কলকাতার কাছেই দুর্দান্ত লোকেশনে খুব সস্তার রেটে এই সুন্দর একতলা বাড়ি বিক্রি, না কিনলে পস্তাবেন পরে

নিজস্ব প্রতিবেদন: কমবেশি প্রত্যেক মানুষের মনেই নিজস্ব একটি বাসস্থানের সুপ্ত আকাঙ্ক্ষা থেকে যায়। কিন্তু বিভিন্ন অসুবিধা বা সমস্যার কারণে হয়তো অনেক ক্ষেত্রেই আপনারা নিজেদের এই মনের ইচ্ছে পূরণ করতে পারেন না। আসলে বাড়ি তৈরি করাটা একটা এতটাই ঝামেলার ব্যাপার যে সহজে সাধারণ মধ্যবিত্ত মানুষের পক্ষে বা কর্মব্যস্ত মানুষের পক্ষে বাজেট বজায় রেখে দীর্ঘ সময় ধরে এটা সম্ভব নয়। তাহলে কি একটা মনের মতন নিরিবিলি পরিবেশে বাড়ির আকাঙ্ক্ষা অধরাই থেকে যাবে! একেবারেই তা নয়।

আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা আপনাদের জন্য নিয়ে এসেছি পাঁচ কাঠা জমির উপর অবস্থিত এমন একটি একতলা বাড়ি যা কমবেশি সকলেরই পছন্দ হবে। মোটামুটি হাত-বা ছড়িয়ে থাকার জন্য কোন ছোট বা মাঝারি ফ্যামিলি যদি বাড়ি কেনার কথা চিন্তা-ভাবনা করছেন সে ক্ষেত্রে অবশ্যই আপনারা কিন্তু এই বাড়িটি ট্রাই করে দেখতে পারেন। বাড়িটির লাগোয়া আরো দু কাঠা জমির রয়েছে। এই জমিটিতে প্রচুর পরিমাণে নারকেল আর সুপারি গাছ লাগানো আছে। চাইলে আপনারা বাগান করতে পারবেন আবার নিজেদের কাজেও ব্যবহার করতে পারবেন। চলুন এবার বাড়িটির অবস্থান এবং অন্যান্য বিষয় সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নেওয়া যাক।

আজ আমরা যে বাড়িটির কথা বলছি সেটি চুঁচুড়ার সত্যপীরপল্লীতে অবস্থিত। আশেপাশের পরিবেশ এতটাই শান্ত আর নিরিবিলি যে যে কোন মানুষেরই তা পছন্দ হয়ে যাবে। এই বাড়িটি প্রায় ৩৫ বছরের পুরনো সম্পত্তি হলেও খুব সুন্দর ভাবে মেনটেইন করা হয়েছে। একতলা এই বাড়িটি দক্ষিণমুখী এবং সব মিলিয়ে মোট তিনটি বেডরুম রয়েছে। বাড়িটির প্রবেশ পথের শুরুতেই রয়েছে একটি বৈঠকখানা।

বৈঠকখানার ঠিক বাঁদিকে রয়েছে একটি মাস্টার বেডরুম। সেখান থেকে সোজা এগিয়ে গেলেই আপনার পড়বে সিঁড়ির ঘর এবং লিভিং এরিয়া। লিভিং এরিয়াকে আপনারা চাইলে কিন্তু ডাইনিং প্লেস হিসেবেও ব্যবহার করতে পারবেন। লিভিং এরিয়া থেকে ঠিক সোজা রয়েছে স্নান ঘর। ইন্ডিয়ান আর ওয়েস্টার্ন টয়লেট আলাদাভাবে বসানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে। স্নান ঘরের ঠিক পাশে একটু বেরিয়েই রয়েছে, বেশ বড় আকারের একটি কিচেন এবং তার সংলগ্ন জায়গায় একটা ছোট রুম।

এই রুমটা আপনারা স্টাডি বা পুজোরঘর হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন। লিভিং এরিয়ার ঠিক ডান দিকে অর্থাৎ বৈঠকখানা সোজাসুজি জায়গায় রয়েছে আরও একটি বড় সাইজের বেডরুম। সিঁড়ির ঘরের নিচেও যথেষ্ট জায়গা রয়েছে। এটা স্টোর রুম হিসেবে আপনারা ব্যবহার করতে পারেন। সিঁড়ি থেকে উঠে গিয়ে ছাদ দেখলেও কিন্তু আপনাদের পরিবেশ খুবই ভালো লাগবে।

বাড়ির সামনে প্রায় ১২ ফুট চওড়া রাস্তা রয়েছে। দু চাকা অথবা চারচাকা গাড়ি ঢুকতে কোন সমস্যাই হবে না। বাড়িটির ফ্লোরে কোনরকম মার্বেল ফিনিশিং নেই। আপনারা চাইলে কেনার পর রং আর মার্বেল বসিয়ে নিতে পারেন। সব মিলিয়ে সুন্দর অবস্থানের এই বাড়িতে কিন্তু আপনাদের মনের ঠিকানা হয়ে যেতে পারে যদি চান। সম্পূর্ণ সম্পত্তির দাম রাখা হয়েছে ৪২ লক্ষ টাকা। আপনাদের মধ্যে যদি কেউ এটি কিনতে আগ্রহী থাকেন বা অন্যান্য কোন বিস্তারিত তথ্য জানতে চান সে ক্ষেত্রে অবশ্যই সঙ্গে থাকা ভিডিওটি দেখার পরে আমাদের দেওয়া নম্বরে যোগাযোগ করে নিতে পারেন।
Contact : 8240174758(Rajib)

Back to top button