নিরামিষের দিনে কম সময়ে ঝটপট এই সহজ উপায়ে বানিয়ে ফেলুন পনির রেজালা, খাবেন চেটেপুটে!

নিজস্ব প্রতিবেদন: পনির খেতে ভালোবাসেন না এরকম মানুষ হয়তো খুঁজে পাওয়া যাবে না। কমবেশি পনির দিয়ে কিন্তু নানান ধরনের রেসিপি আপনারা এর আগেও তৈরি করে খেয়েছেন। তবে সবসময় তো এক ধরনের রেসিপি খেতে একেবারেই ভালো লাগেনা। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা তাই আপনাদের সাথে পনিরের তৈরি রেজালার রেসিপি শেয়ার করে নিতে চলেছি।

খুব সহজেই কিন্তু অল্প সময়ের মধ্যে এই রেসিপিটা আপনারা বানিয়ে নিতে পারবেন। সম্পূর্ণ নিরামিষ এই রেসিপি আপনারা পুজোর দিনে যেকোনো নিরামিষ খাবারের সাথে খেতে পারবেন অথবা খাওয়াতে পারবেন। চলুন তাহলে আর সময় নষ্ট না করে আমাদের আজকের এই প্রতিবেদনটি শুরু করা যাক এবং জেনে নেওয়া যাক পনিরের রেজালার রেসিপি।

পনিরের রেজালা তৈরির উপায়:

১) পনির রেজালা তৈরি করার জন্য আপনাদের প্রথমেই ৫০০ গ্রাম পরিমাণ পনির নিয়ে নিতে হবে। পনির একটু লম্বা টুকরো করে আপনাদের প্রথমেই কেটে নিতে হবে। এবার পনির ভাজার জন্য আপনাদের কড়াইতে ২ টেবিল চামচ পরিমাণ সাদা তেল নিয়ে নিতে হবে। তেল গরম হয়ে গেলে একটা একটা করে পনিরের টুকরো কড়াইতে দিয়ে হালকা করে ভেজে নিন।

কিন্তু খুব বেশি ভাজবেন না তাহলে এটা শক্ত হয়ে যেতে পারে। ওদিকে একটি কেটলিতে আপনারা কিছুটা পরিমাণ গরম জল তৈরি করে রাখুন। জলের মধ্যে কিছুটা লবণ মিশিয়ে রাখুন। ভাজা হয়ে গেলে কিছুক্ষণ এই লবণ জলের মধ্যে আপনাদের পনির ডুবিয়ে রাখতে হবে। এতে পনির গুলি যেমন সফট থাকবে ঠিক তেমনভাবেই কিন্তু এর মধ্যে লবণ ভালোভাবে ঢুকে যাবে।

২)এবার আপনাদের একটা মসলা তৈরি করে নিতে হবে। তার জন্য গ্রাইন্ডিং জারের মধ্যে আপনাদের নিয়ে নিতে হবে ২ টেবিল চামচ পোস্ত, ২ টেবিল চামচ পরিমাণে টুকরো কাজু। এবার প্রথমে এটাকে শুকনো গুড়ো করে নিন জল দেওয়ার প্রয়োজন নেই। প্রসঙ্গত এর সঙ্গে আপনাদের এক চিমটে জাফরান যোগ করে দিতে হবে। শুকনো গুঁড়ো করে নেওয়ার পর এতে কিসমিস, ঝালের পরিমাণ অনুযায়ী কাঁচা লঙ্কা মিশিয়ে সামান্য জল দিয়ে একটা পেস্ট তৈরি করে নিতে হবে।

এবার কড়াইতে আরও এক চামচ পরিমাণে ঘি দিয়ে ওই তেলের সঙ্গে মিশিয়ে নিন। তেল আর ঘি ভালোভাবে গরম হয়ে গেলে আপনাদেরকে গোটা গরম মসলা ফোড়ন হিসেবে দিয়ে দিতে হবে। শুকনো গরম মসলা হিসেবে আপনাদের দিতে হবে এক টুকরো দারচিনি, একটি জয়ত্রী ফুল, দুইটো ছোট এলাচ,চার থেকে পাঁচটা গোটা গোলমরিচ, অল্প একটি সাহী জিরা এবং কয়েকটি লবঙ্গ।

এবার এটাকে শিলনোড়ার সাহায্যে হালকা গুঁড়ো করে নিন। এবার গরম তেল আর ঘি এর মধ্যে কড়াইতে যে গোটা গরম মশলা টা থেঁতো করে নিলেন সেটাকে দিয়ে দিতে হবে। ১০ সেকেন্ড সময় পর্যন্ত ভেজে নিন। যখন মসলা থেকে খুব সুন্দর গন্ধ বেরোবে তখন আপনারা যে পেস্ট তৈরি করে রেখেছিলেন সেটাকে এখানে দিয়ে দিতে হবে।

৩) এই সময়ে আপনাদের গ্যাসের ফ্লেম অবশ্যই একেবারে লো তে রাখতে হবে। গ্ৰাইন্ডিং জলের মধ্যেই আপনারা একটু জল মিশিয়ে এতে মসলা ধোয়া জল টাও দিয়ে দেবেন। মসলা কষানোর সময় আপনাদের দিয়ে দিতে হবে আন্দাজ মতন বিরিয়ানি মসলা। হাফ চামচ পরিমাণ বিরিয়ানি মসলা এবং এক চতুর্থাংশ পরিমাণ কাশ্মীরি লঙ্কার গুঁড়ো ব্যবহার করতে হবে। কাশ্মীরি লঙ্কার গুঁড়ো দিলে কিন্তু রং দারুন হবে।

প্রসঙ্গত যদি আপনি রান্নার শুরুতেই জাফরান না ব্যবহার করে থাকেন সেক্ষেত্রে সামান্য হলুদ গুঁড়ো ব্যবহার করতে পারেন। এবার মসলা থেকে হালকা তেল ছাড়তে শুরু করে দিলে পনির যে লবণ জলের মধ্যে আপনারা ডুবিয়ে রেখেছিলেন সেখান থেকে কিছুটা লবণ জল এখানে দিতে হবে। এবার একটা বাটিতে মোটামুটি পঁচিশ গ্রাম পরিমাণ টক দই আপনাদের ফেটিয়ে নিতে হবে।

অবশ্যই খেয়াল রাখবেন টক দই যেন নরমাল টেম্পারেচারে থাকে। এরপর কষানো মসলার মধ্যে আপনাদের এই টক দই দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নিতে হবে। এবারে স্বাদ মতন লবণ যোগ করে দিন। কিছুক্ষণ নাড়াচাড়া করে পনির গুলোকে এর মধ্যে যোগ করে কিছুক্ষণ রান্না করে নিন। সবশেষে এক টেবিল চামচ গোলাপজল ছড়িয়ে নিয়ে রান্নাটিকে নামিয়ে নিতে পারেন। রুটি বা পরোটা থেকে শুরু করে ভাতের সাথেও কিন্তু আপনারা পনিরের রেজালার এই রেসিপি পরিবেশন করতে পারবেন।

Back to top button