শীতের সবজি কিনে খুব সহজেই এইভাবে করুন সংরক্ষণ! সারাবছর সবজি থাকবে টাটকা ও তরতাজা

নিজস্ব প্রতিবেদন: শীতকালে কিন্তু বাজার ভর্তি নানান রকমের সবজি দেখতে পাওয়া যায়। অনেকেই এই সমস্ত সবজি খেতে খেতে বিরক্ত হয়ে পড়েছেন। তবে লক্ষ্য করে দেখবেন শীত চলে গেলে এই সমস্ত সবজিগুলো খাওয়ার জন্যই কিন্তু আমাদের মন আনচান করে উঠবে। বছরের অন্যান্য সময় এই শীতের সবজি কিন্তু চট করে পাওয়া যায় না।। তবে আপনারা যদি সঠিক পদ্ধতিতে কিছু জিনিস সংরক্ষণ করে রাখতে পারেন তাহলে আর সারা বছরভর আপনাদের কোন চিন্তা করতে হবে না। চলুন আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনের মাধ্যমে কিছু সবজি সংরক্ষণের পদ্ধতি শেয়ার করে নেওয়া যাক।

যেকোনো সবজি সংরক্ষণ করতে গেলে সেটিকে আপনাদের প্রথমে ভালো করে ধুয়ে নিতে হবে। এই যেমন ধরুন গাজরের কথা বলা যেতে পারে। গাজর সংরক্ষণ করার আগে আপনারা গোটা অবস্থায় না রেখে ছোট টুকরো করতে পারেন। ঠিক যেমন স্যালাড তৈরি করার সময় স্লাইস ব্যবহার করা হয় তেমন ভাবেই কাটবেন। যদি ফুলকপির কথা বলি সেক্ষেত্রে প্রথমেই আপনাদের ভালোভাবে ধুয়ে এটার মাঝখানের ডাটা অংশটা বাদ দিয়ে দিতে হবে। তারপর হাত দিয়ে ফুলগুলোকে ছাড়িয়ে নিন। ঠিক একই রকম ভাবে বরবটি বা সিম আপনারা প্রথমেই কেটে নেবেন।

দীর্ঘ সময়ের জন্য ফুলকপি সংরক্ষণ করতে চাইলে এবার আপনাদের চুলায় একটা পাত্র বসিয়ে তাতে জল গরম করে ফুলকপি টুকরো গুলোকে দিয়ে দিতে হবে। এবার গরম জল থেকে কিছুক্ষণ পর ফুলকপি তুলে একেবারে বরফ ঠান্ডা জলের মধ্যে চুবিয়ে নিন। তারপর এটাকে তুলে টিস্যু পেপারের উপর রাখুন। যতক্ষণ ফুলকপির জল ঝরে যাচ্ছে অন্যান্য সবজিগুলো কেউ আপনাদের জলে বয়েল করে নিতে হবে। মোটামুটি বরবটি সেদ্ধ করতে চাইলে সময় লাগবে তিন মিনিট এবং গাজরের বয়েলিং শেষ হতে লাগবে ৪ মিনিট।। এভাবে প্রতিটা সবজি প্রথমে কিছুটা জলে বয়েল করে নেবার পর ঠান্ডা জলে চুবিয়ে আপনাদের জল ঝরিয়ে নিতে হবে। ভালোভাবে সবজিগুলো থেকে জল বেরিয়ে গেলে আপনাকে করতে হবে সংরক্ষণের ব্যবস্থা।।

সংরক্ষণ করার সবথেকে ভালো উপায় হচ্ছে কনটেনারের ব্যবহার। টিসু পেপারে জল শুকিয়ে নেওয়ার পরে যেকোনো একটা এয়ার টাইট কন্টেইনারে এই সবজিগুলোকে আপনারা যত্ন সহকারে রাখতে পারেন। সযত্নে ডিপ ফ্রিজে রেখে দিলেই কিন্তু দীর্ঘ সময় পর্যন্ত এই প্রত্যেকটা সবজি ভালো অবস্থায় থাকবে এবং প্রয়োজন অনুযায়ী ব্যবহার করা যাবে বা খাওয়া যাবে। সুতরাং এবার থেকে শীতকাল চলে গেলেও শীতের সবজির অভাব আপনার কোনদিনই পড়বে না।

Back to top button