জিনিস বিক্রি করে শেষ করতে পারবেন না! খুব অল্প পুঁজির এই গোপন ব্যবসা করলে দিনে ইনকাম হবে হাজার টাকা

নিজস্ব প্রতিবেদন: প্রত্যেকটা মানুষের মনের মধ্যেই কিন্তু নিজেদের একটা ব্যবসা তৈরি করার সুপ্ত আকাঙ্ক্ষা রয়েছে। আসলে একটা সময়ের পর সকল মানুষরাই বুঝতে শুরু করে দিয়েছেন ব্যবসা ছাড়া জীবনে এগিয়ে যাওয়া কোনভাবেই সম্ভব নয়। আগেকার সময়ে মানুষ শুধুমাত্র চাকরির উপরেই নির্ভরশীল হয়ে বসে থাকতেন। কিন্তু বিগত কয়েক বছরে যেভাবে সরকারি আর বেসরকারি ক্ষেত্রগুলোতে নিয়োগ কমে গিয়েছে তাতে শিক্ষিত মধ্যবিত্ত জনগণের কিন্তু আর অন্য কোন রাস্তা নেই ব্যবসা ছাড়া।

যারা আগে থেকেই ব্যবসার কাজের সঙ্গে যুক্ত রয়েছেন তাদের হয়তো এই জায়গায় খুব একটা চিন্তা করতে হয় না। তবে যারা সম্প্রতি একেবারে নতুন এই ক্ষেত্রে পা রেখেছেন তাদের কিন্তু রীতিমতো হিমশিম অবস্থা। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই সঠিক পণ্য না বেছে নেওয়ার কারণে এই সমস্যা আরো বাড়বাড়ন্ত হয়ে গিয়েছে। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনের তাই এই সমস্ত নতুন ব্যবসায়ী বন্ধুদের জন্যই আমরা শেয়ার করে নিতে চলেছি একটি নতুন কাজের আইডিয়া।

আজ আমরা আপনাদের সঙ্গে শেয়ার করে নেব নমকিন অর্থাৎ বিভিন্ন ধরনের মুখরোচক সুস্বাদু খাবার তৈরির ব্যবসার আইডিয়া। চানাচুর থেকে শুরু করে বিভিন্ন ধরনের মুখরোচক নোনতা খাবার কিভাবে তৈরি করে সেটা থেকে আপনারা উপার্জন করতে পারবেন সেটাই আজকের প্রতিবেদনে বিস্তারিত আলোচনা করা হবে।। প্রতিবেদনের শুরুতেই আমরা বলব একটি মেশিনের কথা যা মাত্র ২০ হাজার টাকায় আপনারা ম্যানুফ্যাকচারিং ইউনিট থেকে সংগ্রহ করে নিতে পারবেন। এই মেশিনটি যদি আপনারা কিনে নেন তাহলে আর অন্য কিছুর প্রয়োজন হবে না।

মেশিনের সাথেই আপনাদের বিভিন্ন ধরনের খাবার তৈরির জন্য আলাদা আলাদা ডাই দিয়ে দেওয়া হবে। এগুলো ব্যবহার করে যে কোন মুখরোচক খাবার তৈরি করে আপনারা সেগুলোকে প্যাকেজিংয়ের মাধ্যমে বাজারে বিক্রি করতে পারবেন। যদি আপনারা লোকাল মার্কেটে সাপ্লাই দিয়ে ঝামেলা না করতে চান সেক্ষেত্রে কিন্তু নিজেদের দোকান থেকেও এভাবে ডাইরেক্ট পণ্য তৈরি করে বিক্রি করতে পারেন।

মেশিনটির দাম ২০ হাজার টাকা থেকে শুরু হলেও ক্যাপাসিটি আর কোয়ালিটি অনুযায়ী কিন্তু প্রায় কয়েক লক্ষ টাকা পর্যন্ত এটা যেতে পারে। পুরোটাই নির্ভর করছে আপনার মূলধনের পরিমাণের উপর। আপনি যদি বড় পরিসরে ব্যবসা শুরু করতে চান সেক্ষেত্রে আরও বেশি ক্যাপাসিটির মেশিন নিয়েও কিন্তু কাজ শুরু করতে পারেন। প্রাথমিক অবস্থায় মধ্যবিত্ত সাধারণ মানুষ যদি ২০ থেকে ২৫ হাজার টাকার মধ্যে মেশিন কিনে ব্যবসা শুরু করেন সেক্ষেত্রে ঘন্টায় প্রায় ২৫ থেকে ৩০ কেজি পর্যন্ত প্রোডাকশন খুব সহজেই পেয়ে যাবেন।

চলুন তাহলে এবার দেরি না করে ম্যানুফ্যাকচারিং ইউনিটের ঠিকানা সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক। যাতে এই খাদ্যদ্রব্যটি প্রোডাকশন করার পরে আপনাদের বাজারজাত করতে বা অন্যান্য কোন কাজে সমস্যা না হয়। মোটামুটি এই ক্ষেত্রে আপনাদের খরচ পড়বে প্রায় ৩০ টাকার কাছাকাছি। প্যাকেজিং এর পরে এই খাবারগুলোকে আপনারা প্রায় ৭০ টাকার কাছাকাছি দামে বিক্রি করতে পারবেন। একটি হিসেব বলছে এই ব্যবসা করে আপনারা প্রায় দৈনিক ভিত্তিতে ১০০০ আর মাসিক ভিত্তিতে ৩০ থেকে ৩৫ হাজার টাকার কাছাকাছি উপার্জন করতে পারেন।

Royal machinery
Eser mineral complex
Muragacha,jugberia, Sodepur road , opposite lokenath mandir, Madhyamgram.
Kolkata – 700110
Contact :7980111516/8910085500.

Back to top button