একেবারেই ঘরোয়া উপায়ে তৈরি এই স্পেশাল মশলা দিয়ে বানান ঘুগনি, খেতে হবে হুবহু দোকানের মতো!

নিজস্ব প্রতিবেদন: ঘুগনি এমন একটি চটপটা খাবার যা কমবেশি সকলেই কিন্তু খেয়েছেন। সকালের জলখাবার থেকে শুরু করে বিকেলের স্ন্যাকস অনেক ক্ষেত্রেই কিন্তু ঘুগনি পরিবেশন করা যেতে পারে। ঘুগনি তৈরি করার বিশেষ কিছু পদ্ধতি রয়েছে। নিরামিষ থেকে শুরু করে আমিষ সমস্ত ধরনের ঘুগনি কিন্তু আপনারা বানিয়ে নিতে পারেন।

তবে আমাদের আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনের আলোচ্য বিষয়বস্তু হলো ঘুগনির স্পেশাল মসলাসহ এটি তৈরির পদ্ধতি। যারা ঘুগনি খেতে ভালোবাসেন তারা কিন্তু ভুল করেও আমাদের আজকের এই প্রতিবেদনটি মিস করবেন না। চলুন তাহলে আর দেরি না করে আমাদের আজকের এই প্রতিবেদনের মূল পর্বে যাওয়া যাক।

ঘুগনি তৈরীর বিশেষ রেসিপি:

১) ঘুগনি তৈরির জন্য আপনাদের মোটামুটি ১৭৫ গ্রাম মতন মটর নিয়ে নিতে হবে। এটাকে পারলে সারারাত বা অন্ততপক্ষে ৭ থেকে ৮ ঘন্টা ভিজিয়ে রাখুন। এবার একটি বড়, আরেকটি ছোট সাইজের আলু নিয়ে খোসা ছাড়িয়ে নিন। এছাড়াও নিয়ে নিন একটা বড় টমেটো কুচি, তিন থেকে চারটি কাঁচা লঙ্কা কুচি, এক টেবিল চামচ আদা রসুন বাটা এবং একটা বড় সাইজের পেঁয়াজ কুচি। প্রেসার কুকারে মটর আর আলু দুটোকে দিয়ে দিতে হবে। তারপর এর মধ্যে মোটামুটি দুই কাপ পরিমাণ জল দিয়ে দিন।

এবারে এতে আপনাদের যোগ করতে হবে সামান্য লবণ আর হলুদ। এবার প্রেসার কুকারের ঢাকনা বন্ধ করে আপনাদের তিন থেকে চারটি সিটি দিয়ে নিতে হবে। প্রথমে লো এবং তারপর মিডিয়াম আঁচে গ্যাস রাখুন। এবার সিটি পড়ে যাওয়ার পরে আলু গুলোকে তুলে নিন। এবার একটি কড়াইতে বেশ খানিকটা পরিমাণ সরষের তেল নিয়ে নিন। এবার যে পেয়াজ কুচি করে রেখেছিলেন সেটাকে তেলে দিয়ে ভেজে নিন। আপনারা চাইলে সাদা তেলেও রান্না করতে পারেন কোন সমস্যা নেই।

২) পেঁয়াজ হালকা ভাজা হতে শুরু করলে এতে আপনাদের স্বাদ মতন লবণ যোগ করে দিতে হবে। এবার যে কাঁচা লঙ্কা কুচি করেছিলেন সেখান থেকে কিছুটা এতে যোগ করুন। আদা রসুন বাটা আর টমেটো দিয়ে দিন। বেশ কিছুক্ষণ কষিয়ে নেওয়ার পর এতে আপনাদের গুড়ো মসলাগুলোকে যোগ করে দিতে হবে। দিয়ে দিন হাফ চা চামচ হলুদ গুঁড়ো, হাফ চামচ ধনে গুঁড়ো, এক টেবিল চামচ কাশ্মীরি লঙ্কার গুঁড়ো, এক টেবিল চামচ জিরা গুঁড়ো, সামান্য বিট নুন এবং খুব সামান্য পরিমাণে চিনি। ঘুগনিতে কিন্তু একটু চিনি ব্যবহার করলে ভালো লাগবে।

৩) মসলা কষে নিয়ে যখন তেল ছাড়তে শুরু করে দেবে তখন এর মধ্যে যে আলু সেদ্ধ টা ছিল সেটাকে একটু ভেঙে বা হাত দিয়ে পিষে দিয়ে দিতে হবে। এবার আলুর সঙ্গে ভালো করে মশলাটাকে কষিয়ে নিন। আলুটা কিছুক্ষণ কষে গেলে এর মধ্যে আপনাদের ঘুগনি মটর জলশুদ্ধ দিয়ে দিতে হবে। এবার এটা সেদ্ধ হতে হতেই আপনাদের ঘুগনির মসলা তৈরি করে নিতে হবে।

মসলা তৈরির জন্য একটি কড়াইতে দিয়ে দিন তিনটে শুকনো লঙ্কা, হাফ টেবিল চামচ ধনে, হাফ টেবিল চামচ গোটা জিরে এবং হাফ টেবিল চামচ মৌরি। শুকনো খোলায় এগুলোকে সুন্দর করে রোস্ট করে নিন। তারপরে এটাকে একটু ঠান্ডা করে ব্লেন্ডারে গুঁড়ো করে পাউডার তৈরি করে নিন। ব্যাস কড়াইতে থাকা ঘুগনির মধ্যে এটাকে মোটামুটি এক টেবিল চামচ পরিমাণে দিয়ে ভালো করে নাড়াচাড়া করে ঘুগনি নামিয়ে নিন। পেঁয়াজ, কাঁচালঙ্কা কুচি ছড়িয়ে আপনারা এটাকে গরম গরম পরিবেশন করতে পারেন।

Back to top button