জানেন গাছের গোড়াতে বাসি ভাত ব্যবহার করলে কি হয়? জানলে আজ থেকেই ট্রাই করবেন আপনিও

নিজস্ব প্রতিবেদন: ছাদ বাগানে বা কিচেন গার্ডেনে নানান ধরনের গাছপালা লাগাতে কিন্তু অনেকেই কমবেশি পছন্দ করে থাকেন। তবে বাড়িতে যাই গাছ লাগান না কেন তার যদি সঠিক যত্ন করতে না পারেন সেটা কিন্তু কোনভাবেই বাঁচতে পারবে না। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা আপনাদের সাথে এমন কিছু টোটকা-ই শেয়ার করে নিতে চলেছি যা আপনার বাড়ির বাগানের জন্য কার্যকরী হবে।

দেখবেন বাড়ির বাগানে অনেক সময় অনেক ধরনের সমস্যা দেখা দেয় যার সমাধান হয়তো আমাদের জানা থাকে না। যেমন গাছে কখনো মিলি বাগের আক্রমণ হলে কি করনীয়? অনেকেই হয়তো বিভিন্ন ধরনের সার প্রয়োগের কথা বলবেন তবে আমরা আজ আলোচনা করব এই সমস্যা দূর করতে একটি সম্পূর্ণ ঘরোয়া সমাধানের কথা।

মিলিবাগ দূর করতে আপনারা দু ধরনের পেস্টিসাইড বানিয়ে নিতে পারেন। আসুন জেনে নেওয়া যাক কিভাবে এগুলো তৈরি হবে। প্রথম যে পেস্টিসাইড টির কথা আমরা বলব তাতে একটা বোতল নিতে হবে যার মধ্যে ১/২ কাপ ভাত, ৫০০ মিলিলিটার নেবেন। খোলা আকাশের নিচে মোটামুটি দশ দিন পর্যন্ত এই বোতলটাকে রাখবেন।

দশ দিনের মধ্যেই দেখতে পাবেন যে,ভাতের ওই দ্রবণ ফার্মেন্ট হয়ে ইথাইল অ্যালকোহলে পরিণত হয়ে যাবে। এই মিশ্রণটি যদি আপনারা গাছে স্প্রে করে দশ মিনিট অপেক্ষা করার পর জল দিয়ে ধুয়ে দেন তাহলে কিন্তু মিলিবাগের আক্রমণ থেকে মুক্তি পেয়ে যাবেন।

যদি চিরতরে এই সমস্যার সমাধান করতে চান তাহলে গাছের আপনারা আরও একটা পেস্টিসাইড তৈরি করে নিতে পারেন। তার জন্য কিছুটা পরিমাণ নিমপাতা নেবেন এবং সেটাকে ভালো করে শিলনোড়াতে থেতলে নেবেন। এই বাটার কাজে কিন্তু ভুল করেও মিক্সার গ্রাইন্ডার আপনারা ব্যবহার করবেন না কারণ এতে তাপমাত্রায় অনেক পরিবর্তন আসতে পারে।

থেঁতো করা হয়ে গেলে নিম পাতায় জল মিশিয়ে ছেঁকে নেবেন। ব্যাস তাহলেই তৈরি হয়ে গেল এই দ্বিতীয় প্রকার পেস্টিসাইড। মিশ্রণটি স্প্রে বোতলে নিয়ে, সপ্তাহে দুবার প্রথম পেস্টিসাইডটি প্রয়োগ করার ১০ মিনিট পরে আক্রান্ত গাছে স্প্রে করতে হবে। তাহলেই হয়ে যাবে আপনার সমস্ত সমস্যার সমাধান।

Back to top button