আরশোলা থেকে মাকড়সার উপদ্রবে নাজেহাল? চিরতরে মুক্তি পেতে শুধুমাত্র ব্যবহার করুন সহজ এই দুর্দান্ত ঘরোয়া ট্রিকস

নিজস্ব প্রতিবেদন: কমবেশি প্রত্যেকের বাড়িতেই কিন্তু আরশোলা থেকে শুরু করে মশা মাছি প্রভৃতির উপদ্রব ব্যাপক পরিমাণে হয়ে থাকে। বিশেষ করে বর্ষাকালে এই উপদ্রব এতটাই বেড়ে যায় যে আর কিছু করার মতন অবস্থায় থাকে না। বাজার চলতি নানান ধরনের ওষুধের সাহায্যে এই আরশোলা বা অন্যান্য পোকামাকড় দূর করার চেষ্টা করা হয়ে থাকে।

তবে এগুলো যেমন দামি ঠিক তেমন ভাবেই কিন্তু অনেক ক্ষেত্রে খুব একটা কাজে দেয় না। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা তাই আপনাদের সাথে সহজ উপায়ে বাড়ি থেকে আরশোলা এবং এই জাতীয় পোকামাকড় দূর করার জন্য একটি বিশেষ টোটকা শেয়ার করে নিতে চলেছি। নিঃসন্দেহে এই প্রতিবেদনটি আপনাদের কাজে আসবে। চলুন তাহলে আর দেরি না করে আমাদের আজকের এই প্রতিবেদনটি শুরু করা যাক।

বাড়ি থেকে আরশোলা এবং এই জাতীয় পোকামাকড় দূর করার সহজ উপায়:

১) আজ আমরা আরশোলা এবং এই জাতীয় পোকামাকড় দূর করার জন্য একটি লাড্ডু প্রস্তুত করব। তার জন্য আপনাদের প্রথমে একটা কাগজের প্লেট নিয়ে নিতে হবে যাতে সেটা প্রয়োজনে এই লাড্ডু বানানোর পর আপনারা ফেলে দিতে পারেন। এবার এই প্লেটের মধ্যে আপনাদের ২ চামচ বোরিক পাউডার ঢেলে নিতে হবে। সাধারণত এই পাউডার কিন্তু ক্যারামবোর্ড এর উপরেও ব্যবহার করা হয়ে থাকে। বোরিক পাউডারের মধ্যে এবার কিছুটা পরিমাণে সার্ফ,এক চামচ পরিমাণে লঙ্কার গুঁড়ো এবং এক থেকে দেড় চামচ পরিমাণে লবণ মিশিয়ে নিন।

২) যদি আপনাদের কাছে বোরিক পাউডার না থাকে সেক্ষেত্রে লক্ষণরেখা নামের এক ধরনের চক পাওয়া যায় সেটার পাউডার ও এখানে ব্যবহার করতে পারেন। এবার অনেকটা ময়দা মাখার মতন করে এখানে অল্প অল্প করে জল ব্যবহার করে সমস্ত উপকরণগুলোকে মিশিয়ে নিতে হবে।তারপর এই মিশ্রণ থেকে ছোট ছোট লাড্ডু তৈরি করে ফেলুন।

৩) পরবর্তী ধাপে এই ছোট লাড্ডুগুলিকে যে সমস্ত জায়গা দিয়ে আরশোলা প্রবেশ করে অথবা চলাচল করে সেই জায়গাগুলিতে রেখে দিন। রান্না ঘরের তাকের কোনায় এবং অন্যান্য জায়গাগুলিতে এটাকে রেখে দেবেন। আরশোলা যখন এটাকে খাবার হিসেবে গ্রহণ করবে তখনই কিন্তু আপনার বাড়ি থেকে একেবারে চিরতরে বিদায় নেবে। আসলে এই উপকরণগুলোর এমন একটি ঝাঁজ রয়েছে যা আরশোলা সহ্য করতে পারে না। যদি আপনাদের বাড়িতে বাচ্চা থাকে তবে অবশ্যই একটু সতর্কতা নিয়ে কাজ করবেন। আর অবশ্যই একটা গ্লাভস পড়ে এই কাজটা করার চেষ্টা করবেন যাতে হাতে কোন রকমের বিষাক্ত উপকরণ না লেগে যায়।

Back to top button