লাগবে না কোনো ইনভেস্ট! খুব সহজেই শুরু করুন এই ৫টি ব্যবসা, অল্পদিনেই লাভ হবে প্রচুর

নিজস্ব প্রতিবেদন: বর্তমান সময়ে মানুষের অর্থ উপার্জনের হাতিয়ার হিসেবে একেবারে সবার প্রথমেই রয়েছে বিভিন্ন ব্যবসা। বিশেষ করে লকডাউনের পর থেকেই যখন দেশের আর্থিক পরিস্থিতি অনেকটা দুর্বল হয়ে পড়েছে তখন অনেকে ব্যবসার কাজ শুরু করেছেন। আজ আমরা এই প্রতিবেদনের মাধ্যমে আপনাদের সাথে পাঁচটা ব্যবসার আইডিয়া শেয়ার করে নেব। নিজেদের সুবিধামতো গ্রাম শহর নির্বিশেষে আপনারা এই ব্যবসা কিন্তু শুরু করতে পারেন।। মোটামুটি কেমন কি পুঁজি লাগবে এবং ব্যবসা গুলি করার জন্য কি প্রয়োজন হবে সে সম্পর্কে প্রতিবেদনের অভ্যন্তরেই আলোচনা করা হবে। চলুন তাহলে দেরি না করে শুরু করা যাক।

১) তেলেভাজার ব্যবসা:

গ্রাম সহ নির্বিশেষে সকল জায়গাতেই কিন্তু এই ব্যবসা ভীষণ রকম ভাবে জনপ্রিয়। বহু মানুষ এই ব্যবসার সাথে যুক্ত রয়েছেন। একটা নির্দিষ্ট জায়গায় অথবা নিজের বাড়ির মধ্যেই আপনারা খুব সহজে তেলে ভাজার ব্যবসা শুরু করতে পারেন। এই ব্যবসাতে কিন্তু দৈনন্দিন হিসেবে প্রায় ৩০০ থেকে ৪০০ টাকা পর্যন্ত খুব সহজেই প্রফিট সংগ্রহ করা যেতে পারে। এই ব্যবসা করার জন্য কিন্তু সারাদিন বসে থাকার প্রয়োজন নেই। সকাল এবং বিকেলের নির্দিষ্ট সময় ধরেই আপনারা কিন্তু এই ব্যবসা করতে পারেন।।

২) জল সাপ্লাইয়ের ব্যবসা :

গ্রামাঞ্চলের দিকে এই ব্যবসা ভীষণভাবে জনপ্রিয়। খুব সহজেই কিন্তু প্রতি বোতল বা ক্যান হিসেবে আপনারা এই জল সাপ্লাইয়ের ব্যবসা করে উপার্জন করতে পারেন। এই ব্যবসাটি শুরু করার জন্য কিন্তু আপনার কোন রকম ইনভেসমেন্ট অর্থাৎ বিনিয়োগের প্রয়োজন পড়বে না। শুধুমাত্র নিজেদের পরিশ্রম এবং সঠিক চেষ্টার দ্বারাই এই ব্যবসা আপনি করতে পারবেন।

৩) ফুড ডেলিভারির ব্যবসা:

শহরাঞ্চলের বিভিন্ন জায়গায় কিন্তু ফুড ডেলিভারির ব্যবসা ভীষণ রকমের জনপ্রিয়। চাইলে কারুর বানানো খাবার নিজে দায়িত্ব নিয়ে ডেলিভারি করতে পারেন আবার নিজেদের হোম সার্ভিসের মাধ্যমেও ব্যবসার কাজ শুরু করতে পারেন। যারা দৈনন্দিন জীবনে বাড়ি ফিরে আর অন্যান্য কোন কাজ করার সময় পান না এই সমস্ত চাকুরীরতা মানুষদের কিন্তু এই ব্যবসার ভীষণ রকমের প্রয়োজন রয়েছে। সুতরাং এই ব্যবসা করেও আপনি নিশ্চিন্তে দৈনন্দিন প্রায় ৫০০ টাকার কাছাকাছি বা তার বেশি উপার্জন করতে পারবেন।

৪) ডাবের ব্যবসা:

অত্যন্ত কম দামের মধ্যে ডাব সংগ্রহ করে আপনারা কিন্তু খুব সহজেই প্রফিট রেখে সেগুলো বিক্রি করতে পারেন। এই ব্যবসার ক্ষেত্রেও আপনাদের খুব একটা ইনভেসমেন্ট এর প্রয়োজন পড়বে না। গ্রাম শহর নির্বিশেষে অনেক বাড়িতেই কিন্তু নারকেল গাছ থাকে। গ্ৰামাঞ্চলের ক্ষেত্রে প্রায় সময় দেখা যায় সংগ্রহ করে এগুলো বিক্রি করা হচ্ছে। প্রত্যেকটি ডাব কিন্তু আপনারা প্রায় ৩০ টাকা থেকে ৫০ টাকা পর্যন্ত দামে বিক্রি করতে পারবেন।

৫) ছোলা ভাজা অথবা বাদাম ভাজা বিক্রির ব্যবসা:

কোন মেলা বা কোন অনুষ্ঠানের সময় দেখবেন এই ধরনের ব্যবসা ভীষণ রকমের জনপ্রিয়তা লাভ করে। অল্প পুঁজির মাধ্যমে খুব সহজেই কিন্তু এগুলো বিক্রি করে প্রায় 200 থেকে 300 টাকার কাছাকাছি উপার্জন করা যেতে পারে। এই ব্যবসা করার জন্য বড় কোন জায়গা বা বিশাল কিছু খরচ করার প্রয়োজন নেই। খুব সহজেই মধ্যবিত্ত সাধারণ মানুষ কিন্তু এই ব্যবসাটি শুরু করতে পারবেন।

Back to top button