মধ্যবিত্তদের জন্য একদম পারফেক্ট! খুবই অল্প পুঁজিতে শুরু করুন এই ৫টি দুর্দান্ত ব্যবসা, লাভ হবে ধারণার বাইরে

নিজস্ব প্রতিবেদন: ব্যবসা অনেক ধরনের হয়ে থাকে তবে সাধারন মানুষের কাছে সবথেকে জনপ্রিয় হলো একেবারে স্বল্প মূলধনে চালু হওয়া স্টার্টআপ বিজনেস। এগুলোকে অনেকটা সমস্যার সমাধান হিসেবেও ব্যবসা হিসেবে বলা যেতে পারে। এই ধরনের কিছু ব্যবসা যদি আপনারা শুরু করতে পারেন তাহলে কখনোই ভবিষ্যৎ নিয়ে চিন্তা করতে হবে না। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা তাই আপনাদের সাথে এমন পাঁচটি ব্যবসার আইডিয়া শেয়ার করে নেব যা কোটিপতি বানাবে। চলুন তাহলে সময় নষ্ট না করে আজকের এই প্রতিবেদনটি শুরু করা যাক।

১) জব রিলেটেড ব্যবসা:
আপনারা কিন্তু জব রিলেটেড ব্যবসার জন্য কোন এপ্লিকেশন সফটওয়্যার বা প্লাটফর্ম চালু করতে পারেন যেখানে বিভিন্ন চাকরি প্রার্থীরা নিজেদের ভিডিওর মাধ্যমে সম্পূর্ণ তথ্য জানাবেন। যেকোনো অনলাইন সাইট অথবা ইউটিউব এ চেক করলে এই ধরনের প্লাটফর্ম বানানোর পদ্ধতি আপনারা জেনে নিতে পারবেন। এই ব্যবসার আইডিয়া কিন্তু আপনাদের অল্প সময়ের মধ্যেই প্রতিষ্ঠিত হতে সাহায্য করবে কারণ আমাদের দেশের বাজারে চাকরি প্রার্থী যুবক-যুবতীর সংখ্যার অভাব নেই।

২) ফেসবুক এবং ইউটিউবের বাইরে কোন একটি পজিটিভ প্লাটফর্ম তৈরি করতে পারেন যেখানে বিভিন্ন ধরনের কনটেন্ট থাকবে যা পজিটিভিটি এনে দেবে। এখনকার সময়ে সোশ্যাল মিডিয়া খুললেই আপনারা কিন্তু বিভিন্ন নেগেটিভ কন্টেন্ট সবথেকে বেশি দেখতে পাবেন। তবে আপনারা যদি এই সমস্ত জিনিসের বাইরে নিজেদের ছেলে মেয়ে অথবা অন্যান্যদের রাখতে চান সেক্ষেত্রে এই প্লাটফর্ম টা কিন্তু বেশ জনপ্রিয়তা অর্জন করতে পারে। যেহেতু সোশ্যাল মিডিয়ার ব্যবহারকারীর সংখ্যার অভাব নেই তাই এই প্লাটফর্ম অল্প সময়ের মধ্যেই প্রতিষ্ঠা লাভ করবে।

৩) এবার আমরা যে তৃতীয় ব্যবসার আইডিয়াটি আপনাদের সাথে শেয়ার করে নেব সেটা কিন্তু ভীষণ রকমের ইউনিক ব্যবসার আইডিয়া। মোটামুটি দেশ থেকে শুরু করে বিদেশের সব জায়গাতেই এখন ট্যাটুর প্রতি ভালবাসা মানুষের লক্ষ্য করা যায়। খেলোয়াড় থেকে শুরু করে অনেক শিল্পীরাই কিন্তু ট্যাটু করাতে অত্যন্ত পছন্দ করে থাকেন। আপনারা কিন্তু এই ট্যাটুর ডিজাইন প্রোভাইড করার ব্যবসা শুরু করতে পারেন।

ক্যানভা থেকে শুরু করে অনেক এপ্লিকেশনের সাহায্যে আপনারা এই ডিজাইনগুলো তৈরি করে ওয়েবসাইটের মাধ্যমে মানুষকে দিয়ে সাহায্য করতে পারেন। এই ব্যবসা এতটাই লাভদায়ক যা আপনাকে অর্থ উপার্জনের জন্য কখনোই চিন্তা করতে হবে না। বিশেষ কোন বড় অংকের মূলধনের সাহায্য ছাড়াই আপনারা কিন্তু এই ব্যবসা শুরু করতে পারবেন।

৪) স্টাট আপ বিজনেস এর জন্য নিউজ পোর্টালের ব্যবসা করেও কিন্তু আপনারা অর্থ উপার্জন করতে পারেন। এই ব্যবসাটি খুব অদ্ভুত শোনালেও বর্তমান সময়ে এটি কিন্তু আপনাদের জন্য একটা লাভবান ক্ষেত্র হিসেবে জায়গা করতে পারে।অনেকেই সোশ্যাল মিডিয়া থেকে শুরু করে ইউটিউবের মতন প্লাটফর্ম গুলোতে বিভিন্ন ব্যবসার আইডিয়া সম্পর্কে খোঁজ করে থাকেন। তাই এই ব্যবসা আপনাদের জন্য যে লাভবান হবে তাতে কোন সন্দেহ নেই। এখানে google add এবং অন্যান্য বিভিন্ন সাহায্যে আপনারা অর্থ উপার্জন করতে পারবেন।

৫) আমাদের প্রতিবেদনের সব শেষে যে ব্যবসার আইডিয়াটি আপনাদের সাথে শেয়ার করে নেব সেটা হল ক্রেডিট কার্ড থেকে টাকা তোলার একটা প্লাটফর্ম। বহু মানুষ আজকাল কিন্তু এই কাজের সাথে যুক্ত হয়েছেন। এক্ষেত্রে আপনি কিন্তু সরাসরি যুক্ত থাকবেন না শুধুমাত্র একটা মাধ্যম হিসেবে ব্যাংক আর ব্যক্তির মধ্যে কাজ করবেন।। পুরোটাই হবে আপনার কমিশন ভিত্তিক উপার্জন।। এই শেষের আইডিয়াটা আপনাদের কেমন লাগলো তা অবশ্যই একটা কমেন্ট করে জানাতে ভুলবেন না।

Back to top button