ঘরোয়া সিক্রেট মসলা দিয়ে মসালা চা বানিয়ে নিন দোকানের মতো, রইলো পদ্ধতি

নিজস্ব প্রতিবেদন : চা আর আড্ডা এই দুই ছাড়া বাঙালীর অনেকটাই অসম্পূর্ণ থেকে যায়। বিশেষ করে বাড়িতে বন্ধুবান্ধব এলে চায়ের আড্ডা জমজমাট হওয়া চাই চাই। আর সেক্ষেত্রে মাসালা চা যদি তেলে ভাজা সহ থাকে তাহলে তো কথাই নেই। অনেকেই বাড়িতে মাসালা চা বানান, তবে দোকানের মত হয় না। আসলে দোকানে যে সিক্রেট মসলা ব্যবহার হয় তা সঠিক ভাবে জানা না থাকলে মাসালা চায়ের আসল ফ্লেভারটা আসে না। চলুন আজ আপনাদের সাথে সেই সিক্রেট মসলা সহ মাসালা চা বানানোর রেসিপি শেয়ার করছি। বানিয়ে চুমুক দিন এক কাপ চায়ে। অবাক হতে বাধ্য হবেন। মনে হবে দোকান থেকে আনানো।

ক. সিক্রেট মসলা বানানোর উপকরণ মাসালা চায়েরঃ
এখানে যে পরিমান মসলা বানানোর পরিমাপ দেওয়া হয়েছে তাতে ১০-১২ বার চা বানিয়ে নেওয়া যাবে।

  1. ছোট এলাচ ১০ গ্রাম
  2. লবঙ্গ ৫ গ্রাম
  3. গোলমরিচ ২ গ্রাম
  4. মৌরি ৫ গ্রাম
  5. জায়ফল একটা
  6. দারুচিনি ৮ গ্রাম
  7. তারা মৌরি একটা

কিভাবে বানাবেনঃএকটি প্যান বা চাটু গ্যাসে বসিয়ে গরম করুন। তারপর আঁচ কমিয়ে তাতে এক এক করে ছোট এলাচ ১০ গ্রাম, লবঙ্গ ৫ গ্রাম, গোলমরিচ ২ গ্রাম, মৌরি ৫ গ্রাম, জায়ফল একটা, দারুচিনি ৮ গ্রাম ও তারা মৌরি একটা দিন। এক মিনিট নেড়েচেড়ে গ্যাস অফ করে দিন। প্যানে রেখে আরও দুই মিনিট মত নাড়তে থাকুন।

তারপর একটা থালায় রেখে ঠাণ্ডা করুন। ঠাণ্ডা হয়ে এলে মিক্সিতে মিহি করে গুঁড়ো করে নিন। তৈরি হয়ে গেল মাসালা চায়ের সিক্রেট মসলা। কাঁচের জারে ভরে রেখে দিন। এক থেকে দুই মাস রেখে ব্যবহার করুন।

খ. সিক্রেট মসলা দিয়ে মাসালা চা বানানোর রেসিপিঃ

উপকরণঃ দু কাপ চা বানানোর পরিমাপ অনুযায়ী লিখছি।

  1. দু কাপ জল
  2. এক কাপ তরল দুধ
  3. দুই টুকরো আদা
  4. মসলা এক চা চামচ
  5. দুই চামচ চাপাতা
  6. স্বাদ অনুযায়ী চিনি

বানানোর পদ্ধতিঃচায়ের প্যানে দু কাপ জল ও এক কাপ তরল দুধ দিয়ে গ্যাস অন করুন। দুই টুকরো আদা থেঁতলে এতে দিয়ে দিন। এবার ভালো করে যতক্ষণ না ফুটছে ততক্ষণ অপেক্ষা করুন। দুধ ভালো ভাবে ফুটতে শুরু করলে তাতে এক চা চামচ মসলা দিয়ে দিন। দুই কাপ চায়ের জন্য এক চা চামচ মসলা যথেষ্ট। এবার ঘড়ি ধরে দুই মিনিট অপেক্ষা করুন। মসলার খুব সুন্দর গন্ধ বের হয়ে আসবে।

এবার এতে দুই চামচ চাপাতা দিয়ে দেবেন। চাপাতার পরিমান নির্ভর করবে আপনার চাপাতার কোয়ালিটির উপর। সেই বুঝে কম বেশি দেবেন। তারপর চায়ের সুন্দর রঙ আসা অবধি অপেক্ষা করা। চিনি এই সময় দিতে পারেন। আবার যদি সবাই চিনি না খান তাহলে চা ছেঁকে নেওয়ার সময় স্বাদ অনুযায়ী চিনি দেবেন। তৈরি হয়ে গেল মাসালা চা একেবারে দোকানের মত।

Back to top button