যেকোনো রান্নায় নুন দেওয়ার সময় মেনে চলুন এই একটি সহজ গোপন ট্রিকস, রান্নায় নুনের মাপ হবে একদম পারফেক্ট

নিজস্ব প্রতিবেদন: লবণ ছাড়া কিন্তু চট করে কোন খাবার ভাবাই যায় না। যেকোনো দেশীয় রান্না হোক অথবা বিদেশি কুইজিন সবকিছুতেই থাকে নুন এর ব্যবহার। যারা একেবারে পারফেক্ট রাঁধুনি রয়েছেন তারা অল্প দেখেই বলে দিতে পারেন কোন রান্নায় কতটা লবণ প্রয়োজন!

তবে নতুন গৃহিণীদের কিন্তু এই ক্ষেত্রে বিশেষ সমস্যা হয়। কারণ চট করে লবণের পরিমাণ বুঝতে না পারলে রান্নার স্বাদ খারাপ হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। তবে আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা আপনাদের জন্য নিয়ে চলে এসেছি কয়েকটি সমাধান। কিভাবে রান্নায় লবণের পরিমাণ ঠিক করবেন চলুন কয়েকটি টিপসের মাধ্যমে জেনে নেওয়া যাক।

রান্নার সময় লবনের মাপ কিভাবে ঠিক করবেন?

১) যদি আপনি নতুন গৃহিণী হয়ে থাকেন সেক্ষেত্রে তরকারির পরিমাণ অনুযায়ী আপনাকে কিন্তু লবণের মাপ ঠিক করতে হবে। এক চিমটে বা হাফ চামচ করে ব্যবহারের চেষ্টা করুন। তারপর চেখে দেখে নেবেন লবণের পরিমাণ কম বা বেশি হয়েছে কিনা! সেইমত লবণ যোগ করবেন। একবারে অতিরিক্ত লবণ দেবেন না।

২)প্রথমেই অনেকটা নুন দেয়া না হয়। প্রথমে খুব অল্প করে দেবেন, প্রয়োজনে পরে নুন বাড়িয়ে দিবেন। তবে নুন যদি বেশি পড়েই যায় তাহলে আলু কেটে তরকারিতে দিয়ে দিবেন। তাহলে এই আলু অতিরিক্ত লবণ শোষণ করে নেবে।

৩) তরকারি টেস্ট করে দেখার আগে আপনারা ঘ্রাণ শুকেও দেখতে পারেন। ঘ্রাণ সুন্দর আসলে কিন্তু বুঝে যাবেন লবণ আর অন্যান্য মসলা একেবারে সঠিক রয়েছে।

বিভিন্ন রান্নায় লবণের পরিমাপ:

অনেকেই আন্দাজমতো লবণ ব্যবহারের চেষ্টা করেন। অনেক সময় যেমন ঠিকঠাক নুনের পরিমাণ হয়ে যায় আবার অনেক সময় কিন্তু কম বেশিও হয়ে যেতে পারে। সুতরাং যে কোন রান্নায় লবণ প্রয়োগের আগে আপনাদের একটা স্পষ্ট ধারণা থাকা প্রয়োজন। তাহলে আর এই সমস্যা কখনোই হবে না।

১)প্রতি ৪ কাপ স্যুপ, সস, স্টক, গ্রেভির হিসেবে আপনারা এক চা চামচ লবণ ব্যবহার করতে পারেন।

২) বোনলেস চিকেন রান্নার জন্য মোটামুটি ১ থেকে ২ চামচ লবণ প্রয়োজন।

৩) আটা বা ময়দার ডো তৈরি করার সময় প্রত্যেক চার কাপের জন্য এক চামচ লবণ প্রয়োজন হবে।পিজ্জার ডো হলে প্রতি ২ কাপ ময়দার জন্য ১ চা চামচ নুন লাগবে।

৪) এবার আমরা আসব সবজির কথায়।সবজি সেদ্ধ করার সময় প্রতি ৩ কাপ জল বা আধা কিলো সবজির জন্য ১ চা চামচ লবণ ব্যবহার করবেন।

একটা নির্দিষ্ট মাপ তৈরি করা থাকলেও আপনারা অবশ্যই লবণের পরিমাণ একবার যাচাই করে নেবেন রান্না চলাকালীন। যাতে কোনরকম ভাবে কম বেশি না হয়ে যায়। খাবারের পরিমাণ অনুযায়ী কিন্তু লবণের পরিমাণ কম বেশি হতে পারে। তাই এটা বিশেষভাবে প্রয়োজন।

Back to top button