“লাথি খেয়ে কাঁটাতার পেরিয়ে এখানে সেকুলার হয়েছেন!”, পুজোয় বাংলাদেশ যাওয়া নিয়ে মিথিলাকে কটাক্ষ নেটিজেনদের

নিজস্ব প্রতিবেদন: টলিউডের জনপ্রিয় পরিচালক সৃজিৎ মুখোপাধ্যায় কে আপনারা অনেকেই কিন্তু কম বেশি চেনেন। ২০১৯ সালে বাংলাদেশের অভিনেত্রী তথা সমাজকর্মী রশিদ মিথিলাকে বিয়ে করেন তিনি। তারপর থেকেই কিন্তু কলকাতায় বসবাস করেন মিথিলা। এখানকার পূজো জমিয়ে উপভোগ করেছেন তিনি বিগত বছর গুলিতে। তবে এবার আর দুর্গাপুজা উপলক্ষে কিন্তু মিথিলার কলকাতায় থাকা হচ্ছে না। জানা যাচ্ছে এবার পুজোর প্রথম দিন অর্থাৎ সপ্তমীতেই তিনি চলে যাচ্ছেন বাংলাদেশে।

বাকি সময়টা সেখানেই কাটাবেন মিথিলা এবং তার পরিবার। সম্প্রতি একটি জনপ্রিয় সংবাদ মাধ্যমকে সাক্ষাৎকার দেন রশিদ মিথিলা। সেখান থেকেই নির্দিষ্ট কিছু অংশ আমাদের এই প্রতিবেদনে তুলে ধরা হলো। এবার পুজো কেমন ভাবে আর কোথায় কাটবে? মিথিলাকে তা নিয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি জানান,“এবার পুজোয় ঢাকায় থাকব। সপ্তমীর দিনই ঢাকায় চলে যাব। আইরার স্কুল ছুটি থাকবে।

আর ওর স্কুল ছুটি থাকলে আমি ঢাকায় চলে যাওয়ারই চেষ্টা করি। ওখানে আমার বাবা-মা পরিবারের সঙ্গেই পুজোটা সেলিব্রেট করব। ঢাকাতেও পুজোটা বেশ জাঁকজমকপূর্ণভাবেই হয়। ওখানেও আমরা প্যান্ডেলে যাই, বন্ধুদের বাড়িতে গিয়ে আড্ডা, খাওয়াদাওয়া সবই হয়। আর সৃজিত এমনিতেই পুজোতে কলকাতায় থাকবে না। ও শিলং থেকে ফিরবে, তারপর আবার মুম্বই চলে যাবে। পুজোর সময় আমি আমার প্রিয় জামদানি শাড়ি কেনার চেষ্টা করি, আর সেটা আমি বাংলাদেশ থেকেই কিনি।

এবারও অর্ডার করা আছে, ঢাকায় গেলে ওটা পেয়ে যাব। আর সৃজিতের জন্য এখনও কিছু কেনাকাটা করে উঠতে পারিনি। আমার শাশুড়ি, ননদ, আইরা এবং পরিবারের সবার জন্যই কেনাকাটা করব। আর এই সপ্তাহেই করব। আসলে আমিও আফ্রিকায় ছিলাম, কিছুদিন আগেই ফিরেছি। তাই সব মিলিয়ে কেনাকাটা কিছু হয়নি।” অভিনেত্রীর কথায়, “বাংলাদেশে বড় করেই পুজো হয়। ওখানে আমাদের পাড়াতেই পুজো হত। মিথিলাকে নিয়ে এক সাক্ষাৎকারে  জি ২৪ ঘণ্টায় এই পোস্ট দেখে এক জনৈক নেটিজেন কমেন্ট করেছেন “লাথি খেয়ে কাঁটাতার পেরিয়ে এখানে সেকুলার হয়েছেন!”,

ছোটবেলায় আমি যে পাড়ায় থাকতাম, সেখানে সিদ্ধেশরী কালীমন্দির আছে। ঢাকার ওই এলাকাটার নামই সিদ্ধেশরী। পুজোর সময় প্রতিবার সেখানে মেলা হত, সেখানে গিয়ে চুড়ি, টিপ এটা ওটা সেটা কিনতাম। খেলনা কিনতাম। পুজোর ঢাকে কাঠি পড়লেই গোটা পাড়ায় উৎসবের চেহারা নিত। সকাল থেকে রাত পর্যন্ত ঢাকের আওয়াজে সরগরম। ঠাকুর দেখা ছাড়াও খাওয়া-দাওয়ার বিশাল আয়োজন হত। দুর্গাপুজোর সেইসব স্মৃতি আমার কাছে জ্বলজ্বল করে রয়েছে।

‘পাঠকদের উদ্দেশ্যে জানিয়ে রাখি,২০১৯-এর ৬ ডিসেম্বর বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন সৃজিত মুখোপাধ্যায় আর রশিদ মিথিলা। কোনরকম জাঁকজমক ছাড়াই একেবারে ঘরোয়া অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে এই বিয়ে সম্পন্ন হয়েছিল। এরপর পরবর্তী বছর অর্থাৎ ২০২০ সালে ঘটা করে নিজেদের বিয়ের রিসেপশন পার্টি দিয়েছিলেন এই তারকা দম্পতি।বিয়ের সময় কালো পাঞ্জাবি, লাল জহরকোটে সেজেছিলেন পরিচালক সৃজিত মুখোপাধ্যায়। আর মিথিলার পরনে ছিল লাল জামদানি শাড়ি। পাশাপাশি সৃজিত-মিথিলার বিয়ের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মিথিলার মেয়ে আইরা।

Back to top button