জীবনের অনেক ইচ্ছাই রয়ে গেছে অপূর্ণ! রোজ বালিশের নিচে রাখুন এই একটি দুর্দান্ত জিনিস, কাজ দেবে গ্যারান্টি

নিজস্ব প্রতিবেদন: আমাদের প্রত্যেকের জীবনে কিন্তু নানান ধরনের সমস্যা থাকে যেগুলো দূর করতে বিভিন্ন বাস্তু সংক্রান্ত উপায় কার্যকরী হয়। অনেকেই এই বিষয়গুলোকে ঠিক বিশ্বাস করে থাকেন না কুসংস্কার ভেবে। তবে তা কিন্তু একেবারেই উচিত নয়। কারণ বাস্তু সংক্রান্ত সব বিষয় কিন্তু একেবারেই ভুল বা মিথ্যে নয়। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা আপনাদের সাথে এমন কিছু টিপস আর জিনিস সম্পর্কে শেয়ার করে নিতে চলেছি যা সঠিকভাবে করতে পারলে আপনাদের সমস্ত ইচ্ছা পূরণ হবে আর বাধাও দূর হয়ে যাবে। স্টেপ বাই স্টেপ সমস্ত কিছু আমরা আজকের এই প্রতিবেদনে আলোচনা করব। তাই অবশ্যই আর সময় নষ্ট না করে প্রতিবেদনটি শেষ পর্যন্ত পড়ে ফেলুন।

১) প্রত্যেক বাড়িতেই দাম্পত্য অশান্তি বা সম্পর্কের টানাপোড়েন লক্ষ্য করা যায়। যার ফলস্বরূপ আমাদের শারীরিক আর মানসিক জীবনে ব্যাপক প্রভাব পড়ে। এই সমস্ত বাধা বা সমস্যা দূর করার জন্য হাতে একটি ছোট এলাচ নিয়ে যার সাথে সম্পর্ক খারাপ হয়ে গিয়েছে বা বিস্তর ঝামেলা হয়েছে সেটা যেন ঠিক হয়ে যায় এমন প্রার্থনা করবেন। এই কামনা করে এলাচ টাকে বালিশের নিচে রেখে ঘুমিয়ে পড়বেন। পরের দিন সকালে এলাচ এমন জায়গায় রেখে দেবেন যেটা কোন পাখি এসে খেয়ে যেতে পারে। টানা ২১ দিন আপনাকে এই কাজটি করতে হবে। তবে কতটা বিশ্বাসের সাথে আর কতটা মন দিয়ে আপনারা এটা করছেন সেটা কিন্তু অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে।

২) কমবেশি প্রত্যেক বাড়িতেই কিন্তু অর্থ সংকট বা ঋণের সমস্যা থেকে থাকে। এটা এমন একটি বাধা যা জীবনকে বিপর্যস্ত করে তোলে। অর্থ সংকট দূর করার জন্য অথবা ঋণ মুক্তির জন্য আপনাদের একটা এক টাকার কয়েন নিয়ে নিতে হবে। তারপর ঠিক আগের পদ্ধতির মতোই ঋণ মুক্তির জন্য আপনাদের মন থেকে প্রার্থনা করতে হবে হাতে এই কয়েনটি নিয়ে। রাতে ঘুমানোর আগে বেশ কয়েকবার এই কাজটি করবেন। পরের দিন সকালে কয়েন তাকে জলে ধুয়ে নেবেন এবং রাতে ঠিক একই রকম ভাবে আবারো 21 দিন টানা করবেন।

৩) শারীরিক কষ্ট বা অসুস্থতা দূর করার জন্য অনেকেই অনেক ধরনের কাজ করে থাকেন। তবে আজকের টিপস কিন্তু ভীষণ কার্যকরী। এর জন্য আপনারা একটি ময়ূরের পালক নিয়ে নিজেদের শরীরের সুস্থতা কামনায় প্রার্থনা করে সেটাকে বালিশের তলায় রেখে দেবেন। পরের দিন সকালে ময়ূরের পালক তাকে বের করে একটু ঝেড়ে নেবেন এবং আবারো রাতে প্রার্থনা করে ঠিক একি রকম ভাবে শুয়ে পড়বেন। যদি ময়ূরের পালক না থাকে আপনারা কিন্তু লবঙ্গ নিয়েও এই কাজটা করতে পারেন।

৪) বাচ্চা থেকে বড় সকলের মধ্যেই কিন্তু দুঃস্বপ্ন ভয় বা দুশ্চিন্তা প্রচুর পরিমাণে লক্ষ্য করা যায়। বিশেষ করে বাচ্চারা কিন্তু প্রায় সময় দুঃস্বপ্ন দেখে থাকে যা একেবারেই ভালো নয়। অনেকেই তাই বাচ্চাদের বালিশের তলায় লোহার জিনিস রাখতে বলত যাতে নেগেটিভ এনার্জি দূর হয়ে যায় ‌। আপনারা চাইলে কিন্তু লোহার বদলে হনুমান চলিসাও বালিশের নিচে রাখতে পারেন। ঘুমানোর আগে হনুমান চল্লিশাটা প্রণাম করে অবশ্যই প্রার্থনা করবেন যাতে আপনার মন ভালো হয়ে যায় এবং কোন রকমের ভয় না থাকে।

৫) কমবেশি আপনারা সকলেই জানেন আমাদের জীবনের তুলসী পাতার কত ভূমিকা রয়েছে। রোগব্যাধি ভালো করা থেকে শুরু করে অনেক কাজেই তুলসী পাতা ব্যবহার করা হয়ে থাকে। জীবনের বিভিন্ন বাধা-বিপত্তি দূর করার জন্য বা ঘরের বাস্তু দোষ কাটানোর জন্য আপনারা বাড়িতে অবশ্যই তুলসী গাছ রাখবেন।। নিয়মিত এর যত্ন করবেন। ব্যাস তাহলেই বুঝতে পারবেন সঠিক ফলাফল।

Back to top button