খাটিয়ায় বসে প্রেমালাপ সারতে ব্যস্ত দুটি টিয়া! খাচ্ছে আবার গালে হামি, ভিডিও দেখে মুগ্ধ নেটদুনিয়া

নিজস্ব প্রতিবেদন: সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম বর্তমান সময়ের এমন একটি প্ল্যাটফর্ম যেখানে খুব সহজেই ছোট থেকে বড় বিভিন্ন ঘটনা ভাইরাল হয়ে ওঠে। এই সমস্ত ঘটনার মধ্যে সবথেকে জনপ্রিয় হলো বিভিন্ন জীবজন্তু সম্পর্কিত দৃশ্য। আসলে সাধারণ খোলা চোখে কখনোই এই জীবজন্তুদের কাণ্ডকারখানা কিন্তু আমরা দেখতে পাই না। তাই সোশ্যাল মিডিয়ায় এই ধরনের কোন ঘটনা ভাইরাল হলেই মানুষ সেখানে হামলা পড়েন। বিগত বেশ কিছু সময় ধরেই মানুষের মধ্যে এই সোশ্যাল মিডিয়া ব্যাপক প্রভাব বিস্তার করেছে বলা যায়। শিশু থেকে বয়স্ক সকলেই এখন নেট মাধ্যমের বাসিন্দা হয়ে পড়েছেন এবং এখানেই দিনের বেশিরভাগ সময় কাটাচ্ছেন। যদিও বিশেষজ্ঞরা এটাকে সোশ্যাল মিডিয়ার প্রতি ভালোবাসা না, আসক্তি বলে উল্লেখ করেছেন।

আজকাল বিভিন্ন গণমাধ্যম যেমন টেলিভিশন রেডিও অথবা সংবাদপত্রের থেকেও দ্রুত গতিতে চলছে সোশ্যাল মিডিয়া। মুহূর্তের মধ্যেই এখানে বিশ্বের যে কোন খবর ভাইরাল হয়ে চলেছে। স্মার্টফোনের সহজলভ্যতা যেন সোশ্যাল মিডিয়াকে রীতিমতো মানুষের হাতের মুঠোয় বন্দি করে ফেলেছে। অথচ মাত্র কয়েক বছর আগেও কিন্তু এতটা প্রভাব সোশ্যাল মিডিয়ার ছিল না। আমরা কথা বলতে চলেছি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল একটি টিয়া পাখির ভিডিও নিয়ে। আমি —আপনি সকলেই কিন্তু টিয়া পাখি অত্যন্ত পছন্দ করি। অনেক বাড়িতেই এই পাখিকে পোষ্য করে রাখা হয়ে থাকে।

সম্প্রতি যে ভিডিওটি নেট মাধ্যমে উঠে এসেছে সেখানে দেখা যাচ্ছে একটি খাটিয়ায় বসে দুটি টিয়া পাখি পাশাপাশি গল্প করছে। শুধুমাত্র তাই নয় একসাথে তারা নাচ শুরু করতে করতে কিছু কথাও বলতে থাকে তাদের ভাষায়। এভাবেই একটা সময় এই টিয়া পাখির মধ্যে একজন অন্যজনের গালে হামি দিয়ে দেয়। দৃশ্যটি দেখে রীতিমতো অবাক হয়ে গিয়েছেন নেট নাগরিকরা। এই সুন্দর ভিডিওটি কমবেশি সকলেই খুব পছন্দ করেছেন। টিয়া পাখির এই প্রেমালাপের দৃশ্য দেখে অনেকেই সেই মানুষটির প্রশংসা করেছেন যিনি এটিকে ক্যামেরাবন্দি করে সকলকে দেখার সুযোগ করে দিয়েছেন সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে। যদিও এর আগে আমরা ঠিক একই ধরনের একটি টিয়া পাখির ভিডিও নেট মাধ্যমে ভাইরাল হতে দেখেছিলাম। যেখানে গাছ থেকে দুটি টিয়া পাখিকে একসঙ্গে গল্প করতে করতে পেয়ারা খেতে দেখা যাচ্ছিল।

সেই ভিডিওটি কেও কিন্তু দর্শকেরা ব্যাপক ভালোবাসা দিয়েছিলেন বলা যায়। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনটি আপনাদের যদি ভালো লেগে থাকে সে ক্ষেত্রে অবশ্যই সঙ্গে থাকা ভিডিওটি দেখে নিতে পারেন। মাত্র কয়েকদিন আগে ভাইরাল হওয়া এই ভিডিওটি এখনো পর্যন্ত প্রায় চার হাজারের কাছাকাছি মানুষ দেখেছেন এবং ব্যাপক পছন্দ করেছেন। ভিডিওটি দেখার পর নিজেদের গুরুত্বপূর্ণ মতামত আমাদের কমেন্ট বক্সে ভাগ করে নিতে ভুলবেন না। পাঠকদের উদ্দেশ্যে রইল অসংখ্য ভালবাসা আর ধন্যবাদ।।

Back to top button