মাথার চুল আগের থেকে হবে আরও বেশি সিল্কি ও মজবুত, শুধুমাত্র শ্যাম্পুতে মেশান এই জিনিস

নিজস্ব প্রতিবেদন: ত্বকের পাশাপাশি চুলের সমস্যাও কিন্তু আমাদের নিত্যদিনের সঙ্গী। লক্ষ্য করে দেখবেন শীতকালের সময়ে চুল পড়ার পরিমাণ কিন্তু স্বাভাবিকের থেকে অনেকটাই বেড়ে যায়। এই সময় স্ক্যাল্পে এত পরিমাণে ধুলোবালি জায়গা করে নয় যে অল্পতেই চুলের গোড়া হালকা হতে শুরু করে। অনেকেই এর জন্য নানান ধরনের তেল আর শ্যাম্পু ট্রাই করে থাকেন যা খুব একটা কাজে দেয় না।

এর মধ্যে যদি আবার কারোর মাথায় ড্যানড্রাফ বা খুশকি থাকে তাহলে তো আর কথাই নেই। মোটামুটি সপ্তাহে দুই থেকে তিন দিন শ্যাম্পু করা ভীষণভাবে প্রয়োজন। এতে যেমন চুল থেকে ধুলোবালি দূর হয় ঠিক তেমন ভাবেই কিন্তু চুল অনেকটাই মজবুত আর সিল্কি হয়ে ওঠে।

আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনের আমরা তাই আপনাদের সঙ্গে এমন একটি শ্যাম্পু করার পদ্ধতি শেয়ার করে নেব যাতে আপনার চুলের গোড়ায় ড্যানড্রাফ আসবেনা এবং পাশাপাশি চুল হয়ে উঠবে সিল্কি। চলুন তাহলে হেয়ার ফল এবং অন্যান্য সমস্যার হাত থেকে মুক্তি পেতে আমাদের আজকের এই প্রতিবেদনটি সময় নষ্ট না করে শুরু করা যাক।

কিভাবে শ্যাম্পু করবেন?

১) শীতকালে চুলের রুক্ষতা অনেকটাই বৃদ্ধি পায় এবং সিল্কি ভাব খুব সহজেই চলে যায়। তাই শুধুমাত্র শ্যাম্পু ব্যবহার করলে কিন্তু কাজ হবে না। আজ আমরা এমন উপকরণ আলোচনা করব যা শ্যাম্পুর সাথে মিশিয়ে ব্যবহার করলে খুব সহজেই ড্যানড্রাফ দূর হয়ে যাবে এবং চুলের কোমনীয়তা বজায় থাকবে।

এর জন্য প্রথমেই একটা কাপ নিয়ে নিন। এবার এতে নিয়ে নিন কিছুটা পরিমাণে চাল। বাড়িতে যে চাল দিয়ে ভাত রান্না করেন সেটা নিলেই কাজ হবে। এরপর চাল ভালো করে পরিষ্কার করে নিন যাতে এর মধ্যে থাকা ধুলো আর ময়লা বেরিয়ে যায়। এক থেকে দেড় ঘন্টার জন্য এটাকে এবার ভিজিয়ে রাখুন।

২)এবার এই চালের জলের মধ্যে আপনাদের যোগ করে দিতে হবে হাফ স্লাইস করে কাটা পাতিলেবুর রস, এক চামচ এলোভেরা জেল, এক থেকে দেড় চামচ পরিমাণে কফি পাউডার এবং পছন্দ মতন যে কোন শ্যাম্পু। সমস্ত উপকরণ গুলিকে এবার ভালো করে একসঙ্গে মিশিয়ে ফেলুন। এবার হেয়ার ওয়াশ করার কাজ আপনাদের শুরু করে দিতে হবে।

এই শ্যাম্পু ব্যবহারের ফলে কি হবে?

প্রথমত এই শ্যাম্পু যদি আপনারা নিয়ম করে ব্যবহার করেন তাহলে খুব সহজেই ড্যানড্রাফ এবং ফাংগাল ইনফেকশন জাতীয় সমস্যা দূর হয়ে যাবে। পাশাপাশি আপনাদের চুল হয়ে উঠবে একেবারে উজ্জ্বল এবং সিল্কি। রুক্ষতার সমস্যা দূর করার জন্য সপ্তাহে দুই থেকে তিন দিন এটাকে ব্যবহার করবেন।

পাতি লেবু খুব সহজেই চুলের গোড়া পরিষ্কার করে তুলবে, অন্যদিকে এলোভেরা জেল চুলের রুক্ষতা দূর করতে সাহায্য করবে। এই শ্যাম্পু মাথায় লাগানোর পর আপনারা চাইলে সিলিকন ব্রাশ ব্যবহার করে ক্যাল্প একটু ঘষে নিতে পারেন। তাহলে চুল থেকে ড্যানড্রাফ বা খুশকি কিন্তু খুব সহজেই দূর হয়ে যাবে।

Back to top button