বাড়ির উঠোন বা ছাদের টবেই এই সহজ ও গোপন পদ্ধতিতে করুন বেগুন চাষ, অল্পদিনেই হবে প্রচুর ফলন

নিজস্ব প্রতিবেদন: শীতকালীন সবজিগুলির মধ্যে অন্যতম হলো বেগুন। বেগুন ভাজা থেকে শুরু করে বেগুন ভর্তা বা বেগুনের তৈরি নানান ধরনের রেসিপি খেতে কমবেশি কিন্তু সকলেই অত্যন্ত বেশি পছন্দ করে থাকেন। তবে বাজারে যে সমস্ত বেগুন কিনতে পাওয়া যায় তা চাষ করার সময় রাসায়নিক প্রয়োগে কিন্তু অনেক সময় এর উপযুক্ত পুষ্টিগুণ নষ্ট হয়ে যায়। তাই আজকাল অনেকেই বাড়িতে বিভিন্ন শাকসবজির মতন বেগুন চাষ করার কথা ও চিন্তা ভাবনা করছেন।।

কিন্তু তার জন্য আপনাদের বিশেষ কয়েকটি বিষয় মাথায় রাখতে হবে নয়তো কখনোই বেগুন গাছ বড় করে তোলার সম্ভব নয়। বিশেষভাবে উল্লেখ্য ভিটামিন এ, সি , সমৃদ্ধ হওয়ায় এই সবজি চোখের জন্য খুবই উপকারী। এছাড়া কোলেস্টেরল কমাতে, পাকস্থলী, ক্ষুদ্রান্ত ও বৃহদান্তরের ক্যান্সারকে প্রতিরোধ করতেও বেগুন অত্যন্ত উপকারী। এছাড়া ভিটামিন সি থাকায় ত্বক,চুল, নখ মজবুত করতে সাহায্য করে এই বেগুন। সুতরাং রাসায়নিক যুক্ত বেগুন খেলে যা আপনাদের কতটা ক্ষতি হতে পারে তা হয়তো আর আলাদা করে বিশ্লেষণ করার প্রয়োজন নেই।

যাদের বাড়িতে খুব একটা জায়গা নেই তারা কিন্তু খুব সহজেই টবের মধ্যেই বেগুন চাষ করতে পারেন। টবে বেগুন চাষ করার জন্য প্রথমেই আপনাদের দোআঁশ মাটি আর গোবর সার মিশিয়ে চাষের উপযুক্ত মাটি প্রস্তুত করে নিতে হবে। তারপর যে কোন নার্সারি থেকে উন্নত মানের বেগুনের চারা কিনে নিয়ে এখানে রোপণ করে দেবেন। অনেকেই চাষ করার সময় একটা টবে একাধিক চারা রোপন করে থাকেন। এই ভুলটা একেবারেই করবেন না। বেগুন চাষের সময় একটা টবে দুটোর বেশি চারা রোপন করা উচিত নয়।

টবের মাটিতে চারা গাছ রোপন করার পরে ভালো করে জল দেবেন। মোটামুটি সঠিক যত্ন পেলে 15 দিনের মধ্যেই কিন্তু গাছটি বেশ ভালো রকমের বড় হয়ে উঠবে। এই গাছে প্রচুর পরিমাণে পোকামাকড় করে আক্রমণ দেখা যায় তাই আপনাদের কাজ বড় হওয়ার সাথে সাথেই এর যত্ন বাড়িরে দিতে হবে। রাসায়নিক সার আপনারা ব্যবহার করতে পারেন তবে যেহেতু খাওয়ার জন্য বেগুন তাই এটা এড়িয়ে চলাই ভালো। তবে যদি রাসায়নিক সার প্রয়োগ করেন সেক্ষেত্রে,১০ গ্রাম ফুরাডান গাছের গোড়ায় দিতে হবে।

এরপর ৬ গ্রাম ভিটামিন গুঁড়ো, ১৫- ২০ গ্রাম টিএসপি সার এবং ৮-১০ গ্রাম ইউরিয়া সার ৮-১০ গ্রাম পটাস সার , গোবর সার এবং মাটি দিয়ে গাছের গোড়াকে ভালো করে ঢেকে দেবেন। গাছগুলি মোটামুটি পরিণত হতে শুরু করে দিলে আপনাদের মাচা বেঁধে দিতে হবে যাতে এগুলো ভালোভাবে সাপোর্ট পায়। চারা রোপনের ৪০ থেকে ৫০ দিনের মধ্যেই ধীরে ধীরে গাছে ফলন ধরতে শুরু করবে এবং বেগুন খাওয়ার উপযুক্ত হয়ে যাবে।

Back to top button