‘চেহারার জন্য অনেকবার অপমানিত হয়েছি, সকলের নানা অ’প’মান সহ্য করে আজ আমি সেরা হয়েছি’,- বললেন সুমিত গাঙ্গুলী, ভাইরাল ভিডিও!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- আমরা নিজেদের মনোরঞ্জনের জন্য সিনেমা দেখে থাকি । তার পাশাপাশি নিজেদের ক্লা-ন্তি দূর করতে মাঝেমধ্যে সিনেমা দ্বারস্থ হয় ।এবং এই কথা আমরা প্রত্যেকে জানি যে একটা সিনেমা আমরা দেখতে চাই শুধুমাত্র হিরো হিরোইন কে দেখে । অর্থাৎ আমাদের পছন্দের অভিনেত্রী বা অভিনেতা যদি সেই সিনেমাতে অভিনয় করে তাহলে কিন্তু আমরা অতি অবশ্যই সেটা দেখতে চাই । কিন্তু আপনাদের এটাও জানা রাখা দরকার যে একটা সিনেমা সাফল্য হয় শুধুমাত্র হিরো-হিরোইন এর মাধ্যমে নয় । তার পাশাপাশি থাকা সমস্ত চরিত্রের সমান অবদান থেকে থাকে ।

বিশেষ করে অবদান থেকে থাকে খ-ল নায়ক বা ভি-লেনের চরিত্রে অভিনয় যারা করে । ঠিক তেমনি টলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে সবথেকে জনপ্রিয় ভয়ঙ্কর খ-লনায়ক হলেন সুমিত গাঙ্গুলী । সুমিত গাঙ্গুলী ছোটবেলা থেকেই ইচ্ছে ছিল অভিনেতা হওয়ার এমনকি ৬ বছর বয়স থেকে তিনি থিয়েটার এর সাথে যুক্ত ছিলেন । একসময় তার স্কুলের শিক্ষিকা জিজ্ঞেস করেছিলেন যে বড় হয়ে তুমি কি হতে চান । তার উত্তরে তিনি জানিয়েছিলেন যে অভিনেতা হতে চান ।

তখন ক্লাসের সবাই অবাক হয়েছিল এবং হাততালি দিয়েছিল । পরিচালকদের দরজায় দরজায় ঘুরে বেরিয়ে ছিলেন তিনি শুধুমাত্র হিরো হবার স্বপ্ন নিয়ে । কিন্তু তখন পরিচালকরা তাকে বলেছিল যে নিজের মুখে একবার আয়নায় দেখে আসতে । এই চেহারা নিয়ে হিরো হওয়া যায় না । কিন্তু তিনি হাল ছাড়েননি ।।অবশেষে ১৯৯৫ সালের চিরঞ্জিত চক্রবর্তী অভিনীত ‘কেঁচো খুঁড়তে কেউটে’ সিনেমা মাধ্যমে তার পতন ঘটে একজন খ-লনায়ক হিসেবে।  সুমিত গাঙ্গুলী এত নিখুত অভিনয় দক্ষতা রপ্ত করেছে যে বিভিন্ন ক্লোসিং গু-লি তিনি নায়িকাদের শরীর স্পর্শ না করে করে নিতে পারেন ।

তার পাশাপাশি তাঁর অভিনীত সবথেকে জনপ্রিয় একটি সিনেমা হলে ‘ঘাতক’ । যেখানে বিন্দু মাসির হয়ে কাজ করতে দেখা যায় এই সুমিত গাঙ্গুলীকে । তবে তার চোখের এবং চেহারার ভঙ্গিমা দেখে অনেক বাচ্চা ছেলে মেয়েরা রীতিমত ভ-য় পেয়ে যায়। কখনো কখনো কাউকে আবার ইচ্ছাকৃতভাবে ভ-য় দে-খানোর জন্য সুমিত গাঙ্গুলির নাম করা হয় । তবে ধারাবাহিক জগতে তিনি বি-রোধিতা করেন । কারণ তিনি মনে করেন ধারাবাহিক গু-লি জন্যই মানুষ এখন সিনেমা দেখতে আসে না । এখন তিনি চিত্র পরিচালনার কাজে নিযুক্ত হয়েছেন ।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button