দারুণ কার্যকর এই পদ্ধতিগুলি ব্যবহার করে বাড়ির বিদ্যুৎ বিল কমিয়ে আনুন 50% পর্যন্ত! রইল বিস্তারিত।

নিজস্ব প্রতিবেদন :- যত মানুষ উন্নত প্রযুক্তিকে গ্রহণ করছে ততই পাল্লা দিয়ে বাড়ছে দৈনন্দিন খরচ।বর্তমানে আমরা সমস্ত রকম উন্নত ইলেকট্রনিক জিনিস ব্যাবহার করে দৈনন্দিন কাজকর্মের মানকে আরো সহজ করে তুলেছি।প্রতিনিয়ত ইলেকট্রনিক জিনিস ব্যবহারের ফলে রোজ পাল্লা দিয়ে বাড়ছে ইলেকট্রিকের বিল।কিন্তু সহজ কিছু পদ্ধতি প্রয়োগ করলেই বিদ্যুতের বিল কমানো সম্ভব হয়।যা হয়তো আমরা অনেকেই জানিনা।আসুন আজ জেনে নেওয়া যাক কিভাবে বিদ্যুতের বিল কমানো যায় ।

১. রিমোট চালিত বৈদ্যুতিক জিনিস যেমন – টিভি, এসি ইত্যাদি ব্যবহার না করলে সুইচ থেকে বন্ধ করে বিদ্যুত চলাচল ছিন্ন করতে হবে।কারণ রিমোট থেকে বন্ধ করলে সেগুলি স্ট্যান্ড বাই মোডে চলে যায়,যার ফলে তখন এই যন্ত্রগুলি ৫% মত পাওয়ার কনজিউম করে।

২.অনেকে সময়েই আমরা অর্থের দিকে বিবেচনা করে কম টাকার ইলেকট্রনিক জিনিস কিনে থাকি,যা করা একদমই উচিত নয়।ইলেকট্রনিক জিনিস কেনার সময় সব সময়ই একটু দামী ও ভালো প্রোডাক্ট কেনা উচিত।কারণ ফাইভ স্টার রেটিং প্রোডাক্ট কম বিদ্যুৎ খরচ করে।

৩. বাড়িতে পুরনো ফিলামেন্ট যুক্ত বাল্ব থাকলে সত্তর সেটিকে পরিবর্তন করে কম্প্যাক্ট ফ্লুরোসেন্ট বাল্ব ব্যবহার করতে হবে।বাড়িতে পুরনো টিউব লাইট থাকলেও অতি দ্রুত আধুনিক টিউবলাইট লাগিয়ে ফেলতে হবে।

৪. রেফরিজারেটর ব্যবহার করার সময় মাথায় রাখতে হবে খুব বেশি সময় যেনো ফ্রিজের দরজা খোলা না থাকে। গরম খাবার কিছুটা ঠান্ডা করার পর ফ্রিজে রাখতে হবে এবং বরফ বানানোর কম্পার্টমেন্ট ডিপ ফ্রিজের সুইচ নিয়মিত ব্যবহার করতে হবে।

৫. 18 ডিগ্রী তাপমাত্রায় এসি চালানোর তুলনায় 24 থেকে 25 ডিগ্রিতে এসি চালালে অনেক কম বিদ্যুৎ খরচ হবে। তাই সবসময় চেষ্টা করতে হবে এই তাপমাত্রা যেন 24 থেকে 25 ডিগ্রিতে রাখা হয়।অর্থাৎ সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ যে বিষয়টি আমাদের খেয়াল রাখতে হবে তা হলো সমস্ত আধুনিক ও উন্নত প্রযুক্তির ইলেকট্রনিক জিনিস বাড়িতে ব্যবহার করতে হবে,

পুরনো ইলেকট্রিক জিনিস বেশি বিদ্যুৎ খরচ করে। তাই যত তাড়াতাড়ি সম্ভব পুরনো ইলেকট্রনিক জিনিস পরিবর্তন করে নতুন ইলেকট্রনিক জিনিস ব্যবহার শুরু করতে হবে। এই কয়েকটি জিনিস ভালোভাবে মেনে চললেই বিদ্যুতের কিছুটা হলেও নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হবে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button