নীল চুড়িদার পরে “ইনি বিনি টাপা টিনি” গানে দুর্দান্ত নেচে মন কেড়েছিলেন ঐন্দ্রিলা, তার চলে যাওয়ার পর ফের ভাইরাল সেই ভিডিও

নিজস্ব প্রতিবেদন: দীর্ঘ সময় ধরে নিজের লড়াইয়ের মাধ্যমে সকলের সামনে জীবনের কিছু বাস্তব দিক তুলে ধরেছিলেন অভিনেত্রী ঐন্দ্রিলা শর্মা। পরপর দুবার ক্যান্সার জয়ী এই অভিনেত্রী শেষ পর্যন্ত ব্রেন স্টোকের কাছে হার মেনে নেন। সকলেই ভেবেছিলেন প্রথম দুবার ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার পরেও তিনি যেভাবে ফিনিক্স পাখি হয়ে ফেরত এসেছিলেন হয়তো এবারেও তেমন কোন মিরাক্যাল ঘটবে।

কিন্তু কোথাও যেন সমস্ত হিসেব গোলমাল হয়ে গেল। হঠাৎই ঐন্দ্রিলার পরিবার পরিজন আর অনুরাগীদের সামনে এলো সেই দুঃখজনক খবর। অভিনেত্রীর মৃত্যুর পর প্রায় ১৫ দিনের বেশি সময় কেটে গিয়েছে, তবে এখনো তার স্মৃতি আঁকড়ে ধরেই সময় কাটিয়ে যাচ্ছেন সকলে।২৫ পূর্ণ করার আগেই না ফেরার দেশে পাড়ি দিলেন অভিনেত্রী ঐন্দ্রিলা শর্মা। শৈশব থেকেই অভিনেত্রী হওয়ার ভূত ছিল তার মাথায়। কিন্তু পড়াশোনাতে ঐন্দ্রিলা ছিলেন অত্যন্ত মেধাবী।

অভিনয় করার পাশাপাশি নিজের পড়াশোনা চালিয়ে গিয়েছেন নায়িকা। কলকাতার একটি বেসরকারি কলেজে কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ার জন্য ভর্তি হয়েছিলেন তিনি। তবে শেষ পর্যন্ত অসুস্থতার কারণে এই কোর্স আর শেষ করতে পারেন না তিনি। ২০১৫ সালের সর্বপ্রথম তিনি জানতে পেরেছিলেন তার শরীরের মারণ রোগ ক্যান্সার বাসা বেধেছে। ১৮ বছরের একটা মেয়ের পক্ষে এই খবর কতটা ভয়ানক তা হয়তো আর আপনাদের আলাদা করে বোঝানোর দরকার নেই।।

ঐন্দ্রিলা ছিলেন তখন ক্লাস ইলেভেনের ছাত্রী। তবে অনেক চেষ্টার পর ২০১৫ সালে ফিরে আসেন ঐন্দ্রিলা। এরপর গত বছর ২০২১ সালে আবারো তার শরীরে ক্যান্সারের খোঁজ পাওয়া যায়। প্রচুর পরিমাণে ভয় পেলেও লড়াই থামাননি তিনি।পরিবারের সদস্যরা ছাড়াও ঐন্দ্রিলার জীবনের এই টালমাটাল সময়ে তাঁর পাশে ছিলেন প্রেমিক সব্যসাচী চৌধুরী। তাঁদের ভালোবাসা লাখ লাখ মানুষের কাছে উদাহরণ হয়ে দাঁড়ায়।

ক্যান্সারকে হারিয়ে সুস্থ হয়ে নতুন উদ্যমে কাজ শুরু করেছিলেন ঐন্দ্রিলা। গত জুন মাসে তিনি ফেসবুকে ‘টাপা টিনি’ গানের সঙ্গে নেচে এক ভিডিও পোস্ট করেছিলেন। সম্প্রতি এই ভিডিও আচমকাই নেট মাধ্যমে ঝড়ের গতিতে ভাইরাল হয়ে উঠেছে। সম্ভবত অভিনেত্রীর কোন অনুরাগী এটি শেয়ার করেছিলেন আর তারপরেই তা সকলের কাছে পৌঁছে যায়।

ভাইরাল এই ভিডিওতে ঐন্দ্রিলা শর্মার প্রাণবন্ত নাচ দেখে রীতিমতন আপ্লুত হয়ে পড়েছেন নেট নাগরিকরা। হয়তো তিনি এখন আর আমাদের মধ্যে নেই কিন্তু তার এই ছবি আর ভিডিওর স্মৃতি দেখে অনেকেই চোখের জল ধরে রাখতে পারেননি। এই ভিডিওর কমেন্ট বক্স দেখলেই আপনারা বুঝতে পেরে যাবেন। যদিও বেশিরভাগটাই অনেক পুরনো কমেন্ট। কমেন্ট বক্স খুললে দেখা যাবে কেউ লিখেছেন ঐন্দ্রিলা, এত কঠিন লড়াই জিতে আজ তোমার এই হাসি মুখ কি যে ভালো লাগে! এভাবেই সুস্থ থেকো, ভালো থেকো।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Aindrila Sharma (@aindrila.sharma)

অনেক অনেক শুভেচ্ছা রইলো।’ কেউ বা লিখেছিলেন, ‘মৃত্যুর দুয়ার থেকে ফিরে নতুন জীবনে ফিরেছো, নতুন অভিজ্ঞতা। কালো মেঘে ঢাকা অধ্যায় মুছে যাক, নতুন সূর্যের আলোয় আলোকিত হোক তোমার জীবন। খুব ভালো থেকো।’ যদিও শেষ পর্যন্ত আর ভালো থাকতে পারলেন না ঐন্দ্রিলা। সকলকে ছেড়েই দূর দিগন্তের উদ্দেশ্যে পাড়ি দিলেন তিনি।

Back to top button