বাড়িতে ঘরোয়া সহজ পদ্ধতিতে বানিয়ে ফেলুন করলার রেসিপি, যার স্বাদ হয় দুর্দান্ত

নিজস্ব প্রতিবেদন: করোলা এমন একটি সবজি যা তেতো হলেও কিন্তু অত্যন্ত উপকারী। তবে এই স্বাদের জন্য কিন্তু অনেকেই, বিশেষ করে শিশুরা একেবারেই করলা খেতে চায় না। যার ফলস্বরূপ গৃহিণীরা কিন্তু প্রায়সময় সমস্যায় পড়ে থাকেন। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা তাই আপনাদের সাথে করলার এমন একটি রেসিপি শেয়ার করে নিতে চলেছি যেটা বাচ্চা থেকে বড় সবাই কিন্তু খুব আনন্দ সহকারে খাবে।

এর মধ্যেকার সমস্ত তেতোভাব চলে যাবে। করলার রেসিপি ও যে এত টেস্টি হতে পারে সেটা কিন্তু আমাদের আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনটি না পড়লে আপনারা একেবারেই বুঝতে পারবেন না। চলুন তাহলে আর দেরি না করে কিভাবে এই রান্নাটি করতে হবে জেনে নেওয়া যাক।

  • করলা দিয়ে তৈরি বিশেষ নিরামিষ রেসিপি:

১) প্রথমেই করলা ভালো করে ধুয়ে গোল গোল করে কেটে নিতে হবে। এরপর একটি পাত্রের মধ্যে পর্যাপ্ত পরিমাণে জল দিয়ে এই করলার টুকরো গুলিকে মোটামুটি মিনিট দুয়েক সময় পর্যন্ত ভালো করে ফুটিয়ে নিতে হবে। যখন জল রীতিমতো টগবগিয়ে ফুটতে শুরু করবে তখন করলাকে একটা ঝুড়ির মধ্যে ঢেলে দিতে হবে জল ঝরিয়ে নেওয়ার জন্য।

তারপর একটি প্যানের মধ্যে পরিমাণ মতন তেল দিয়ে এই করলা গুলিকে দিয়ে দিতে হবে। এবার করলা গুলিকে হালকা করে ভেজে নিন। আমাদের এই বিশেষ প্রতিবেদনটি ফলো করলে কিন্তু করলা একেবারেই তেতো হবেনা। কিছুক্ষণ পর যখন দেখবেন করলার রং পরিবর্তিত হয়ে গেছে, তখন অপরদিকে উল্টে দিতে হবে। এবারে করোলা ভাজা হয়ে গেলে তুলে অন্য পাত্রে রেখে দিন।

২) দ্বিতীয় ধাপে ওই ভাজা তেলের মধ্যেই আপনাদের মোটামুটি তিনটি মিডিয়াম সাইজের আলু সেদ্ধ করা অবস্থায় দিয়ে দিতে হবে। এবার এর মধ্যে পরিমাণ মতো লবণ আর সামান্য হলুদ গুঁড়ো দিয়ে দিন। কিছুক্ষণ সময় আলু ভেজে নেওয়া হয়ে গেলে এগুলিকে উঠিয়ে নিন। আবারো কড়াই এর মধ্যে আপনাদের 2 টেবিল চামচ তেল দিয়ে দিতে হবে। এবার এই তেলের মধ্যে আপনাদের দিয়ে দিতে হবে কিছুটা পরিমাণ পেঁয়াজ কুচি এবং চিরে নেওয়া কাঁচা লঙ্কা।

আপনারা যতটা পরিমাণ ঝাল খেতে চান ততটাই কিন্তু কাঁচা লঙ্কা ব্যবহার করবেন। হালকা ভেজে নেওয়া হয়ে গেলে এর মধ্যে আপনাদের দিয়ে দিতে হবে হাফ চা চামচ পরিমাণ হলুদ গুঁড়ো, হাফ চা চামচ থেকে সামান্য বেশি পরিমাণ লঙ্কার গুঁড়ো, হাফ চা চামচ জিরের গুঁড়ো, হাফ চা চামচ আদা বাটা এবং হাফ চা চামচ রসুন বাটা। খুব সামান্য জল আপনাকে এর মধ্যে দিতে হবে যাতে তলা না ধরে যায়। তারপর ভালো করে নাড়াচাড়া করে মসলাগুলোকে কষিয়ে নিন।

৩) কিছুক্ষণ কষিয়ে নেওয়ার পরে দেখবেন মসলার মধ্যে থেকে তেল ছাড়তে শুরু করে দিয়েছে। এবার গ্যাসের আজ মিডিয়াম ফ্লেমে রেখেই কিন্তু আপনাদের পুরো রান্নাটা করে নিতে হবে। তেল কিছুটা আলাদা হয়ে গেলে আপনাদের ভেজে রাখা আলু আর করলাগুলি এর মধ্যে দিয়ে দিতে হবে। এবার সমস্ত উপকরণকে একসাথে ভালো করে মিশিয়ে নাড়াচাড়া করা নিন। এবার আপনাদের এই রান্না টিম মধ্যে পরিমাণ মতন জল দিয়ে দিতে হবে।

করলাগুলো হালকা ডুবে থাকবে ঠিক এমনটাই জল দেবেন। এবারে বেশ কিছুক্ষণ সময় পর্যন্ত ঢাকা দিয়ে এটাকে ফুটতে দিন। জল কিছুটা শুকিয়ে আসলে ধনেপাতা ছড়িয়ে দিয়ে হালকা নাড়াচাড়া করে তরকারিটিকে নামিয়ে নিন। করলার এই রেসিপি আপনারা খুব সহজেই গরম ভাতের সাথে কিন্তু দুপুরের লাঞ্চ বা রাতের ডিনারে পরিবেশন করতে পারেন। খেতে কেমন লাগলো অবশ্যই জানাতে ভুলবেন না।

Back to top button