রেগুলার ইউজ বা অকেশনের জন্য ব্লাউজের আধুনিক ডিজাইনের ২০টি দুর্দান্ত কালেকশন দেখে নিন

নিজস্ব প্রতিবেদন: যেকোনো পুজোপার্বন বা উৎসব মানেই কিন্তু নতুন জামাকাপড় আর নানান ধরনের সাজগোজের প্রস্তুতি। সামনেই রয়েছে দুর্গাপুজো আর দীপাবলি। স্বাভাবিকভাবেই নিশ্চয়ই আপনারা বুঝে গিয়েছেন যে সকল বাড়িতেই চলছে পূজোর প্রস্তুতি। পুজো পার্বণের দিনগুলিতে কিন্তু সাধারণত বিভিন্ন ট্রাডিশনাল পোশাক পড়তেই বেশি পছন্দ করে থাকেন মানুষ।

এই ট্র্যাডিশনাল বলতেই আমাদের মাথায় প্রথমেই আসে শাড়ির কথা। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা তাই পাঠকদের উদ্দেশ্যে শাড়ির সাথে মানানসই বেশকিছু ব্লাউজ নিয়ে আলোচনা করতে চলেছি। এখানে আপনারা বিভিন্ন রঙের মধ্যে বিভিন্ন ডিজাইন কিন্তু সহজেই দেখে নিতে পারবেন। যদি আপনিও আসন্ন উৎসবের দিনগুলিতে শাড়ি পড়তে চান সেক্ষেত্রে অবশ্যই এই ব্লাউজের ডিজাইন গুলি ট্রাই করতে পারেন।

ইউনিক কিছু ব্লাউজের ডিজাইন:

১) আজকের এই প্রতিবেদনের শুরুতেই আমরা যে ব্লাউজের ডিজাইনটি আপনাদের দেখাতে চলেছি সেটি খুব সুন্দর  ব্লাউজ টি গোল গলার মধ্যে তৈরি করা হয়েছে এবং পিঠের অংশে রয়েছে ছিদ্রযুক্ত একটি অসাধারণ কারুকার্য। খুব সুন্দর সুতোর বাঁধনী দিয়ে এটিকে তৈরি করা হয়েছে। পুজো পার্বণের দিনে কম বয়সী মেয়েদের কিন্তু এই ব্লাউজ দারুন মানাবে।

২) যারা ব্যাকলেস ব্লাউজ তৈরি করতে চান তারা অবশ্যই এই ডিজাইনটি ট্রাই করতে পারেন। খুব সুন্দর খয়েরি রং এর মধ্যে এই ডিজাইনটি রয়েছে। পিঠের পুরো অংশটাই একটা সরু সুতোর সাহায্যে বাধা রয়েছে। ব্যাকলেস ডিজাইন হিসেবে কিন্তু এই ধরনের কাজ অনেক মহিলারাই পছন্দ করেন।

৩) এবার আপনাদের যে ব্লাউজের ডিজাইনটি দেখাবো সেটা সম্পূর্ণ হলুদ রঙে তৈরি করা রয়েছে। এটার একধার সম্পূর্ণ এক রকমের হলেও বিপরীত অংশে খুব সুন্দর সুতো আর কাপড় দিয়ে কাজ করা রয়েছে।। ছবিটি মনোযোগ সহকারে দেখলে আপনারা নিজেরাই বুঝতে পারবেন ব্লাউজের এই ডিজাইনটি কতখানি সুন্দর।

৪) আগের প্রতিবেদনে আপনারা ব্লাউজের যে ডিজাইনটি দেখেছিলেন এখানে হুবহু একই ডিজাইন করা রয়েছে প্রায় তবে রং সামান্য আলাদা। পিঠের মধ্যে যে সুতোর বাঁধুনী রয়েছে তাতে খুব সুন্দর ঝুমকো দিয়ে কাজ করা রয়েছে। ঘিয়ে কালারের এই ব্লাউজটি যে কোন সিল্কের শাড়ির সাথে দারুন মানাবে।

৫) এবার আপনারা যে ব্লাউজের ডিজাইনটি দেখছেন সেটা অনেকটা আমাদের প্রতিবেদনের প্রথম ডিজাইনের মতন। তবে এর পেছনের অংশের কাপড়ে খুব সুন্দর ফুলের মতন নকশা দিয়ে কাজ করা রয়েছে এবং এক ধরনের পুতি বসানো রয়েছে।

) এবার আপনারা একটি সবুজ রঙের ব্লাউজের ডিজাইন দেখতে পাচ্ছেন যেটার এক অংশে সুতো আর কাপড় দিয়ে কাজ রয়েছে এবং অন্য অংশটা সম্পূর্ণ সাধারণ ভাবে তৈরি করা। এই শাড়িটিও কিন্তু আপনারা যে কোন সিল্ক বা রেওনের শাড়ির সঙ্গে পড়তে পারেন।।

৭) যারা কিছুটা হলেও ব্যাকলেস ডিজাইন খুঁজছেন তারা অবশ্যই এটা ট্রাই করে দেখতে পারেন। খুব সুন্দর গোলাপি রঙের একটা ডিজাইন। সুতোর সাহায্যে পিঠের মধ্যে যে কারুকার্য করা রয়েছে সেটা বিশেষভাবে দ্রষ্টব্য।

৮) আমাদের প্রতিবেদনের আট নম্বরে আমরা একটি কমলা কালারের ব্লাউজের ডিজাইন আপনাদের সাথে শেয়ার করে নিতে চলেছি। ডিজাইন টির চার ধারে একটা হালকা সুতোর মতন অংশের সাহায্যে কাপড়টি ডিজাইন করা রয়েছে। মা-বোনেদের কিন্তু এই ব্লাউজের ডিজাইন দারুন মানাবে। রেগুলার ইউজের জন্য ও চাইলে আপনারা এটা নিতে পারেন।

৯) যারা পুজো পার্বণের জন্য একটি সাধারন অথচ বেশ ক্লাসি ডিজাইনের ব্লাউজ আইডিয়া চাইছেন তারা অবশ্যই এটা ট্রাই করে দেখতে পারেন। খুব সুন্দর গোলাপি রঙের মধ্যে পিঠে তিনটে ছিদ্র দেওয়া ডিজাইন এটি। যারা ব্যাকলেস ব্লাউজ পড়তে পছন্দ করেন না তাদের হয়তো এটা ভালো লাগতে পারে।

১০) এরকম একটা ডিজাইন কিন্তু আগেও আপনারা দেখেছেন। গোলাপি রঙের মধ্যে সুতো আর কাপড়ের দেখানো এক ধরনের নকশা দিয়ে কাজ করা রয়েছে। কেমন লাগলো জানাবেন অবশ্যই।

১১) এবার আপনারা যে ডিজাইনটি দেখছেন তাতে হলদেটে কালারের মধ্যে লাল বর্ডার দিয়ে ডিজাইন করা রয়েছে। ব্লাউজ টির মাঝ বরাবর কাপড় দিয়ে খুব সুন্দর একটা ফুলের কাজ করা রয়েছে যা বেশ আকর্ষণ করছে মহিলাদের। যেকোনো ভারী শাড়ির সাথে আপনারা এই ডিজাইনটি অবশ্যই ট্রাই করে দেখতে পারেন।

১২) মোটামুটি অনেকটা ব্যাকলেস ধরনের এই ডিজাইন টা কিন্তু আপনাদের অনেকেরই পছন্দ হবে তাই শেয়ার করে নিচ্ছি। খুব সুন্দর একটা ডিপ সবুজ রঙের কালেকশন এটা। পিঠের একটা অংশে অনেকটা বরফির মতন ডিজাইন এবং নিচের দিকে কাপড় দিয়ে এক ধরনের ডিজাইন করা রয়েছে। যারা একটু ট্রেন্ডি শাড়ি পরতে পছন্দ করেন তারা অবশ্যই এটা একবার ট্রাই করে দেখতে পারেন।

১৩) এবার আপনারা যে লাল রঙের ব্লাউজের ডিজাইনটি দেখছেন সেটা কিন্তু অত্যন্ত সুন্দর একটা কালেকশন। ব্লাউজের মাঝখানে একটা ফুলের মতন করা রয়েছে এবং দুই ধারে রয়েছে ত্রিভুজাকৃতির এক ধরনের ডিজাইন। কম বয়সী মেয়েদের কিন্তু এই কালেকশনটা দারুন মানাবে। দূর্গাপূজার সপ্তমী বা নবমীর রাতের সাজের জন্য শাড়ির সাথে আপনারা এই ব্লাউজ ট্রাই করে দেখতে পারেন।

১৪) এবার আপনারা যে ব্লাউজের ডিজাইনটি দেখছেন সেটা লালের মধ্যে সোনালী রংয়ের কারুকার্য করা রয়েছে। পিঠের মাঝ বরাবর রয়েছে একটি জ্যামিতিক মাপের ছিদ্র যা ব্লাউজটিকে আরো আকর্ষণীয় করে তুলেছে। অষ্টমীর সকালে অঞ্জলি দিতে গিয়ে শাড়ির সাথে অবশ্যই আপনারা এই কালেকশনটা একবার ট্রাই করতে পারেন।

১৫) এবার যে ডিজাইনটি আপনারা দেখতে চলেছেন সেটাতেও খুব সুন্দর ভাবে গোলাপি রঙের একটি ফুলের উপরে সোনালী কারুকার্য করা রয়েছে। কালেকশনটি খুবই সুন্দর।

১৬) যাদের ব্যাকলেস করতে কোন সমস্যা নেই এবার অবশ্যই এই ডিজাইনটি তারা ট্রাই করতে পারেন। এই ব্লাউজের পেছনের অংশ সম্পূর্ণ সুতো দিয়ে বাঁধার কাজ করা রয়েছে এবং সামনের অংশে গোল গলা দিয়ে থ্রি কোয়াটার সমান হাতা ব্লাউজটি তৈরি করা।

১৭) লাল আর সাদার কম্বিনেশন তৈরি এই ব্লাউজ টি ও কিন্তু খুবই সুন্দর। ব্লাউজটির মধ্যে লাল রঙের সুতো দিয়ে ত্রিভুজাকৃতির ডিজাইন করা হয়েছে।

১৮) এবার আপনারা যে ডিজাইনটি দেখছেন সেটাকে কিন্তু সম্পূর্ণরূপে ব্যাকলেস বলা যায় না কারণ পেছনের অংশের ডিজাইনটাই আলাদা রকম ভাবে আটকে রয়েছে। ধূসর আর কমলা রঙের কম্বিনেশনে তৈরি এই ব্লাউজটি কিন্তু বিয়ে বাড়ি বা ছোটখাটো পার্টির জন্য আপনারা দেখতে পারেন।।

১৯) এবার আপনারা যে কমলা রঙের ব্লাউজ টি দেখতে পাচ্ছেন সেটা খুবই সাধারণ একটা ডিজাইন। খালি ব্লাউজের গলা পিঠ আর হাতের কাছে সুন্দর বর্ডার দিয়ে কারুকার্য করা রয়েছে।

২০) আজকের এই প্রতিবেদনের সব শেষে আমরা যে ডিজাইনটি আলোচনা করব সেটাও একটা ব্যাকলেস ডিজাইন। পুজোর দিনে রাতের সাজের জন্য অথবা যে কোন পার্টিতে আপনারা খুব সহজেই এই ডিজাইনটা পরিধান করতে পারেন। সম্পূর্ণ ডিজাইনটির মধ্যে হলুদ, নীল, লাল,সবুজ রঙের একটা চৌকো ডিজাইন করা রয়েছে। পিছনের সম্পূর্ণ অংশটাই হলুদ ফিতে দিয়ে বাঁধা।

Back to top button