একদম অল্প খরচে তৈরি করুন ৩ টি রুমের সুন্দর বাড়ি, রইলো খরচের পরিমাণ সহ বাড়ির আধুনিক ডিজাইন

নিজস্ব প্রতিবেদন: নতুন কোন বাড়ি তৈরি করতে গেলে সবার প্রথমেই যে জিনিসটা প্রয়োজন হয় তা হল সঠিক পরিকল্পনা। সঠিক পরিকল্পনা ছাড়া কিন্তু কখনই কোন কাজ শুরু করা সম্ভব নয়। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা তাই আপনাদের সাথে তিন বেড রুমের একটি বাড়ির ডিজাইন শেয়ার করে নিতে চলেছি। যদি আপনারা সম্প্রতি বাড়ি তৈরি করার কথা চিন্তাভাবনা করছেন তাহলে অবশ্যই এই ডিজাইনটা বা পরিকল্পনা ট্রাই করে দেখতে পারেন।

নিঃসন্দেহে আমাদের এই প্রতিবেদন আপনাদের অনেকটাই সাহায্য করবে আশা করছি।আজ আমরা আপনাদের সাথে যে বাড়ির ডিজাইনটি শেয়ার করব তার একেবারে প্রবেশপথের শুরুতেই রয়েছে একটি ছোট্ট বারান্দার মতন জায়গা। তারপর সেখান থেকে সোজা বেরিয়ে আসলে আপনারা পেয়ে যাবেন একটি ড্রয়িং রুম। ড্রয়িংরুমের ঠিক বামদিকে আপনারা পাচ্ছেন গেস্ট রুম। গেস্ট রুম থেকে সোজাসুজি ডাইনিং রুম ও সিঁড়ির ঘর তৈরি করে নিতে পারেন।

যদি আপনাদের জায়গা বেশি থাকে সেক্ষেত্রে দুটো আলাদা ভাবে করবেন, খুব বেশি পরিসর না থাকলে আপনারা একসাথেই ডাইনিং রুম রাখতে পারেন। ডাইনিং রুমের ঠিক ডানদিকে একটি কমন বাথরুম আর কিচেন আপনারা তৈরি করতে পারেন।এবার ডাইনিং রুম থেকে সোজাসুজি আপনারা যে অংশটা ফাঁকা থাকবে তাতে পরপর দুটি বেডরুম আর সংলগ্ন একটা বাথরুম তৈরি করে নিতে পারেন।

যদি প্রয়োজন মনে করেন সেক্ষেত্রে সিঁড়ির ঘরের ঠিক পাশে একটু জায়গা ফাঁকা রেখে গেস্ট রুমের সাথেও বাথরুম লাগোয়া করা যেতে পারে। আপনারা কিন্তু ঠিক একই রকম পরিকল্পনা সহকারে এর উপরে অর্থাৎ দোতলাও তৈরি করে নিতে পারবেন। তবে যদি বাড়ির সদস্য সংখ্যা ছোট বা মাঝারি হয়ে থাকে সেক্ষেত্রে আশা করছি একতলা বাড়ির পরিকল্পনাই সঠিক হবে। জমির খরচ ছাড়া এই সম্পূর্ণ বাড়িটি তৈরি করতে আপনাদের মোটামুটি খরচ পড়বে প্রায় ২৫ লক্ষ টাকার কাছাকাছি।

ভিডিওর লিঙ্ক নিচে দেওয়া হল-

https://youtu.be/f_xfMumrFPI

তবে অবশ্যই জমি এবং অন্যান্য কিছু ব্যাপার যেমন মার্বেল ফিনিশিং এবং ইন্টেরিয়ার ডেকোরেশন করতে গেলে কিন্তু একটু অতিরিক্ত অর্থ লাগবে।। অতএব যারা নিজেদের স্বপ্নের বাড়ি তৈরিতে কোন পরিকল্পনা খুঁজে পাচ্ছেন না তারা আজকের এই প্রতিবেদন টি মনোযোগ সহকারে পড়ে নিজেদের মতামত শেয়ার করে নিন। শুধুমাত্র কয়েকটি বিষয়ে মাথায় রাখবেন বাড়ি তৈরি করার সময় একটু ভালো জিনিস ব্যবহার করার চেষ্টা করবেন। যেহেতু এটা আমাদের দীর্ঘ জীবনের আস্তানা হয়ে থাকে তাই ভবিষ্যতে যেন কোনরকম সমস্যা না হয়।

Back to top button