বাজারের থেকে একদম হাফ দামে পান শাড়ি! এখান থেকে কিনে শুরু করুন ব্যবসা, দাম পাবেন ডাবল

নিজস্ব প্রতিবেদন: সাধারণ মধ্যবিত্ত মানুষ বিগত কিছু সময় ধরেই কিন্তু ব্যবসার প্রতি আগ্রহ প্রকাশ করেছেন ব্যাপক পরিমাণে। আসলে ব্যবসা ছাড়া কখনোই কিন্তু আর্থিকভাবে স্বাবলম্বী হওয়া সম্ভব নয়। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা তাই পাঠকদের উদ্দেশ্যে শেয়ার করুন এবং একটি দুর্দান্ত বিজনেস আইডিয়া যার সাহায্যে স্বল্প পুজিতেই লাভবান হতে পারবেন আপনারা। আজকের সম্পূর্ণ ব্যবসার আইডিয়া টাই থাকছে বস্ত্র অর্থাৎ শাড়ির উপরে।

আমাদের দৈনন্দিন জীবনে এই শাড়ির চাহিদা ঠিক কতখানি তা কম বেশি আপনারা সকলেই জানেন। বহু মহিলারাই কিন্তু রেগুলার ইউজ থেকে শুরু করে বিশেষ দিনের জন্য শাড়ি কিনে থাকেন। সকল বয়সী মেয়েদের মধ্যেই এই শাড়ির প্রতি ভালোবাসা লক্ষ্য করা যায়। সুতরাং এই ব্যবসায় আপনাকে কিন্তু কখনোই লোকেশন এর মুখোমুখি পরতে হবে না।

আজ আমরা আপনাদের সাথে যে শাড়ির ব্যবসা শেয়ার করে নেব সেটা সম্পূর্ণভাবে একটু ভিন্ন ধরনের হতে চলেছে। কারণ আজ আমরা বলবো লটের শাড়ি নিয়ে ব্যবসার কথা। যারা এই বিষয়টা জানেন না সেই সমস্ত পাঠকদের উদ্দেশ্যে প্রথমেই বলে রাখি লটের শাড়ি হল এমন কিছু জিনিস বা পণ্য যেগুলো তৈরীর সময়ে কালার থেকে শুরু করে প্রিন্টিং এর কিছু ডিসপুট হয়ে যায়।

বাজারে কিন্তু অত্যন্ত কম দামের উপরে এই শাড়ি বিক্রি করা হয়ে থাকে। সুতরাং যারা নতুন ব্যবসার কাজ শুরু করেছেন এবং শাড়ি নিয়ে ব্যবসা শুরু করতে চান তারা কিন্তু সহজেই এই লটের মাল নিয়ে নিজেদের কাজ চালু করতে পারেন।। এতে আপনারা যেমন গ্রাহকদের অত্যন্ত কম দামে পণ্য বিক্রি করতে পারবেন; ঠিক তেমনভাবেই কিন্তু পাইকারি রেটেও এই শাড়িগুলোর মূল্য অত্যন্ত কম দাম থেকেই শুরু হবে।

আজ আমরা আপনাদের সাথে এমন একটি ম্যানুফ্যাকচারিং ইউনিটের ঠিকানা শেয়ার করে দেবো যেখানে মাত্র ৬৮ টাকা থেকে লটের বিভিন্ন ভ্যারাইটির শাড়ি আপনারা পেয়ে যাবেন। এর মধ্যে প্রিন্টের শাড়ি থেকে শুরু করে হ্যান্ডলুম, সিল্ক অথবা তাঁত সবকিছুই রয়েছে। শাড়িগুলোতে কিন্তু বিশেষ কোনো ডিসপুট নেই আর থাকলেও সেটা চট করে সাধারণ মানুষের নজরে আসবে না। যারা একেবারে স্বল্প মূলধনের ব্যবসা শুরু করতে চান এটা তাদের জন্য একটা পারফেক্ট পরিকল্পনা।

৬৮ টাকা থেকে পণ্যের দাম শুরু হলেও মোটামুটি যদি আপনারা কাপড় আর কালারের উপর ওয়ারেন্টি নিতে চান সে ক্ষেত্রে কিন্তু ৯০ থেকে ১২০ টাকার মধ্যেই বিভিন্ন শাড়ি পেয়ে যাবেন। খুব দূরবর্তী স্থানে বসবাস করেন এমন মানুষরাও কিন্তু এখান থেকে পণ্য কিনে নিতে পারেন। তার জন্য ভিডিও কলের সুব্যবস্থা রয়েছে।

পাইকারি রেটে এখান থেকে পণ্য কিনে নেওয়ার পরে লোকাল মার্কেটে খুব সহজেই যে কোন স্টল বা দোকানের সাহায্য নিয়ে আপনারা প্রফিট রেখে এগুলো বিক্রি করে প্রায় ৩০ থেকে ৪০ হাজার টাকা পর্যন্ত মাসিক ভিত্তিতে উপার্জন করতে পারবেন। আজকের এই পরিকল্পনা ভালো লাগলে অবশ্যই শেয়ার করে নিতে ভুলবেন না। পণ্য কেনার জন্য নিজের দেওয়া ঠিকানায় যোগাযোগ করতে পারেন।

Address : Santipur, Nadia, west bengal.
Contact/whatsapp : 8918647910/7001992533

Back to top button