বাড়িতে ঘরোয়া সহজ পদ্ধতিতে বানিয়ে ফেলুন দোকানের মতো ঝরঝরে ও রসালো বোঁদে, রইলো পদ্ধতি

নিজস্ব প্রতিবেদন: বুন্দিয়া বা বোঁদে বা বুরিন্দা বাংলার অন্যতম জনপ্রিয় মিষ্টান্ন। কম-বেশি যে কোন মিষ্টির দোকানে কিন্তু আপনারা এই বোঁদে কিনতে পেয়ে যাবেন। তবে করোনা-আবহে আজকাল অনেকেই কিন্তু আর বাইরে থেকে মিষ্টি কিনতে চাইছেন না। তাহলে কি এই সমস্ত খাবার খাওয়া ছেড়ে দিতে হবে? একেবারেই না খুব সহজ পদ্ধতিতে আপনারা বাড়িতে তৈরি করে নিতে পারেন রসালো বোঁদে।

অনেকেই মনে করেন হয়তো বিভিন্ন মিষ্টান্ন বাড়িতে তৈরি করা খুবই কঠিন কাজ। সেইসব পাঠকদের উদ্দেশ্যে জানিয়ে রাখি কয়েকটি স্টেপ বাই স্টেপ পদ্ধতি অবলম্বন করলেই কিন্তু একেবারে দোকানের মতো স্বাদে আপনারা বিভিন্ন মিষ্টান্ন বাড়িতে তৈরি করে নিতে পারবেন। চলুন তাহলে আর দেরি না করে আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনটি শুরু করা যাক এবং জেনে নেওয়া যাক বোঁদের বিশেষ রেসিপি।

  • বোঁদে তৈরীর বিশেষ রেসিপি:

১) এটি তৈরি করার জন্য আপনাদের মেজারমেন্ট কাপের সমপরিমাণ এক কাপ বেসন নিয়ে নিতে হবে। যদি আপনাদের কাছে মেজারমেন্ট কাপ না থাকে সেক্ষেত্রে বাড়িতে যে চায়ের কাপ থাকে তার পরিমাপ অনুযায়ী কিন্তু আপনারা বেসন নিতে পারেন। ওই কাপের সমপরিমাণ জল নিয়ে নিন। এবারে এক চা চামচ ঘি বেসনের মধ্যে দিয়ে দিন। ঘি’টাকে খুব ভালো করে বেসনের সাথে মিশিয়ে নিতে হবে।


যদি আপনাদের ঘি দেওয়া পছন্দ না হয়ে থাকে সেক্ষেত্রে বিকল্প হিসেবে সাদা তেল ব্যবহার করতে পারেন। এবারে খুব ভালো করে বেসনের সাথে ঘি মিশিয়ে নিতে হবে। ঘি ভালো করে মিশে গেলে অল্প অল্প করে জল ব্যবহার করে বেসনের একটা ব্যাটার আপনাদের তৈরি করে নিতে হবে। তবে গরম জল ব্যবহার করার দরকার নেই,নরমাল জলেই কাজ হয়ে যাবে। বেসনের ব্যাটার আপনারা এমন ভাবে তৈরি করবেন যাতে এর মধ্যে কোনরকম দানা না থেকে যায়। একেবারে পুরো জল ঢালবেন না, অল্প অল্প করে জল দিয়ে ব্যাটার গুলে নেবেন।

২) দ্বিতীয় ধাপের শুরুতেই বেসনের ব্যাটার ঢাকা দিয়ে আপনাকে মিনিট দশেক সময় রেখে দিতে হবে। ততক্ষণে আপনাদের বোঁদে তৈরি করার জন্য রস বানিয়ে নিতে হবে। একটি পাত্রের মধ্যে জল দিয়ে পরিমাণ মতন চিনি তাতে দিয়ে দিন। যতক্ষণ পর্যন্ত না চিনি ভালোভাবে গুলে যাচ্ছে অপেক্ষা করতে থাকুন। এই জলের মধ্যেই দিয়ে দিন তিনটে গুঁড়ো করে নেওয়া ছোট এলাচ, সামান্য পরিমাণে কেশর বা জাফরান। জাফরান দিলে খুব সুন্দর গন্ধ আর রং হয়। চিনির রসটাকে খুব ভালো করে ফুটিয়ে নিতে হবে। খেয়াল রাখবেন চিনির রস যেন কিছুটা চটচটে প্রকৃতির তৈরি হয়।। চিনির রস তৈরি হয়ে গেলে গ্যাস থেকে নামিয়ে নিন। এবারে অন্য একটি কড়াই গ্যাসে বসিয়ে তাতে বোঁদে ভাজার জন্য তেল দিয়ে দিন।

৩) এবার বেসনের যে ব্যাটারটি তৈরি করে রেখেছিলেন সেটাতে একেবারে এক চিমটে পরিমাণ বেকিং সোডা দিয়ে দিন। বেকিং সোডা দিলে কিন্তু একটু মচমচে ভাব আসে। এবার আপনাদের একটা ঝাঝরি হাতা নিয়ে নিতে হবে। এবারে এই হাতার মধ্যে দিয়ে বেসনের ব্যাটার আপনাদের গরম তেলের মধ্যে দিয়ে দিতে হবে। ঠিক যেভাবে দেখানো হয়েছে সেভাবেই কিন্তু বোদের মিশ্রণ গুলি তেলের মধ্যে পড়ে যাবে।

প্রত্যেকটা বোদেই কিন্তু আলাদা আলাদা গোল হয়ে তেলের মধ্যে পড়বে। দুই থেকে তিন মিনিট সময় পর্যন্ত আপনাদের ভালো করে এটি ভেজে নিতে হবে। ভালো করে ভাজা হয়ে গেলে গুলিকে তেল থেকে তুলে ফেলুন। তেলটাকে খুব ভালো করে ঝরিয়ে নিয়ে যে চিনির রস তৈরি করে রেখেছিলেন সেটার মধ্যে আপনারা বোদে গুলিকে দিয়ে দিন। যদি আপনারা গরম রসের মধ্যে বোদেগুলোকে দিতে পারেন তাহলে কিন্তু এতে খুব ভালো রস ঢুকে যাবে।

এবার এগুলিকে চিনির রসের মধ্যে ডুবিয়ে 10 থেকে 15 মিনিট সময় পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। ঠিক একই রকম ভাবে সমস্ত ব্যাসনের ব্যাটার ব্যবহার করে আপনাদের বোদে তৈরি করে নিতে হবে। খুবই সহজ একটি রেসিপি আপনারা কিন্তু চাইলেই এভাবে বাড়িতে বোঁদে তৈরি করে পরিবেশন করতে পারেন। রুটি রুচি থেকে শুরু করে মুড়ি দিয়েও এটি খাওয়া যেতে পারে। শিশু থেকে বয়স্ক সকলেরই ভালো লাগবে। বাড়িতে অতিথি আসলেও আপনারা এটা সহজে পরিবেশন করতে পারবেন।

Back to top button