুকে বিভিন্ন জেলাতেই আপনারা বহু ড্রাই ফ্রুটস মার্কেট পেয়ে যাবেন যেখানে অত্যন্ত সুলভ মূল্যে কিন্তু এগুলো বিক্রি করা হয়। সেখান থেকে আপনারা খুব সহজেই প্রোডাক্ট কিনে নিয়ে এসে ব্যবসার কাজ শুরু করতে পারেন। একেবারে খোলা পলিথিনের মাধ্যমেও যেমন এগুলোকে বিক্রি করা যেতে পারে। তেমনভাবেই যত্ন সহকারে প্যাকেজিংয়ের মাধ্যমেও কিন্তু এগুলো আপনারা বিক্রি করতে পারবেন।

ড্রাই ফ্রুটস বলতে আমরা সাধারণত বুঝি কাঠবাদাম, কাজুবাদাম, কিসমিস, আখরোট, পেস্তা বাদাম, খেজুর প্রভৃতি সামগ্রীগুলোকে। এগুলো নিয়ে ব্যবসা শুরু করার আগে আপনাদের কিন্তু অবশ্যই কয়েকটা জিনিস মাথায় রাখতে হবে।ড্রাই ফ্রুটস কেনার সময়ই দেখে নেবেন সেটা সতেজ এবং গন্ধহীন কিনা।

প্যাকেটজাত ড্রাই ফ্রুট কিনলে তা অনেক দিন পর্যন্ত ঠিক থাকতে পারে।এয়ার টাইট কন্টেনারে রাখতে হবে ড্রাই ফ্রুটস। তাতে নষ্ট হওয়ার আশঙ্কা কম থাকে। বাতাসের আর্দ্রতায় নষ্ট হতে পারে ড্রাই ফ্রুটস। সুতরাং এই সমস্ত দিক মেনে আপনারা খুব সহজেই শুরু করে দিতে পারেন আপনাদের স্বপ্নের ব্যবসা। পরিকল্পনাটি কেমন লাগলো তা অবশ্যই কমেন্ট করে জানাতে ভুলবেন না।

Back to top button