রান্নাঘরে এলপিজি গ্যাস ব্যবহারের সময় ভুলেও করেন না তো এই কাজগুলি! সাবধান! নইলে হবে বড়ো ক্ষতি

নিজস্ব প্রতিবেদন: গ্রাম শহর নির্বিশেষে আজকাল প্রত্যেক বাড়িতেই কিন্তু রান্নার জন্য এলপিজি সিলিন্ডার ব্যবহার করা হয়ে থাকে। এই সিলিন্ডার ব্যবহার করার সময় প্রত্যেক মানুষের বিশেষ কিছু সতর্কতা অবলম্বন করতে হয়। না হলে নানান ধরনের বিপত্তি ঘটতে পারে। এলপিজি সিলিন্ডার ব্যবহার করার সময় কিছু ভুল আছে যেগুলো কখনোই করা উচিত নয়। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা সেই বিষয় নিয়েই বিস্তারিত আলোচনা করতে চলেছি।

বাড়িতে এলপিজি সিলিন্ডার ব্যবহার করলে যে ধরনের ভুল কখনোই করবেন না:

১) সিলিন্ডার বহন করার সময়:

যখন সিলিন্ডার নিয়ে আসা হবে তখন কিন্তু অবশ্যই ভালো হবে দেখে নেওয়া উচিত যে সেটা ঠিক অবস্থায় আছে কিনা! সিলিন্ডারে কোন রকমের ফুটো আছে কিনা অথবা গ্যাস লিক হচ্ছে কিনা এই দুটো বিষয়ে অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে। যদি গ্যাসের লিকেজ নজরে আসে সেক্ষেত্রে এটিতে সুরক্ষা ক্যাপ রাখুন এবং অবিলম্বে এটি ফিরিয়ে দিন। যদি লিকেজ বেশি হয়, তাহলে খোলা জায়গায় তুলে নিয়ে এজেন্সি ও ডিপোতে রিপোর্ট করুন। খুব সাবধানতার সাথে সম্পূর্ণ কাজটি করবেন।

২) সিলিন্ডার নেওয়ার সময় যে জিনিসগুলো চেক করতে হবে:

যখন বাড়িতে নতুন সিলিন্ডার আসবে সেই সময় এর উপরে থাকা সুরক্ষা ক্যাপ আর কোম্পানির সিল ভালোভাবে পরীক্ষা করতে হবে। যদি কোথাও সমস্যা থাকে তাহলে তখনই ধরা পড়ে যাবে।গ্যাসের সাথে আসা সেফটি ক্যাপটি গ্যাসের সাথেই বেঁধে রাখুন। এটা ভুলেও ফেলে দেবেন না। এই তিনটে জিনিস কিন্তু অবশ্যই মাথায় রাখবেন।

৩) সিলিন্ডার খালি হলে কি করবেন ?

যখন গ্যাসের সিলিন্ডার খালি থাকে তখনও কিন্তু আপনাদের কিছু সতর্কতা অবশ্যই অবলম্বন করতে হবে।এটি একটি নিরাপত্তা ক্যাপ সহ ঘরের শীতল এবং বায়ুচলাচল স্থানে রাখুন। রান্নাঘরে বা গরম স্থানে রাখবেন না। যখন আর গ্যাসের প্রয়োজন থাকবে না অর্থাৎ সমস্ত কাজ হয়ে যাবে তখন কিন্তু অবশ্যই রেগুলেটর নব বন্ধ করে দেবেন। রাতে ঘুমানোর আগেও এই কাজটা আপনাদের করতে হবে।

৪) সিলিন্ডারের অবস্থান:
খেয়াল রাখবেন এলপিজি সিলিন্ডার যেন সবসময় মাটিতে খাড়া অবস্থায় থাকে। গ্যাসের আশেপাশে জানালার আর দরজার পর্দা জাতীয় কোন রকমের কাপড় কিন্তু রাখবেন না।

৫) গ্যাস ব্যবহারের সময়:

গ্যাস ব্যবহার করার সময় অর্থাৎ কোন রান্না করার সময় কিন্তু আপনাদের অবশ্যই সুতির কাপড় পড়তে হবে। অনেকেই রান্নাঘরে সিন্থেটিক কাপড় পড়ে কাজ করে থাকেন। এটা কিন্তু একেবারেই উচিত না। আগে দেশলাই জালাবেন ঠিক তারপর গ্যাস চালু করবেন।

৬)দাহ্য পদার্থ থেকে দূরত্ব:

সিলিন্ডারের আশেপাশে কিন্তু কোন রকমের দাহ্য পদার্থ রাখা যাবে না। কোন ধরনের তাপের উৎস বা কেরোসিন, সিন্থেটিক এর কাপড় বা রবারের মতন সমস্ত জিনিস কিন্তু এই জায়গা থেকে দূরে রাখতে হবে।

৭) গ্যাস লিক হলে:

যদি কোনো কারণে সমস্ত সাবধানতা সত্ত্বেও বাড়িতে গ্যাস লিখ হতে দেখেন সে ক্ষেত্রে কয়েকটি স্টেপ বাই স্টেপ পদ্ধতি আপনাকে অনুসরণ করতে হবে। ঘরে বাতাস চলাচল করতে পারে তার জন্য সমস্ত জানালা আর দরজা খুলে দেবেন। গ্যাসের রেগুলেটর আর ওভেন দুটোই বন্ধ করে দিন। সিলিন্ডারের সেফটি ক্যাপ আটকে যাবেন আর কখনোই ভুল করে বাড়ির বৈদ্যুতিক সুইচ ব্যবহার করবেন না। যত দ্রুত সম্ভব আপনার ডিস্ট্রিবিউটারকে খবর দিন।

Back to top button