নতুন বছরে করুন স্বপ্ন পূরণ! খুবই অল্প ইনভেস্টে শুরু করুন এই ইউনিক ব্যবসা, মাসে ইনকাম হবে ২৫ হাজার

নিজস্ব প্রতিবেদন: মানুষ সব সময় চেষ্টা করেন একেবারে কম খরচের মধ্যে ভালো ব্যবসা শুরু করার। কারণ বহু মানুষ রয়েছেন যারা বেশি ইনভেস্টমেন্ট করে কিন্তু ব্যবসা শুরু করা পছন্দ করেন না। যদি কোনো কারণে ব্যবসায় লোকসান চলে আসে সেক্ষেত্রে কিন্তু বড়সড়ো অংকের অর্থ ব্যয় হতে পারে এটাই ভাবেন মানুষ। কিন্তু আজকালকার দিনে স্বল্প বাজেটের ব্যবসা প্রায় নেই বললেই চলে। থাকলেও সেই সম্পর্কে সাধারণ মানুষের বিশেষ কোনো ধারনা নেই।

বিশেষ করে যারা নতুন ব্যবসায়ী রয়েছেন তারা সর্বদা মার্কেটে যে সমস্ত প্রোডাক্টের প্রতিদ্বন্দ্বিতা বেশি সেই সমস্ত জিনিসকেই ব্যবসা করার জন্য বেছে নেন। যা একেবারেই উচিত নয়। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা তাই আপনাদের সাথে একেবারে সহজ সরল ব্যবসার আইডিয়া শেয়ার করে নিতে চলেছি। যেকোনো জায়গাতেই আপনারা এই ব্যবসাটা একেবারে স্বল্প খরচে শুরু করতে পারবেন। চলুন তাহলে এই ব্যবসাটি সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক।

পেপার প্লেট তৈরির ব্যবসা:

বর্তমান সময়ে আমাদের দেশের বাজারে পেপার কাপ থেকে শুরু করে পেপার প্লেট প্রভৃতি জিনিসগুলো যে কতটা বেশি রকমের জনপ্রিয় তা আপনারা সকলেই জানেন। খাবার পরিবেশন এর জন্য উৎসব অনুষ্ঠান থেকে শুরু করে সকল জায়গাতেই এই পেপার প্লেট ব্যবহার করা হয়ে থাকে। এতে খরচা যেমন অনেক কম ঠিক তেমনভাবে লাভও খুব বেশি। পেপার প্লেট তৈরি করার জন্য বিশেষ কিছু ঝামেলার প্রয়োজন নেই।

নিজেদের মূলধনের পরিমাণ অনুযায়ী আপনাদের শুরুতেই মেশিন কিনে নিতে হবে। তারপর পেপার প্লেট তৈরি করে সেটাকে প্যাকিং করে বাজারে সাপ্লাই করতে হবে। মার্কেটের যে কোন দোকানেই কিন্তু খুব সহজে পেপার প্লেট আপনারা দিতে পারেন। আবার চাইলে অনেক হোটেল বা রেস্টুরেন্টে ও এগুলো সাপ্লাই করতে পারেন।

পেপার প্লেট তৈরি করার জন্য আমরা প্রথম যে ম্যানুয়াল মেশিনটির কথা বলবো সেটা মাত্র ১৫ থেকে ২০ হাজার টাকার মধ্যে আপনারা পেয়ে যাবেন। এত স্বল্প খরচে কিন্তু কোন মেশিন আপনারা পাবেন না। এটার মধ্যে হিট কন্ট্রোলার থেকে শুরু করে ডাই সবকিছুর ব্যবস্থাই একসঙ্গে করা রয়েছে। যদি আপনারা আরো একটু বড় পরিসরে ব্যবসা শুরু করতে চান সেক্ষেত্রে সিঙ্গেল ডাইয়ের অটোমেটিক মেশিন নিয়ে নিতে পারেন।

মোটামুটি ফুল সেটআপ নিতে গেলে এটাতেও খুব বেশি খরচ কিন্তু প্রয়োজন নেই। মেশিনের মাধ্যমে খুব সহজেই আপনারা পেপার প্লেট তৈরি করে নিতে পারবেন। এই ব্যবসা শুরু করার জন্য প্রাথমিক অবস্থায় বিশেষ কোনো লাইসেন্সের আপনাদের প্রয়োজন নেই তবে চাইলে মেশিনের সাথে কিন্তু ট্রেড লাইসেন্স তৈরি করিয়ে নিতে পারেন। যাতে ভবিষ্যতে কোন সমস্যা না হয়।

ট্রেড লাইসেন্স এর জায়গায় আরো একটা লাইসেন্স আপনাদের প্রয়োজন হবে সেটা হলো gst। যখন আপনার ব্যবসা কুড়ি লাখ টাকার টান ওভারের কাছাকাছি পৌঁছে যাবে তখন এটি আপনাদের অবশ্যই তৈরি করিয়ে নিতে হবে। চলুন তাহলে প্রতিবেদনের সর্বশেষ বিষয় অর্থাৎ ব্যবসার জন্য প্রয়োজনীয় মেশিনের কাছাকাছি চলে আসা যাক।

যদি আপনারা মেশিন কিনতে আগ্রহী রয়েছেন এবং এই ব্যবসা দ্রুত শুরু করতে চান সেক্ষেত্রে নিজের দেওয়া ম্যানুফ্যাকচারিং ইউনিটে যোগাযোগ করে নিতে পারেন। মেশিন কেনার পরে ইনস্টলেশন থেকে শুরু করে সমস্ত সুবিধাই এখানে করে দেওয়া হবে।

Jay mata di engineering.
Prop – Mr.Rakesh wadhawan.
Address – 15,Ram kamal street,khidderepore,fancy Market,near Sarat pal school, kolkata -23 .
Contact – 8442878162/9831927531

Back to top button