মেয়ের জন্য জমা করুন ২৫০ টাকা করে আর এককালীন পেয়ে যান কয়েক লাখ টাকা, রইলো বিস্তারিত!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- সমাজ গঠনে ক্ষেত্রে একটা ছেলে বা পুরুষের যতখানি অবদান থাকে একটা মেয়ে বা মহিলার অবদান ঠিক ততখানি। এ কথা হয়তো আমরা অনেকেই মানতে চায় না । কিন্তু এমনটা অস্বীকার করার কোন জায়গা নেই । তবুও বর্তমান প্রজন্মের দাঁড়িয়ে আমরা কু-সং-স্কারে আচ্ছন্ন হয়ে রয়েছি । আমরা এমনটা মনে করি যে কোন পরিবারে জন্মগ্রহণ করা মানে সেই পরিবারের আরও একটি দায়িত্ববোধ বেড়ে যাওয়া । সেই মেয়েকে বিয়ে দেওয়া তার পড়াশোনার খরচ ইত্যাদিতে রীতিমত হাফিয়ে ওঠে বাড়ির অভিভাবকরা । তবে এবার আর তাদের চিন্তা করার কোনো কারণ নেই ।

কারণ আপনি যদি আপনার মেয়ের জন্য সামান্য পরিমাণ টাকা জমা রাখেন তাহলে কয়েক বছরের মধ্যে সেটা সুদ সমেত কয়েক লক্ষ টাকায় পরিণত হবে যা তার ভবিষ্যৎ তৈরি করতে কাজে লাগবে । এমন এক ধরনের নতুন প্রকল্প নিয়ে এসেছে কেন্দ্রীয় সরকার । এবার আর বাড়ির মেয়ের পড়াশোনার জন্য খরচ করা পড়াশোনার খরচ হওয়া টাকা পয়সার জন্যে ভাবতে হবেনা । কারণ এই প্রকল্পের আওতায় এনে আপনি মেয়ের পড়াশোনার খরচ সুন্দরভাবে চালিয়ে নিতে পারবেন । এই প্রকল্পের নাম সুকন্যা সমৃদ্ধি প্রকল্প । মূলত পোস্ট অফিসে এ ধরনের প্রকল্প চালু হয়েছে ।

ভারতবর্ষে যে কোন জায়গাতে আপনি এইধরনের প্রকল্পের সুবিধা পেতে পারেন । এ প্রকল্পের আওতায় বেশ কিছু শর্ত দেওয়া আছে যেগু-লি আপনাকে মেনে নিতে হবে । তাহলে এককালীন টাকা পাবেন আপনি নির্দিষ্ট সময় পর ।যেটার মাধ্যমে আপনি আপনার মেয়ের পড়াশোনা চালাতে পারবেন আসুন জেনে নেই কিভাবে । এই প্রকল্পের শর্তসাপেক্ষে বলা হচ্ছে যে ১০ বছরের নিচে মেয়েদের জন্য এই প্রকল্পটি চালু করা হয়েছে। এবং সেই মেয়ের বয়স যখন ২১ বছর হয়ে যাবে তখন এতগুলো বছর ধরে জমানো টাকা সুদ সমেত তুলতে পারবেন একসাথে ।

তার আগে কখনোই তুলতে পারবেন না । তার পাশাপাশি আপনারা জানলে অবাক হবেন যে এই টাকাতে সরকার কোন কর নিচ্ছে না অর্থাৎ এটা কর হীন।  মাত্র ২৫০ টাকা দিয়ে আপনি এই প্রকল্প শুরু করতে পারেন। এর পাশাপাশি এই প্রকল্পে তো আরও জানানো হয়েছে যে যদি কোন মেয়ে ১৮ বছর বয়সের পর বিয়ে হয়ে যায় তাহলে তিনি পুরো টাকাটা তুলে নিতে পারবেন এবং ১৮ বছর হয়ে গেলে ৫০% টাকা তোলা যাবে বলে জানা যাচ্ছে ।

এই স্কিমটি করবার জন্য আপনার যে যে কাগজপত্র প্রয়োজন পরবে সেগু-লি একবার জেনে নিন। পোস্ট অফিস বা ব্যাংকে আপনার মেয়ের জন্ম পরিচয় পত্র জমা করতে হবে। যার মাধ্যমে প্রমাণ হবে যে আপনার মেয়ের বয়স ১০ বছরের কম।এছাড়াও বাচ্চা ও বাচ্চার মাতা- পিতার পরিচয় পত্র যেমন আধার কার্ড, রেশন কার্ড, ড্রাইভিং লাইসেন্স,পাসপোর্ট প্রভৃতি জমা করাতে হবে সাথে ঠিকানার প্রমাণপত্র জমা করাতে হবে। একটা বাচ্চার জন্য একটাই অ্যাকাউন্ট খোলা যাবে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button