উঁচু গাছের ডাল থেকে আচমকা ফণা তুললো বিশালাকার কিং কোবরা, নামাতে গিয়ে যা ঘটলো যুবতীর সাথে, রইলো ভিডিও

নিজস্ব প্রতিবেদন: আজকের যুগে দাড়িয়ে সোশ্যাল মিডিয়া আমাদের জন্য একটি এমন প্ল্যাটফর্ম যেটি শুধুমাত্র যোগাযোগ ব্যবস্থাকে উন্নত করেছে তা নয় সাথে সাথেই আমাদের প্রতিনিয়ত নিত্য নতুন ঘটনার সাথে পরিচয় করিয়ে দিচ্ছে। একটা সময় ছিল যখন আমাদের বিভিন্ন খবরা খবর জানার জন্য টেলিভিশন কিংবা সংবাদপত্রের উপর নির্ভর করতে হতো। কিন্তু এখন আর সেই দিন নেই। সোশ্যাল মিডিয়া খুললেই যে কোন ঘটনা বা জিনিস খুব সহজেই কিন্তু আমরা জানতে এবং শুনতে পারি।

ফেসবুক এবং instagram এর মতন প্লাটফর্ম গুলি নিত্যনতুন বিভিন্ন ভিডিও ভাইরাল হয়ে আমাদের চোখের সামনে তুলে ধরে। সব থেকে আশ্চর্যের ব্যাপার কি জানেন এমন অনেক ঘটনা রয়েছে যা হয়তো খালি চোখে দেখা যায় না কিন্তু এই সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে খুব সহজেই আমাদের চোখের সামনে উঠে আসে। ঠিক যেমনটা সম্প্রতি একটি ভিডিওর মাধ্যমে হয়েছে। কিছুদিন আগেই নেট মাধ্যমে এমন একটি ভিডিও ভাইরাল হয়ে উঠে এসেছে যা দেখলে কম বেশি সকলেই অবাক হতে বাধ্য হবে।

কি এমন রয়েছে সেই ভিডিওতে? আপাত দৃষ্টিতে একটি সাধারণ সাপের ভিডিও হলেও এরকম ঘটনা কিন্তু সচরাচর কখনোই খালি চোখে আপনারা দেখতে পারবেন না। ভাইরাল সেই ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে একটা উঁচু গাছের ডালে ভয়ানক কিং কোবরা সব উঠে গিয়েছে এবং এক যুবতী অনেকক্ষণ ধরে সেই সাপটিকে নিচে নামানোর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। ভাবতে পারছেন দৃশ্যটা?

যদিও সাপটি নিচে নামার কোনরকম চেষ্টা দেখাচ্ছে না বরং তার জায়গায় ওই যুবতীকে বারংবার ছোবল মারার জন্য ফনা উদ্যত করছে। বিশ্বের অন্যতম বিষধর সাপগুলির মধ্যে কিং কোবরা সাপের নাম একেবারে প্রথমেই উল্লেখ করা যেতে পারে। এমতাবস্থায় ওই যুবতী যেভাবে সাপটিকে উদ্ধার করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে সেটা নিঃসন্দেহে একেবারে এই সাহসিকতার পরিচয়। কারণ যে সাপের এক ছোবলেই মানুষ ছবি হয়ে যেতে পারে সেই সাপের সাথে লড়াই করাটা কিন্তু চারটিখানি ব্যাপার নয়।।

প্রথম দিকে সফল না হলেও বেশ কিছুক্ষণের চেষ্টার পরে ওই যুবতী সাপটিকে নিচে নামিয়ে আনতে সক্ষম হয়। তারপর ওই ভয়ানক সাপটিকে যুবতী একটি বস্তায় ভরে নেয়। জানা যায় তিনি সর্পরক্ষকের কাজ করে থাকেন এবং এই সাপগুলিকে ধরে জঙ্গলে ছেড়ে দিয়ে আসেন যাতে তাদের কোন রকমের ক্ষতি না হয়। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই লোকালয়ে বিষধর সাপ প্রবেশ করলে মানুষ মেরে দিয়ে থাকেন তাই এই ব্যবস্থা।

‛স্নেক টিভি’ নামের একটি জনপ্রিয় ইউটিউব চ্যানেল থেকে এই ভিডিওটি আপলোড করা হয়েছে প্রায় বছর দুয়েক আগে। তবে আচমকাই নেট নাগরিকদের কল্যাণে এটি আবারো সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় ঝড় তুলেছে। প্রতিবেদনটি ভালো লেগে থাকলে অবশ্যই দেখে নিন সঙ্গে থাকা এই ভয়াবহ ভিডিও।

Back to top button