দোকানের মতো সুস্বাদু চপ বানিয়ে নিন বাড়িতেই, এই বিশেষ পদ্ধতিতে আলুর চপ বানালে খেতে হবে দারুন সুস্বাদু ও মুখরোচক!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- বাঙ্গালিদের সন্ধ্যেবেলার সবচেয়ে প্রিয় মুখরোচক খাবার হচ্ছে আলুর চপ দিয়ে মুড়ি। শিশু থেকে বয়স্ক সকলেই কিন্তু এই খাবার খেতে অত্যন্ত পছন্দ করে থাকেন। শুধুমাত্র সন্ধ্যেবেলা নয় সকালের জলখাবার থেকে শুরু করে স্কুলের টিফিনেও কিন্তু এই চপ মুড়ি দেওয়া হয়ে থাকে। কিন্তু ধরুন বৃষ্টি এসেছে ঝেঁপে ৷ এই বৃষ্টিতে জমে যাবে মুড়ির সঙ্গে আলুর চপ ৷ তবে বাইরে বেরোতে পারছেন না? তাহলে করণীয় কি?

চটপট রেসিপি জেনে বাড়িতেই বানিয়ে ফেলুন মজাদার আলুর চপ। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা আপনাদের সাথে এই আলুর চপের রেসিপি শেয়ার করে নিতে চলেছি যা খুব সহজেই বাড়িতে তৈরি করে নেওয়া যেতে পারে। স্টেপ বাই স্টেপ পদ্ধতিতে যদি তৈরি করেন তাহলে কিন্তু এটা দোকানের থেকেও খেতে বেশি মজাদার হবে। চলুন তাহলে আর দেরি না করে আমাদের আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনটি শুরু করা যাক।

  • আলুর চপ তৈরির মজাদার রেসিপি:

১) আলুর চপ তৈরি করার জন্য আপনাদের প্রথমেই একটা ভাজা মশলা তৈরি করে নিতে হবে। এটার জন্য ফ্রাইং প্যানে দিয়ে দিন তিনটে শুকনো লঙ্কা, একটা তেজপাতা, এক চা চামচ গোটা জিরে এবং এক চা চামচ গোটা ধনে। এবার সমস্ত উপকরণকে আপনাদেরই একসাথে কয়েক সেকেন্ড শুকনো খোলায় ভেজে নিতে হবে। খুব বেশিক্ষণ সময় ধরে ভাজার দরকার নেই।

এবার এই মসলা আপনাদের আলাদা পাত্রে তুলে রেখে দিতে হবে। ভাজা মসলা ঠান্ডা হয়ে গেলে মিক্সিতে গুঁড়ো করে নিন।

তারপর আপনাদের চপ তৈরির জন্য বেসনের ব্যাটার তৈরি করে নিতে হবে। এর জন্য একটি ছাকনির সাহায্যে ছেঁকে এক কাপ পরিমাণ বেসন নিয়ে নিন। এভাবে যদি আপনারা চেলে নিতে পারেন তাহলে বেসন গোলার সময় এর মধ্যে কোন দানাদার ভাব থাকবে না। তারপর বেসনের মধ্যে দিয়ে দিতে হবে স্বাদ অনুযায়ী লবণ, পর্যাপ্ত লঙ্কার গুঁড়ো আর খুব সামান্য পরিমাণে হলুদ গুঁড়ো।

২) দ্বিতীয় ধাপে শুকনো উপকরণ গুলিকে মিশিয়ে নিয়ে জল দিয়ে আপনাদের একটা ব্যাটার তৈরি করে নিতে হবে। তবে সম্পূর্ণ জল কিন্তু একবারে দেবেন না। স্মুথ আর ঘন ব্যাটার আপনাদের তৈরি করতে হবে। অর্থাৎ এটা খুব বেশি ঘন বা পাতলা হবে না। বেসনের ব্যাটার তৈরি হয়ে যাবার পরে ঢাকা দিয়ে এটাকে আধ ঘন্টা থেকে ৪৫ মিনিট সময় পর্যন্ত রেখে দিন।

ততক্ষণ সময়ে আলুর চপের জন্য আপনাদের পুর তৈরি করে নিতে হবে। একটা বড় থালায় নিয়ে নিন চারটে সেদ্ধ করে নেওয়া আলু। খোসা সমেত এই পুর তৈরি করা হবে। আপনারা চাইলে খোসা ছাড়িয়ে নিতে পারেন। তবে দোকানে কিন্তু এটা সহকারেই তৈরি করা হয়ে থাকে আর তার স্বাদও হয় খুব সুন্দর। যাইহোক এবার আপনাদের আলু গুলিকে একটু মেখে নিতে হবে।

৩) তৃতীয় ধাপে ফ্রাইং প্যান এর মধ্যে কিছুটা পরিমাণ সরষের তেল দিয়ে মিডিয়াম সাইজের একটা কুচিয়ে নেওয়া পেঁয়াজ আপনাদের ভেজে নিতে হবে। যদি আপনারা পেঁয়াজ ব্যবহার করতে না চান সে ক্ষেত্রে এটা না করলেও চলবে। পেঁয়াজ হালকা ভাজা হয়ে গেলে এর মধ্যে দিয়ে দিতে হবে আদা, কাঁচা লঙ্কা আর রসুন কুচি। এবার সমস্ত উপকরণ গুলি কি আপনাদের দুই মিনিট সময় পর্যন্ত ভেজে নিতে হবে। চাইলে আপনারা কিন্তু এগুলিকে পেস্ট করেও ব্যবহার করতে পারেন।

মসলা তৈরি হয়ে যাওয়ার পর এতে সেদ্ধ করে রাখা আলু দিয়ে দিতে হবে। এই সময় আপনারা গ্যাসের ফ্লেম একেবারে লো তে রেখে দেবেন। সমস্ত সেদ্ধ আলু মাখা কে মসলার সঙ্গে আপনাদের ভালো করে মিশিয়ে নিতে হবে। মিনিট দুয়েক সময় কষিয়ে নেওয়ার পরে এর মধ্যে যোগ করে দিন হাফ চা চামচ জিরা গুঁড়ো, হাফ চা চামচ ধনে গুঁড়ো, সামান্য পরিমাণে হলুদ আর হাফ চা চামচ লাল লঙ্কার গুঁড়ো। স্বাদ অনুযায়ী লবণ যোগ করে ভালো করে নাড়াচাড়া করতে থাকুন।

আরো কিছুক্ষণ সময় ধরে মিডিয়াম ফ্লেমে আপনাদের আলু কষিয়ে নিতে হবে। ব্যাস তাহলেই কিন্তু আলুর চপের জন্য আলুর পুর তৈরি হয়ে যাবে। পুর তৈরি হয়ে গেলে শুরুতেই আপনারা যে ভাজা মশলা তৈরি করে রেখেছিলেন সেটাকে এর মধ্যে ছড়িয়ে দিন।

৪) এবার আরও একটি কড়াই নিয়ে চপ ভাজার জন্য পর্যাপ্ত পরিমাণে সরষের তেল আপনাদের ঢেলে দিতে হবে। চপের পুর ঠান্ডা হয়ে গেলে অল্প একটু পুর হাতে নিয়ে গোল করে নিতে হবে। এভাবে ধীরে ধীরে সম্পূর্ণ পুর গোল বলের মতন করে নিন। তারপর একটা ছোট বাটির সাহায্যে এই ফুল গুলিকে কিছুটা রুটির লেচির মতন চ্যাপ্টা করে নিন।

এবারে যে বেসনের ব্যাটার তৈরি করে রেখেছিলেন তাতে ভালো করে ডুবিয়ে গরম তেলে ভেজে নিলেই কিন্তু আপনাদের সুস্বাদু আলুর চপ তৈরি হয়ে যাবে। সহজ এই পদ্ধতিতে আলুর চপ বানাতে কিন্তু আধ ঘণ্টার বেশি সময় লাগবে না।

আমাদের আজকের এই আলুর চপের রেসিপি আপনাদের কেমন লাগলো তা অবশ্যই প্রতিবেদনের কমেন্ট বক্সে শেয়ার করে নিতে পারেন। ভালো লাগলে কিন্তু একটা লাইক আর কমেন্ট করতে ভুলবেন না।

Back to top button