লেবুর খোসা ফেলে না দিয়ে করুন চমৎকার এই কাজগুলো, রইলো লেবুর খোসার ১০ টি টিপস

নিজস্ব প্রতিবেদন: লেবু একটি পুষ্টিকর ফল হওয়ার পাশাপাশি অত্যন্ত কার্যকরী একটি জিনিস। লেবু খেতে কিন্তু কমবেশি সকলেই ভালোবাসেন এবং আমাদের বাড়িতে প্রায় এই ফল নিয়ে আসা হয়। সাধারণত লেবু খাওয়ার পরে এই খোসা ফেলে দেওয়া হয়ে থাকে। তবে আপনারা হয়তো অনেকেই জানেন না যে লেবুর খোসা কতটা পরিমাণে কাজে লাগতে পারে। আমাদের আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা আলোচনা করতে চলেছি লেবুর খোসার কিছু বিশেষ কার্যকরিতা নিয়ে। এগুলি জানলে কিন্তু আপনার আর কখনো লেবুর খোসা ফেলে দিতে পারবেন না। চলুন তাহলে আর দেরি না করে আমাদের আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনটি শুরু করা যাক।

  • লেবুর খোসার বিশেষ দশটি ব্যবহার:

১) আমরা সাধারণত বিভিন্ন সবজি কাটার জন্য চপিং বোর্ড ব্যবহার করে থাকি। এই চপিং বোর্ড কিন্তু আপনাদের নিয়মিত পরিষ্কার করে নেওয়া প্রয়োজন। তার জন্য সামান্য পরিমাণে বেকিং সোডা নিয়ে লেবুর খোসার সাহায্যে ঘষে নিলেই চপিং বোর্ড সম্পূর্ণরূপে পরিষ্কার হয়ে যাবে এবং এর মধ্যে কোনরকম দুর্গন্ধ থাকলে সেটাও কিন্তু সহজেই চলে যাবে।

২) রান্নাঘরের সিঙ্ক কিন্তু আপনাদের জন্য একটি অত্যন্ত প্রয়োজনীয় জায়গা যেখানে নানান ধরনের কাজ করা হয়ে থাকে। এটি পরিষ্কার করাও কিন্তু নিয়মিত আপনাদের জন্য অত্যন্ত প্রয়োজন। এটার জন্য আপনারা সিঙ্কের মধ্যে কিছুটা পরিমাণ লবণ নিয়ে নিতে পারেন তারপর ঠিক আগের মতোই একটি লেবুর খোসা ব্যবহার করে যদি ভালো করে ঘষে নেন তাহলে কিন্তু দেখবেন খুব সহজেই এটা পরিষ্কার হয়ে যাবে। আপনারা হয়তো অনেকেই এই পদ্ধতিটি জানতেন না।

৩) নরমাল ফ্রিজে সাধারণত শাকসবজি বা ফলমূল রাখলে একপ্রকার মিশ্র গন্ধ তৈরি হয় যা খাবারে চলে গেলে কিন্তু খুব বাজে একটা ব্যাপার হবে।। এমনকি এই গন্ধের প্রভাব এতটাই থাকে যে খাবার ঠিকমতো খাওয়া যায় না। এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য আপনারা যদি লেবু ব্যবহার করার পরে তার খোসার অংশটি কয়েক টুকরো ফ্রিজের মধ্যে রেখে দিতে পারেন যে কোন কোনায়, তাহলে কিন্তু ফ্রিজের যেকোনো রকমের বাজে গন্ধ সহজেই দূর হয়ে যাবে। এটা কিন্তু অত্যন্ত কার্যকরী একটা পদ্ধতি, আপনারা অবশ্যই ট্রাই করে দেখবেন।

৪) চতুর্থ টিপসটি করার জন্য আপনাদের প্রথমেই গ্যাসে জল গরম করে নিয়ে তাতে দুই টুকরো দারচিনি আর কয়েকটি লেবুর খোসা দিয়ে দিতে হবে। এবারে আপনাদের এই জলটাকে কিছুক্ষণ ভালো করে ফুটিয়ে নিতে হবে। এই মিশ্রণটি কিন্তু আপনাদের বাড়িতে ফ্রেশনারের কাজ করতে পারে। রান্নাঘরের যে কোন রকমের বাজে গন্ধ এই মিশ্রণের সাহায্যে আপনারা খুব সহজেই দূর করে নিতে পারবেন। বেশ কিছুক্ষণ জল ফুটিয়ে নেওয়ার পরে একটি ছাঁকনির সাহায্যে ছেঁকে নিয়ে এই মিশ্রণটিকে স্প্রে বোতলে ভরে রাখুন। এরপর প্রয়োজনমতো স্প্রে করে দিন।

৫) দীর্ঘ সময় ধরে যদি আপনারা চায়ের কাপ ঠিক ভাবে পরিষ্কার করে না থাকেন সেক্ষেত্রে কিন্তু এই কাপের মধ্যে একটা বাজে ধরনের লালচে দাগ হয়ে যায়। এই বাজে দাগ দূর করার জন্য একটা লেবুর খোসার মধ্যে কিছুটা পরিমাণে লবণ লাগিয়ে ভালো করে কাপ ঘষে নিতে হবে। তাহলে কিন্তু এই লালচে দাগ উঠে গিয়ে চায়ের কাপ সম্পূর্ণ রূপে পরিষ্কার হয়ে যাবে।

৬) রান্না ঘরের বিভিন্ন কাজে আমরা যে সমস্ত ছুরি বা চাকু ব্যবহার করে থাকি সেগুলিতে কিন্তু কিছুদিন অন্তর অন্তরে এক ধরনের মরিচা পড়ে যায় বা দাগ হয়ে যায়। সেক্ষেত্রে লেবুর খোসা ব্যবহার করে ভালোভাবে ঘষে নিলেই কিন্তু সমস্যা মুক্ত হয়ে যাবেন।

৭) পিঁপড়ের দূর করার জন্যও কিন্তু লেবুর খোসা মুখ্য ভূমিকা পালন করতে পারে। তার জন্য কয়েকটি লেবুর খোসা নিয়ে যেসব জায়গা থেকে পিঁপড়ে বেশি আক্রমণ করে থাকে বা যেখানে পিঁপড়ের উপদ্রব সব থেকে বেশি দেখা যায় সেখানে যদি রেখে দিতে পারেন, ফলাফল আপনারা হাতেনাতেই দেখতে পারবেন।

৮) সিরামিক বা কাচের বাটি থাকলে খুব সহজেই কিন্তু লেবুর খোসা ব্যবহার করে তা আপনারা একেবারে ঝকঝকে করে নিতে পারেন। এর জন্য অন্য কিছু ব্যবহার করার দরকার হবে না শুধুমাত্র লেবুর খোসা দিলেই কিন্তু কাজ হয়ে যাবে। একটি লেবুর খোসা নিয়ে ভালো করে সিরামিকের বাটি বা কাছের বাটিতে ঘষে নিলেই এগুলি একেবারে নতুনের মতন চকচক করতে থাকবে।

৯) আমরা বিভিন্ন জিনিসপত্র রাখার জন্য কিন্তু ড্রয়ার ব্যবহার করে থাকি। তবে অনেক সময় এর মধ্যে বাজে গন্ধ হয়ে যায় বা একটা স্যাতস্যাতে ভাব দেখা যায়। কিন্তু যদি আপনারা এখানে লেবুর খোসা রেখে দিতে পারেন তাহলে কিন্তু সহজেই একটা ফ্রেশনেশ চলে আসবে।

১০) আজকের প্রতিবেদনের সবশেষে যে টিপসটি আমরা আপনাদের সাথে শেয়ার করে নিতে চলেছি সেটি হল পেঁয়াজ রসুনের গন্ধ হাত থেকে দূর করার উপায়। রান্নাঘরে কাজ করার পর আমাদের সকলের হাতেই কিন্তু পেঁয়াজ রসুনের গন্ধ লেগে গিয়ে থাকে। এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য আপনারা যদি একটু লেবুর খোসা নিয়ে ভালো করে হাতে ঘষে দেন তাহলেই কিন্তু এই গন্ধ চলে যাবে।

Back to top button