মাত্র ৪০ টাকায় পান নাইটি! এখান থেকে কিনে শুরু করতে পারেন ব্যবসা, অল্পদিনেই হবেন প্রচুর লাভবান

নিজস্ব প্রতিবেদন: অল্প সময়ের মধ্যে নিজেকে স্বাবলম্বী করে তোলার একমাত্র উপায় হল ব্যবসা করা। তরুণ থেকে বয়স্ক তাই আজকাল সকলেই নিজের একটি স্বাধীন ব্যবসা শুরু করার কথা মাথায় নিয়ে এসেছেন। তবে ব্যবসা করব বললেই তো আর ব্যবসা করা সম্ভব হয় না। তার জন্য কিছু স্পষ্ট ধ্যান-ধারণা আর মূলধন প্রয়োজন। অবশ্যই যারা নতুন ব্যবসায়ী রয়েছেন তাদের এমন ব্যবসা শুরু করা উচিত যেখানে মূলধনের প্রয়োগ কম এবং বাজার চাহিদা বেশি।

লক্ষ্য করে দেখবেন বিভিন্ন দৈনন্দিন ব্যবহৃত পোশাক যেমন নাইটি, কুর্তি বা শাড়ির বাজার চাহিদা কিন্তু কখনোই শেষ হবে না। আমাদের আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে তাই আপনাদের সাথে শেয়ার করে নিতে চলেছি এই পোশাকেরই হোলসেল ব্যবসার কথা। আপনাদের যাদের মনে প্রশ্ন রয়েছে এই হোলসেল ব্যবসা কি তা নিয়ে চলুন জেনে নেওয়া যাক।

হোলসেল মার্কেটের ব্যবসা কি ধরনের?

হোলসেল বা পাইকারি জিনিসের ব্যবসা হলো কোনো পাইকারি দোকান বা ম্যানুফ্যাকচারিং ইউনিট থেকে যে কোন জিনিস কিনে সেগুলো লোকাল মার্কেটে প্রফিট মার্জিন রেখে বিক্রি করার ব্যবসা। পাইকারি দরে যেহেতু জিনিস কেনা হয় তাই দাম অনেকটাই কম থাকে। সুতরাং স্থানীয় মার্কেটের উপর নজর রাখলে প্রফিট মারজিন খুব সহজেই আপনারা বাড়িয়ে বা কমিয়ে নিতে পারেন কাস্টমার অনুসারে। এই ধরনের ব্যবসাতে যদি বাজার চাহিদা ঠিক থাকে তাহলে কিন্তু ব্যাপক পরিমাণে লাভ হতে পারে।

মানুষের অন্যতম তিনটি মৌলিক চাহিদার মধ্যে রয়েছে দৈনন্দিন ব্যবহৃত পোশাক। সুতরাং আপনারা যদি এই জিনিসটা নিয়েই ব্যবসা শুরু করেন তাহলে কিন্তু আর কখনোই ভবিষ্যতের জন্য চিন্তা করতে হবে না। সবথেকে ভালো ব্যাপার যে সমস্ত পাইকারি দোকানগুলোতে এই পণ্য বিক্রয় করা হয়ে থাকে সেখানে কিন্তু মোটামুটি 10 থেকে 12 হাজার টাকা মূলধনেই কাজ শুরু করা যেতে পারে। অতএব আপনাদের যে একটা বড় অংকের বিনিয়োগ করতে হবে এরকম কোন ব্যাপার নেই।

নাইটি কুর্তি এবং শাড়ির হোলসেল মার্কেটে ব্যবসা শুরু করতে গেলে আপনাদের বাজারের মধ্যে একটা দোকান থাকা অত্যাবশক। তবে যদি আপনার অত বাজেট না থাকে সেক্ষেত্রে আপনারা কিন্তু অনলাইনেও বিক্রি শুরু করতে পারেন। তবে চেষ্টা করবেন বাজারের মধ্যে একটি দোকান ছোট হলেও কিনে নেওয়ার বা ভাড়া নেওয়ার। কারণ একেবারে ওপেন মার্কেটে যদি আপনি নিজের দোকান শুরু করেন তাহলে লাভের পরিমাণ কিন্তু অনেকটাই বেশি হবে। আজকে এই প্রতিবেদনের একেবারে শেষে আমরা আপনাদের সাথে এমন একটি ঠিকানার কথা শেয়ার করে নেব যেখানে অত্যন্ত অল্প দামের মধ্যে আপনারা বিভিন্ন ভ্যারাইটির নাইটি কুর্তি এবং শাড়ি পেয়ে যাবেন।

যদিও আলাদা করে আর দাম উল্লেখ করলাম না কারণ প্রচুর পরিমাণে রং আর ভ্যারাইটির দাম কিন্তু আলাদা রকমের হয়ে থাকে। সুতরাং আপনারা যে ধরনের জিনিস চান সেটা ফোন করেই বিস্তারিত জেনে নেবেন। প্রসঙ্গত এই দোকানে আপনারা পাঁচ হাজার টাকার কেনাকাটা করলে কিন্তু একটি দুর্দান্ত কালেকশনের কুর্তি ফ্রী পেয়ে যাবেন। এছাড়াও দারুণ কিছু অফার রয়েছে। যদি আপনার বাড়ি খুব বেশি দূরে হয়ে থাকে সেক্ষেত্রে আপনারা কিন্তু অনলাইনে ভিডিও কলের মাধ্যমেও জিনিস কিনে নিতে পারেন।

পাইকারি দরে পণ্য কেনার ঠিকানা:
হাওড়া এবং শিয়ালদহ দুটো জায়গা থেকেই আপনারা এখানে আসতে পারেন। ট্রেনে করে আসাটাই বেশি সহজ হবে।

Shop Name : Annapurna vastralaya
Address: gobindopur kajibari Math
Contact – 8640802810/9144958626.

Back to top button