মাত্র ৩ টাকার জিনিস বিক্রি করুন ২০ টাকায়! অল্প পুঁজিতে এই দুর্দান্ত ব্যবসা করলে লাভ হবে প্রচুর

নিজস্ব প্রতিবেদন: অর্থ উপার্জনের জন্য সাধারণ মানুষ আজকাল বিভিন্ন বিকল্প পদ্ধতি বেছে নিচ্ছেন যার মধ্যে অন্যতম হলো ব্যবসা। বিভিন্ন ধরনের ব্যবসা শুরু করা যেতে পারে তবে এর মধ্যে এমন কিছু উল্লেখযোগ্য জিনিস রয়েছে যেগুলো সব থেকে বেশি লাভদায়ক। বিশেষ করে আপনারা যদি একটু ইউনিক বা ক্রিয়েটিভ ধরনের ব্যবসা শুরু করতে পারেন সে ক্ষেত্রে কিন্তু বেশ সুবিধার মুখোমুখি পড়বেন।

ঠিক যেমন আপনাদের আজ এমন একটি ব্যবসার আইডিয়া দিতে চলেছি যেখানে প্রায় ৩ টাকা পর্যন্ত আপনার পণ্য তৈরিতে খরচ পড়বে এবং সেটা আপনারা গ্রাহকদের দিয়ে ২০ থেকে ২৫ টাকা পর্যন্ত উপার্জন করতে পারবেন।। নিশ্চয়ই আপনার মনেও এই ব্যবসা সম্পর্কে প্রশ্ন এসেছে। তাহলে প্রতিবেদনটি অবশ্যই শেষ পর্যন্ত পড়ুন সে ক্ষেত্রে আপনার সমস্ত প্রশ্নের উত্তর আপনারা পেয়ে যাবেন। আজ আমরা বলব লন্ড্রির ব্যবসার কথা। তবে এটা যে কোন সাধারণ লন্ড্রির ব্যবসার মতন কিন্তু একেবারেই নয়। এই ব্যবসা বহু ধরনের পদ্ধতির উপর নির্ভর করে আপনাদের তৈরি করতে হবে।

লন্ড্রির ব্যবসা:

স্থানীয় এলাকার মধ্যে এই ব্যবসা কিন্তু ভীষণভাবে জনপ্রিয়। তবে এই লন্ড্রির ব্যবসা আপনাকে একটু আলাদাভাবে শুরু করতে হবে। একদম সাধারন ভাবে জামা কাপড় কাচার মধ্যে যদি এটাকে আপনারা সীমাবদ্ধ রাখেন তাহলে কিন্তু এগোতে পারবেন না। এই ব্যবসা শুরু করার জন্য আপনাদের দুটি মেশিন প্রয়োজন হবে। তার জন্য খুব বড় জল ৫০০০০ টাকা পর্যন্ত বিনিয়োগ করতে হবে।

এছাড়া প্রয়োজন হবে একটি নিজস্ব দোকান বা রেন্টের জায়গা। যাতে মেসিন বসাতে কোন সমস্যা না হয়। এর মধ্যে প্রথমেই যে মেশিনটি আপনাদের প্রয়োজন হবে সেটা হলো একটা ওয়াশিং মেশিন। অবশ্যই কিন্তু ফুললি অটোমেটিক মেশিন নেবেন। বাজারে এই ধরনের মেশিনের দাম পড়বে প্রায় ৩০ থেকে ৩৫ হাজার টাকা। ব্যবসার পরিসর বড় হলে আপনারা কিন্তু আরও দামি মেশিনও নিতে পারেন।

যাইহোক দ্বিতীয় ধাপে এবার যে অন্য মেশিনটি আপনাদের নিতে হবে সেটা হল আয়রন এন্ড ফোল্ড মেশিন। জামাকাপড় ভালোভাবে কাচার পর খুব সহজেই এই মেশিনের সাহায্যে আপনারা ইস্ত্রি করে সেগুলোকে ভাজ অর্থাৎ ফোল্ড করে নিতে পারবেন। পুরো ব্যাপারটাই কিন্তু অটোমেটিক অর্থাৎ আপনার হাতের কোন কেরামতি থাকবে না। যেহেতু অটোমেটিক তাই বিশেষ কোনো কাজও আপনাকে করতে হবে না। শুধুমাত্র মেশিনে জামা কাপড় গুলো দিয়ে দেওয়া ছাড়া খাটাখাটনির প্রয়োজন নেই তাই শ্রমিক প্রয়োজন নেই।।

মোটামুটি যদি আপনাদের প্রতি জামা কাপড়ের উপর তিন টাকা করে খরচ পড়ে সেক্ষেত্রে কিন্তু প্রায় ২০ টাকা পর্যন্ত আপনারা লাভ করতে পারবেন। যদি আপনি ব্যবসাটি শুরু করতে আগ্রহী থাকেন সেক্ষেত্রে একদম সময় নষ্ট না করে দ্রুত মেশিন কিনে কাজ শুরু করে ফেলুন। এই মেশিন গুলো খুব সহজেই দোকানে আপনারা পেয়ে যাবেন তাই আলাদা করে জায়গা উল্লেখ করার প্রয়োজন নেই। আপনারা চাইলে অনলাইন মাধ্যমেও কিন্তু মেশিনগুলো অর্ডার করতে পারেন। আমাজন এবং flipkart এর মতন জায়গায় এগুলো খুব সহজেই বিক্রি হয়ে থাকে। মোটামুটি সুলভ দামের মধ্যে পেয়ে যাবেন। আজকের এই ব্যবসার আইডিয়া আপনাদের কেমন লাগলো তা অবশ্যই একটি কমেন্ট করে জানাতে ভুলবেন না।

Back to top button