সকলেই খেয়ে বলবে দারুণ! শুধু ময়দা মাখার সময় দিন এই একটি জিনিস, পরোটা হবে নরম তুলতুলে

নিজস্ব প্রতিবেদন: পরোটা বা লুচি এমন একটি খাবার যা কমবেশি প্রায় প্রত্যেক বাড়িতেই কিন্তু সকালের জলখাবার থেকে শুরু করে রাতের ডিনার হিসেবে পরিবেশন করা হয়ে থাকে। শিশু থেকে শুরু করে বয়স্ক সকল ব্যাক্তিরাই কিন্তু এটি খেতে অত্যন্ত পছন্দ করেন। স্কুলের বা অফিসের টিফিনের জন্যেও কিন্তু বেশিরভাগ গৃহিণীরা এটাকেই তৈরি করে থাকেন বা প্রাধান্য দিয়ে থাকেন। বাংলা থেকে শুরু করে প্রতিবেশী রাজ্যগুলিতেও কিন্তু এই খাবারের ব্যাপকভাবে চল রয়েছে।

তবে লুচি বা পরোটা তৈরি করার সময় যে সমস্যাটা সবথেকে বেশি দেখা যায় তা হল কিছু সময়ের মধ্যেই এটা শক্ত হয়ে যাওয়া। স্বাভাবিকভাবে এই শক্ত হয়ে যাওয়ার পরে লুচি আর পরোটা খাবার মতন অবস্থাতে কিন্তু থাকে না। পরোটা বা লুচি অনেক রকম ভাবেই তৈরি করা হয়ে থাকে। সাধারণ পরোটা থেকে পুর দিয়ে তৈরি করা পরোটা আপনারা অনেক কিছুই এই ক্ষেত্রে পেয়ে যাবেন। তবে পারফেক্ট পরোটা তৈরির পদ্ধতি না জানলে কিন্তু আপনাদের সমস্ত পরিশ্রম মাঠে মারা যেতে চলেছে।

আসলে গৃহিণীরা যারা পরোটা তৈরি করে থাকেন তাদের মধ্যে অনেকেই কিন্তু এর পারফেক্ট পদ্ধতি জানেন না। যার দরুন বানানোর কিছুক্ষণের মধ্যেই এটা শক্ত হয়ে গিয়ে থাকে এবং খাওয়ার উপযোগী থাকে না। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা আপনাদের সঙ্গে পরোটা তৈরীর বিশেষ কিছু টিপস শেয়ার করে নিতে চলেছি। চলুন তাহলে আর সময় নষ্ট না করে প্রতিবেদনের মূল পর্বে যাওয়া যাক।

পরোটা নরম রাখার বিশেষ কিছু টিপসঃ

১) পরোটা তৈরি করার জন্য আটা বা ময়দা যাই ব্যবহার করুন না কেন, সর্বদা এটাকে ভালো করে চেলে ব্যবহার করার চেষ্টা করবেন। পাশাপাশি ময়দা মাখার সময় উষ্ণ গরম জল বা দুধ ব্যবহার করতে ভুলবেন না। সাধারণ জলের পরিবর্তে আপনারা যদি এই  উপকরণ ব্যবহার করে থাকেন তাহলে কিন্তু ময়দার ডো অনেকটাই নরম হবে, যার ফলস্বরূপ পরোটাও বেশিক্ষণ সময় নরম থাকবে।

২) পরোটা নরম করার জন্য আপনারা ঘি বা মাখন এর সাহায্যে সামান্য গরম করেও নিতে পারেন। বিকল্প হিসেবে আপনারা বাটার মিল্ক ব্যবহার করতে পারেন যা পরোটাকে নরম রাখতে সাহায্য করবে।

৩) পরোটা তৈরীর জন্য আপনারা যখন ময়দা মাখবেন তখন চেষ্টা করবেন এতে সামান্য পরিমাণ বেকিং সোডা দিয়ে দেওয়ার। এটি পরোটাকে নরম রাখতে সাহায্য করবে।

৪) চতুর্থ টিপস হিসেবে আমরা বলব, জলের বদলে টকদ‌ই দিয়ে ময়দা মাখলেও পরোটা নরম হবে। এছাড়া সাধারণ জলের পরিবর্তে ছানার জল দিলেও সেই ময়দার পরোটা নরম হবে।

৫) পরোটা তৈরীর জন্য আপনারা যে ময়দার ডোটি মাখবেন সেটা কে কিছুক্ষণ মাখার পরে ভেজা কাপড় দিয়ে ঢেকে রাখতে ভুলবেন না। এছাড়াও ডো তৈরির সময় আপনারা তেল ব্যবহার করতে পারেন। মনে রাখবেন,ডো যত ভালো করে সময় নিয়ে মাখা হবে পরোটা কিন্তু তত বেশি সময় নরম রাখা যাবে।

৬) যখন আপনারা পরোটা ভাজবেন তখন কিন্তু সবকটা একেবারে ভাজবেন না। অর্থাৎ পরোটা ভাজার সময় একটি একটি করে ফ্রাইং প্যানে দিয়ে ভালো করে ভাজতে হবে। এই ব্যাপারটি বিশেষভাবে লক্ষ্যণীয়।

৭) আজকের এই প্রতিবেদনের সর্বশেষ টিপস হিসেবে আমরা বলব যে ভাজার পর পরোটা খোলা অবস্থায় ফেলে না রেখে যেকোনো এয়ারটাইট পাত্রে ভরে রাখবেন। তাহলে পরোটা কিন্তু দীর্ঘক্ষণ সময় পর্যন্ত নরম থাকবে এবং খাওয়ার উপযোগী থাকবে। আজকের এই প্রতিবেদনে যে সমস্ত টিপস আলোচনা করা হলো এবার থেকে পরোটা তৈরি করার সময় আপনারা কিন্তু অবশ্যই এই বিষয়গুলি খেয়াল রাখবেন এবং ফলাফল দেখে নেবেন।।

Back to top button