বাড়ির ছাদে বা উঠোনে এই সহজ গোপন ট্রিকসে লাগান আম গাছ, কয়েকদিনের মধ্যেই ছোট্ট গাছে ভরবে মুকুল

নিজস্ব প্রতিবেদন: আমাদের পছন্দের ফলের তালিকায় একেবারে সবার প্রথমেই রয়েছে আম। কাঁচা আম দিয়ে যেমন চাটনি থেকে শুরু করে আরো নানান ধরনের রেসিপি তৈরি করা যেতে পারে ঠিক তেমনভাবেই পাকা আম খেতেও কিন্তু খুবই সুস্বাদু লাগে। বাড়িতে অতিথি এলেও কিন্তু দেখবেন আম পরিবেশন করা হয়। নুন আর মসলা দিয়ে কাঁচা আম যদি আপনি কখনো খেয়ে দেখেন তাহলে বুঝতে পারবেন যে এটি কতটা সুস্বাদু আর অমৃত।

সাধারণত আমরা বেশিরভাগ ক্ষেত্রে বাজার থেকেই আম কিনে নিয়ে এসে খেয়ে থাকি। তবে আজকাল কিন্তু অনেকেই বাড়িতে চাষাবাদ করছেন।। কি কি ভাবে পরিচর্যা করলে বাড়িতেও খুব সহজে আমের ফলন হতে পারে আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আপনাদের সাথে সেটাই শেয়ার করে নেব। চলুন তাহলে দেরি না করে আমাদের আজকের এই প্রতিবেদনটি শুরু করা যাক।

প্রথমেই জেনে নেব আম গাছ থেকে কিভাবে আপনারা আমের চাষ করতে পারেন। একটা পরিণত আম নিয়ে নিন। তারপর এর গোড়ার অংশে কিছুটা ডাল কেটে তার মধ্যে টুথপেস্ট এবং পেঁয়াজ কেটে তার রস লাগিয়ে নিন। এবার আপনাকে একটা টব নিয়ে সেটাকে বালি দিয়ে পরিপূর্ণ করতে হবে।বালির সাথে আপনারা নারকেলের ছোবড়া এবং শিকড় উদ্দীপনার পাউডার ভালোভাবে মিশিয়ে নেবেন। এবার একটা পেঁয়াজ নিয়ে সেটাকে টুকরো টুকরো করেও মাটিতে মিশিয়ে ফেলুন। যে আমটি নিয়েছিলেন তার গোড়ার অংশ এই মাটিতে পুতে প্লাস্টিক দিয়ে কভার করে দেবেন। তবে তার আগে অবশ্যই ভালো করে জল দিয়ে ভিজিয়ে নিতে ভুলবেন না। এবার আপনাকে মোটামুটি চল্লিশ দিন পর্যন্ত সময় অপেক্ষা করতে হবে।

নির্ধারিত সময়ের পর প্লাস্টিকের কভার তুললে আপনারা সেই আমের গোড়ার অংশ দিয়ে মূল এবং শিকড় সহ একটি ডালপালা যুক্ত কান্ড বা চারা গাছ দেখতে পাবেন। প্রথমেই এটাকে ভালোভাবে পরিষ্কার করে নিতে হবে এবং তারপর করতে হবে রোপণের ব্যবস্থা। প্রতিস্থাপন করার জন্য একটা টবের মধ্যে কিছুটা পরিমাণ অর্গানিক মাটি নিয়ে নিন।তার মধ্যে ধীরে ধীরে অ্যালোভেরা পাতা, কলা গাছের কান্ড, যে কোনও গাছের পাতা, পেঁয়াজ কুচি, ওই মূল যুক্ত আমের উপরের অংশ কেটে ভাল করে কুচি কুচি করে একসঙ্গে মাটিতে মিশিয়ে নিন।

এবার গোবর আর পচা ভাত মিশিয়ে দেবেন। তারপর এই চারাগাছ বা কান্ডটিকে আপনাদের এখানে পুঁতে দিতে হবে। সম্পূর্ণ কাজটি খুব যত্ন সহকারে আর সাবধানে করবেন। কিছুদিনের মধ্যেই গাছটি বড় হতে শুরু করবে। সঠিক সময়ে জল আর ফার্টিলাইজার প্রয়োগ করতে কিন্তু ভুলবেন না। গাছ পরিণত হয়ে গেলেই এতে ফলন ধরতে শুরু করবে । যদি সঠিকভাবে সার দিতে পারেন তাহলে কিন্তু ফলনের পরিমাণটাও নজরকারা হবে।।

Back to top button