শীতের দাপটে স্কিন খালি হয়ে যাচ্ছে ড্রাই! রোজ রাতে মাখুন ঘরোয়া পদ্ধতিতে তৈরি এই দুর্দান্ত ক্রিম, স্কিন হবে নরম ও উজ্জ্বল

নিজস্ব প্রতিবেদন: আমাদের অনেকের ত্বকেই কিন্তু নানান ধরনের সমস্যা রয়েছে। বিভিন্ন পিম্পল বা এলার্জি থেকে শুরু করে ত্বকের রুক্ষতা, ডার্ক সার্কেল প্রভৃতি একটি বিশেষ বড় দিক। সাধারণত বাজারের অনেক নামিদামি ক্রিম ব্যবহার করে এই সমস্ত সমস্যার সমাধান করার চেষ্টা করা হয়ে থাকে। তবে তাতে খুব একটা কাজ হয় না বলাই যায়। আজ আমরা আপনাদের সাথে এমন পাঁচটি টিপস শেয়ার করে নিতে চলেছি যা খুব সহজেই আপনার ত্বককে উজ্জ্বল আর চকচকে করে তুলতে সাহায্য করবে। চলুন আর বিশেষ দেরী না করে এই টিপসগুলো জেনে নেওয়া যাক।

১) ঘিয়ের ব্যবহার:
রান্নাঘরে থাকা একটা সাধারণ জিনিস হলেও এই ঘি এর মাধ্যমে কিন্তু আপনারা অনেক সমস্যার সমাধান করতে পারেন। প্রতিদিন রাতে ঘুমানোর আগে আপনারা পায়ের তলায় সামান্য পরিমাণে ঘি নিয়ে ম্যাসাজ করে নিতে পারেন।। অনেকেই হয়তো জানেন না এর ফলে রক্ত সঞ্চালন বৃদ্ধি পাওয়ার পাশাপাশি পায়ের বিভিন্ন সমস্যা দূর হয়ে যাবে। গোড়ালি ফাটা জাতীয় সমস্যা দেখা দেবে না। চাইলে আপনারা কিন্তু এটা মুখের উপরেও এপ্লাই করে দিতে পারেন। আগেকার দিনে যখন বাজারে বিভিন্ন দামি কোম্পানির ক্রিম ছিলনা তখন এই ঘি ব্যবহার করেই কিন্তু রূপচর্চা শুরু করা হতো।

২) ঘি ব্যবহার করতে না চাইলে সামান্য পরিমাণে বাদাম তেল আর মধু মিশিয়েও আপনারা একটা মিশ্রণ তৈরি করে নিতে পারেন।। তারপর ঠিক একই পদ্ধতিতে আপনাদের এই মিশ্রণটা ত্বকে লাগিয়ে কিছুক্ষণ পর জল দিয়ে মুখ ধুয়ে নিতে হবে। খেয়াল রাখবেন জল যেন উষ্ণ গরম অবস্থায় থাকে।

৩) ত্বককে উজ্জ্বল এবং ফর্সা রাখতে চাইলে আপনারা কিন্তু একটি বিশেষ দ্রবণ ও কনজিউম করতে পারেন। আমাদের প্রতিবেদনের সঙ্গে যে ভিডিওটি দেওয়া রয়েছে তার মাধ্যমে আপনারা এই দ্রবণটি সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য পেয়ে যাবেন। যে কোন অনলাইন প্লাটফর্মে মাত্র ৬৫ টাকা দামে এই পাউডার বা কনজিউম আপনারা পেয়ে যাবেন।

৪) চতুর্থ পদ্ধতিতে আমরা একটি ফেসপ্যাক এর কথা বলব যার জন্য চালের গুঁড়ো আর কাঁচা দুধ প্রথমেই ভালোভাবে মিশিয়ে নিতে হবে। এরপর দ্বিতীয় পদ্ধতিতে যে বাদাম তেল তৈরি করে রেখেছিলেন সেটাকে এর মধ্যে যোগ করে দিন। তারপর ভালোভাবে মিশিয়ে নেওয়ার পর খুব সহজেই আপনারা এই প্যাক ফেসে লাগিয়ে রাখতে পারেন। অন্ততপক্ষে ৮ ঘন্টা সময় থাকার পরে আপনাদের ভালোভাবে ঘষতে হবে এটা।। সপ্তাহে একবার করলেই কিন্তু এই পদ্ধতিতে অনেকটাই কাজ হয়ে যাবে।

৫) শীতকালে অনেকেরই কিন্তু ব্যাপক পরিমাণে ঠোট ফাটার সমস্যা দেখা যায়। এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য বিভিন্ন লোকে বিভিন্ন পদ্ধতি অবলম্বন করে থাকেন। আপনারা চাইলে সহজেই কিন্তু তার সমাধান হতে পারে। এর জন্য ঠিক ঘুমোতে যাওয়ার আগে বা দিনের যেকোনো সময়ে নাভিতে দুই ফোঁটা সরষের তেল ঢেলে নিন। যেকোনো ঠোঁট ফাটা থেকে শুরু করে সমস্যায় এই টিপস দুর্দান্ত কাজ করবে।

Back to top button