বীজ থেকে মাত্র কয়েকদিনের মধ্যে হবে আস্ত একটা নারকেল গাছ, শুধুমাত্র মেনে চলুন এই একটি দুর্দান্ত সহজ পদ্ধতি

নিজস্ব প্রতিবেদন: নারকেল এমন একটি ফল যা খেতে কিন্তু কম বেশি সকলেই পছন্দ করে থাকেন। বিভিন্ন পুজো পার্বণ থেকে শুরু করে অনেক রান্নাবান্না বা পিঠে পুলি নির্মাণের ক্ষেত্রেও কিন্তু নারকেলের ব্যাপক ভূমিকা রয়েছে। লক্ষ্য করে দেখবেন নারকেল গাছের প্রতিটা অংশই কিন্তু ব্যবহার করা হয়। মূলত এই ফলটির জীবিত কাল ৫০ – ৬০ বছর পর্যন্ত হয়ে থাকে। সে কারণে বাণিজ্যিক ভিত্তিতে এর চাষ করার ক্ষেত্রে স্থায়ী বাগানের প্রয়োজন যা আমাদের দেশে মূলত কেরল, তামিলনাড়ু রাজ্যেই হয়ে থাকে।

আর যে সব রাজ্যে কম-বেশি নারকেল চাষ হয়ে থাকে তার মধ্যে রয়েছে আন্দামান, লাক্ষা দ্বীপ, অন্ধ্রপ্রদেশ, ওড়িশা, পশ্চিমবঙ্গ ইত্যাদি। রোগীর পথ্য হিসেবেও নারকেল বা ডাবের জল খাওয়ার কথা বলে থাকেন চিকিৎসকেরা। বিশেষ করে গরম কালে কিন্তু বাজারে চড়া দামে ডাবের জল বিক্রয় করা হয়ে থাকে। অন্যদিকে নারকেলের তেল কিন্তু মার্জারিন ঘি অথবা সাবান উৎপাদনের কাজে ব্যবহার করা হয়।

নারকেলের শাঁস থেকে গুড়, চিনি, ভিনিগার ইত্যাদি তৈরি হয়ে থাকে। তাই আজকাল অনেক জায়গাতেই নারকেলের চাষ বেড়ে গিয়েছে। আজ আমরা আলোচনা করব কিভাবে বীজ থেকে খুব সহজেই আপনারা বাড়িতে এই গাছের চাষ শুরু করতে পারেন। যারা নারকেল চাষে আগ্রহী তারা কিন্তু অবশ্যই এই প্রতিবেদনটি মিস করবেন না।

প্রথমেই আপনাদের একটা পরিণত হালকা শুকনো ডাব সংগ্রহ করে নিতে হবে। তারপর এই ডাবটি’কে কোন ধারালো জিনিসের সাহায্যে একটু উপরের অংশটা ফালাফালা করে চিড়ে নিন। এবার ভেজা মাটির মধ্যে আপনাদের এটা রেখে দিতে হবে। রাখার পর অবশ্যই এর উপরে জলের ছিটে দিতে ভুলবেন না। এভাবে কয়েক দিন ফেলে রাখলেই দেখবেন খুব সহজে এই ডাব থেকে কিন্তু চারা বেরিয়ে গেছে। এবার আপনাদের যত্ন সহকারে এটাকে তুলে প্রতিস্থাপন করার ব্যবস্থা করতে হবে। বাগানের যে অংশে আপনারা গাছটি রোপন করতে চান সেখানকার মাটি প্রথমেই একটু ঝুরঝুরে করে নেবেন।

তারপর একটা মাঝারি মাপের গর্ত খুঁড়ে তার মধ্যে কিছু কাঠের টুকরো দিয়ে দিন। কাঠ বলতে এখানে কিন্তু যে কোন গাছের একটু মোটা গুঁড়ি বা ডালের কথা বলা হয়েছে। এবার এই কাঠ একটু কোন ভারী জিনিসের সাহায্যে ভেঙে নেবেন। এই জায়গায় এবারে আপনাদের দিয়ে দিতে হবে কিছুটা পরিমাণে অর্গানিক ফার্টিলাইজার। ভালোভাবে জায়গাটাকে একটু হাত দিয়ে মিশিয়ে নিন যাতে মাটির সাথে উপকরণ গুলো চলে আসে।

পরবর্তী ধাপে আপনাদের ডাবসহ চারা গাছটিকে এখানে রোপন করে দিতে হবে। এবার একটা বড় পাত্রে বা বালতিতে কিছুটা পরিমাণ জল নিয়ে তাতে লবণ মিশিয়ে নিন। এই লবণাক্ত জল টাকে আপনারা যেখানে গাছটি রোপন করেছেন সেই জায়গায় ভালো করে কিছুদিন অন্তর অন্তর ছিটিয়ে দেবেন। ব্যাস পরবর্তী কয়েক দিনের মধ্যেই কিন্তু ধীরে ধীরে এই নারকেল গাছ বাড়তে শুরু করবে।

যদি গাছ বড় হওয়ার সময় আপনারা একেবারে সঠিক যত্ন নিতে পারেন তাহলে বাম্পার ফলন দেখে নিজেরাই অবাক হয়ে যাবেন। তাহলে দেখে নিলেন কিভাবে খুব সহজ পদ্ধতিতে বিশেষ কোনো খাটনি ছাড়াই বাড়িতে আপনারা নারকেলের চাষ করতে পারেন। এই বিশেষ টিপস আপনাদের কেমন লাগলো তা অবশ্যই কমেন্ট করে জানাতে ভুলবেন না।

Back to top button