রেস্টুরেন্টের স্বাদে বাড়িতে বানিয়ে নিন ‘চিকেন রেজালা’, রইলো হোটেলের স্বাদকে হার মানানো এই দুর্দান্ত রেসিপি!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- শিশু থেকে বয়স্ক সকলেই কিন্তু কমবেশি চিকেনের তৈরি বিভিন্ন রেসিপি খেতে অত্যন্ত পছন্দ করে থাকেন। তবে সবসময় একঘেয়ে পদ্ধতিতে রান্না করলে কিন্তু যে কোন খাবারই মানুষের বিরক্তির কারণ হয়ে ওঠে। তাই আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা চিকেনপ্রেমীদের জন্য একটি আলাদা ধরনের রেসিপি শেয়ার করে নিতে চলেছি।

এই রেসিপিটি হলো চিকেন রেজালা। আপনারা যারা চিকেন খেতে পছন্দ করে থাকেন তারা অবশ্যই আমাদের আজকের এই প্রতিবেদন টি মিস করবেন না। কিভাবে রান্নাটি করতে হবে তা জানার জন্য অবশ্যই আজকের এই প্রতিবেদনটি মনোযোগ সহকারে শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত পড়ে ফেলুন। আপনাদের মূল্যবান মতামত আমাদের সঙ্গে কমেন্ট বক্সে শেয়ার করে নিতে পারেন।

  • চিকেন রেজালা তৈরি করার পদ্ধতি:

১) চিকেন রেজালা তৈরি করার জন্য প্রথমেই ২০ থেকে ২৫ টা সামরিচ আপনাদের মিক্সিং জারের মধ্যে নিয়ে নিতে হবে। এবার আপনাদের একটা পাউডার তৈরি করে নিতে হবে। বিকল্প পদ্ধতিতে আপনারা কিন্তু গোলমরিচ ব্যবহার করতে পারেন।

পাউডার তৈরি হয়ে গেলে তা একটা বাটিতে ঢাকা দিয়ে রেখে দিন। এবার ওই মিক্সিং জারের মধ্যেই সাতটি রসুনের কোয়া, এক ইঞ্চি পরিমাণ আদা টুকরো,২টি মিডিয়াম সাইজের চৌকো করে কাঁটা পেঁয়াজ কুচি আর দুটি কাঁচালঙ্কা দিয়ে দিন।তারপর একটা মিহি পেস্ট তৈরি করে নিন। রেজালার জন্য যে মসলার পেস্ট আপনারা তৈরি করবেন সেটা কিন্তু একেবারে স্মুথ হতে হবে। কোন রকমের দানা বা টুকরো যাতে এর মধ্যে না থাকে।

তারপর রান্না শুরু করার জন্য আপনাদের ৭৫০ গ্রাম বোনযুক্ত চিকেন নিয়ে নিতে হবে। একটু বড় সাইজের টুকরো করে চিকেন গুলিকে কেটে নিন। তারপর ছুরির সাহায্যে আপনারা কিন্তু প্রত্যেকটা পিসের মধ্যে কাট লাগিয়ে নেবেন। এভাবে কাট করে নিলে ম্যারিনেট করার পরে মসলাগুলো খুব ভালো করে চিকেনের মধ্যে ঢুকে যাবে।

২) এরপর পেঁয়াজ রসুনের পেস্ট আপনাকে চিকেনের মধ্যে দিয়ে দিতে হবে। হাফ কাপ পরিমাণ টক দই নিয়ে নিন। ভালো করে ফেটিয়ে নেওয়ার পরে এই দই আপনাদের চিকেনের মধ্যে দিয়ে দিতে হবে। তারপর প্রথমেই যে সামরিচ গুলো আপনারা তৈরি করে রেখেছিলেন সেটাকে দিয়ে দিন কিছুটা।

স্বাদমতো লবণ দিয়ে ভালো করে চিকেনটাকে এবার মেখে নিন। যতক্ষণ বেশি সময় পর্যন্ত আপনারা চিকেন ম্যারিনেট করে রাখতে পারবেন এটা কিন্তু ততটাই সফট আর সুস্বাদু হয়ে উঠবে। অন্ততপক্ষে দুই থেকে তিন ঘন্টা অথবা যদি সম্ভব হয় তাহলে সারারাত আপনারা এই ম্যারিনেশন অবস্থায় চিকেন কে ফেলে রাখতে পারেন।

৩) তারপর একটি পাত্রের মধ্যে আপনাদের এক টেবিল চামচ পোস্ত দানা আর এক টেবিল চামচ ভাঙা কাজুর টুকরো নিয়ে নিতে হবে। কিছুটা পরিমাণ গরম জল দিয়ে এগুলিকে আপনাদের ভিজিয়ে রেখে দিতে হবে। এবং পেস্ট করে নিতে হবে।

এবারে আপনাদের নিয়ে নিতে হবে কিছু গোটা গরম মসলা। ৩ টে তেজপাতা, ২ টো এলাচ,৩ টুকরো দারচিনি,৫ টা লবঙ্গ, কয়েকটি গোটা গোলমরিচ আর জৈত্রী ফুল নিয়ে নিন। তারপর গ্যাসের ফ্লেম লো তে রেখে আপনাদের প্যানের মধ্যে পরিমাণমতো রিফাইন তেল দিয়ে দিতে হবে।

তেল গরম হতে শুরু করলে এতে আপনাদের ২ টেবিল চামচ পরিমাণ ঘি দিয়ে দিতে হবে। ঘি ব্যবহার করলে কিন্তু রেজালার স্বাদ খুবই ভালো হয়ে থাকে। তেল আর ঘি গরম হয়ে গেলে এর মধ্যে আগে থেকে সংগ্রহ করে রাখার সমস্ত গোটা গরম মসলা আর সাথে কয়েকটি শুকনো লঙ্কা দিয়ে দিতে হবে। এবার সমস্ত মসলাগুলোকে লো ফ্লেমে আপনাদের সামান্য সময় ফ্রাই করে নিতে হবে।

৪) মসলা থেকে সুন্দর গন্ধ বেরোতে শুরু করলে এর মধ্যে ম্যারিনেট করে রাখার চিকেনের টুকরো গুলিকে দিয়ে দিন। এই সময় গ্যাসের ফ্ল্যেম হাইতে করে তিন থেকে চার মিনিট সময় পর্যন্ত মাংসের টুকরোগুলোকে আপনাদের ভেজে নিতে হবে।

এবার যে অতিরিক্ত ম্যারিনেট করে রাখা মসলা বাকি ছিল সেটাকে এর মধ্যে দিয়ে দিন। একই রকম গ্যাসের ফ্লেম রেখে আপনাদের ৫ থেকে ৬ মিনিট পর্যন্ত চিকেন কষিয়ে নিতে হবে যাতে পেঁয়াজ – রসুনের কাঁচা গন্ধ চলে যায়। এবারে একটি ঢাকনার সাহায্যে ঢাকা দিয়ে কিছুক্ষণ সময় পর্যন্ত মাংস সেদ্ধ হওয়ার অপেক্ষা করুন।

রেজালার মাংস সেদ্ধ হতে কিন্তু খুব একটা সময় লাগে না। যেহেতু এটি অনেকক্ষণ ধরে ম্যারিনেট করে রাখা হয়,তাই মাংস কিন্তু খুব তাড়াতাড়ি সেদ্ধ হয়ে গিয়ে থাকে। এবার স্বাদমতো লবণ আর বাকি থাকার সামরিচের গুঁড়ো এর মধ্যে আপনারা যোগ করে দিন। রান্নার এই পর্যায়ে ১৫ থেকে ২০ টা মাখানা এর মধ্যে দিয়ে দিন।

চাইলে আপনারা এটাকে এড়িয়েও যেতে পারেন,তবে যদি রেস্টুরেন্ট স্টাইলে বানাতে চান তবে কিন্তু মাখানা আপনাকে অবশ্যই ব্যবহার করতে হবে। এরপর এতে যোগ করতে হবে কাজু ও পোস্ত বাটা, এই সময় গ্যাসের ফ্ল্যেম কমিয়ে রেখেই মাংসটাকে আপনাদের আরো কিছুক্ষণ সময় পর্যন্ত ফুটতে দিতে হবে।

ব্যাস এবার নামিয়ে নিলেই তৈরি আপনার গরম গরম চিকেন রেজালা।

আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনটি যদি আপনাদের ভালো লেগে থাকে তাহলে অবশ্যই লাইক ,কমেন্ট আর শেয়ার করে দিতে ভুলবেন না।

Back to top button